ঢাকা, সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ , ৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

সন্তান নিপীড়নের শিকার হচ্ছে কিনা বুঝবেন কীভাবে?

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯ মার্চ ২০১৮ শুক্রবার, ০১:০১ পিএম
সন্তান নিপীড়নের শিকার হচ্ছে কিনা বুঝবেন কীভাবে?

শৈশবে একটা শিশুর ছোট্ট আর পবিত্র মন থাকে, যা হয় হাসি-আনন্দ আর কল্পনা ভরপুর। সেই শৈশবে কোনো জটিলতা, ভয়ঙ্কর কিছুর অস্তিত্ব থাকে না। কিন্তু এই ছোট শরীর আর মনে যদি বিভীষিকার কোনো থাবা পড়ে তাহলে সেটা মেনে মেওয়া মুশকিল। আর তা যদি যৌন হেনস্তার মতো ব্যাপার হয়? আমাদের সমাজে একটা ছোট শিশু এই ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয় প্রায়ই। ভয়ে বা সংকোচে তা প্রকাশ করতে পারেনা বেশিরভাগই। 

এই পরিস্থিতিতে বাবা-মাকে অনেক বেশি সচেতন হওয়া দরকার। শিশুদের এমন কিছু বৈশিষ্ট্য আছে যা দেখলে বোঝা যায় যে তার সঙ্গে যৌন হেনস্তা ঘটে থাকতে পারে। সেই মতো করে সমাধানের পথ খুঁজতে হয়। কিছু লক্ষণ বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, সেগুলো দেখে নিই-

অস্বাভাবিক আচরণ

শিশুটি প্রতিদিনের মতো ব্যবহার করছে না, কেমন যেন খিটখিটে হয়ে গিয়েছে। কিছু বললেই বিরক্ত হচ্ছে। কিংবা খুবই দুষ্টুমি করছে। এদিকে রেজাল্ট খারাপ করছে। যেন ইচ্ছে করেই সমস্তটা করছে। না ইচ্ছে করে হয়তো আপনার শিশু এমনটা করছে না। নিশ্চয়ই তাঁর কোনও সমস্যা হচ্ছে। তাকে সময় দিন। কথা বলার মতো পরিস্থিতি তৈরি করুন।

ভয়

ছেলেটা কিংবা মেয়েটা ইদানীং কেমন যেন চুপ করে গিয়েছে। সারাক্ষণ সিঁটিয়ে থাকে। ছোট ছোট বিষয়ে ভয় পেয়ে যাচ্ছে। কিসের ভয় সে পাচ্ছে? তা জানা ভীষণ জরুরি। কোনোভাবে নিগ্রহের শিকার হচ্ছে নাকি, খোঁজ নিন।

এড়িয়ে যাওয়া

কোনো নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে এড়িয়ে যাচ্ছে আপনার শিশু। আদর করে ডাকলেও ভয়ে পালিয়ে যাচ্ছে। কিছুতেই মানুষটার কাছে যেতে চাইছে না। সতর্ক হোন আপনার শিশু কেন এমনটা করছে? কায়দা করে প্রশ্নের উত্তর জানার চেষ্টা করুন।

যৌনতায় আগ্রহ

হঠাৎ করে আপনার শিশু অশালীন ভাষা ব্যবহার করতে শুরু করেছে। টেলিভিশন কিংবা কম্পিউটারে প্রাপ্তবয়স্ককের ছবি দেখার আগ্রহ বাড়ছে। হয়তো সে জানতে চাইছে তার সঙ্গে কী হয়েছে।

স্কুল

এখন স্কুলও কিন্তু শিশুদের পক্ষে সুরক্ষিত নয়। যদি দেখেন, আপনার শিশু স্কুলে যেতে চাইছে না তাহলে সাবধান হোন। কারণটা জানার চেষ্টা করুন। প্রয়োজনে শিক্ষক-শিক্ষিকা ও তার বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে কথা বলুন।

শারীরিক সমস্যা

অল্প বয়সে শারীরিক শোষণের শিকার হলে শিশুদের শরীরে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। আপনার শিশু অসুস্থ হলে তাকে অবশ্য ভালভাবে ডাক্তার দেখাবেন। প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেবেন।

ইশারা

কিছু কিছু ক্ষেত্রে শিশুরা ইশারা দেওয়ার চেষ্টা করে। আপনার শিশুর ব্যবহারে কোনো আস্বাভাবিকত্ব দেখলে তা এড়িয়ে যাবেন না। তার ইশারা বুঝুন। তাকে বুঝুন। তার কোনো অব্যক্ত কথা বোঝার চেষ্টা করুন। তাহলে সেও আপনাকে বোঝাতে পারবে তার সঙ্গে কী হয়েছে বা হচ্ছে। সময় থাকতেই সাবধান হোন।


বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ/জেডএ