ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ , ৪ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

৮টি পুরনো বিষয় যা আধুনিক হোটেলগুলোতে দেখা যায় না

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭ জুলাই ২০১৮ শনিবার, ০৬:০৫ পিএম
৮টি পুরনো বিষয় যা আধুনিক হোটেলগুলোতে দেখা যায় না

যুগের পরিবর্তনের সাথে সাথে ঘটে কতই না পরিবর্তন! আধুনিক যুগের বিলাস বহুল হোটেলগুলোতেও চলে এসেছে এমন আমূল পরিবর্তন যার কারণে আগের কিছু স্বাভাবিক বিষয় এখন আর হোটেলগুলোতে দেখা যায় না। আসুন তবে জেনে নেয়া যাক এমন ৮টি প্রাচীন বিষয়, যেগুলো এখনকার সময়ের হোটেলগুলোতে সচরাচর দেখা যায় না।

প্লাস্টিকের চাবির রিং: আগের হোটেলগুলোতে রুম বুকিং এর সাথে সাথেই একটি প্লাস্টিকের চাবির ছড়া হাতে ধরিয়ে দিতো। এর মধ্যে রুম নম্বর ও লেখা থাকতো। তবে এখন আর সেরকম দেখা যায় না। অভিজাত হোটেলগুলোতে এখন চাবির ছড়ার পরিবর্তে দেয়া হয় প্লাস্টিকের এক ধরনের কার্ড, যেগুলো দিয়ে মৃদু স্পর্শ করলেই খুলে যায় রুম।

চাবির খাপ: কিছুদিন আগেও হোটেলে ঢুকলেই রিসিপশনের পেছনে বেশ একটা বড় জায়গা জুড়ে চাবি রাখার খাপ দেখা যেতো। তবে আধুনিক হোটেল গুলোতে কিন্তু এখন আর সেরকম দেখা যায় না। অবশ্য পুরনো কিছু হোটেলে এখনো থাকতে পারে। তবে যে সব হোটেলে ঢুকতে চাবি লাগে না, সেগুলোতে কিন্তু দেখা যায় না।

হোটেল পলাতক: আগে কিছু মানুষ দেখা যেত, যারা হোটেলে এক রাত থাকার পরের দিনই পালাতো। সেসময় এতোটা নিরাপত্তা ছিল না আর হোটেল বিলও হোটেল একবারে ছাড়ার পরই পরিশোধ করার নিয়ম ছিল। তবে এখন আর তেমন চোখে পড়ে না, এখন হোটেলে বুকিং দেয়ার সময়ই অগ্রিম টাকা পরিশোধ করতে হয়।

কম্পনযুক্ত বিছানা: আগে হোটেলগুলোতে এক ধরনের বিছানা ছিলো যেগুলো এক ধরনের কম্পনযুক্ত মাসাজের কাজ করত। তবে এখন এ ধরনের বিছানা একদম নেই বললেই চলে। প্রাচীন আমলে যুক্তরাষ্ট্রের হোটেলগুলোতে এই বিশেষ ধরনের বিছানা দেখা যেত। সেরকম বিছানা এখন আর দেখা যায় না।

গেস্ট বুক: হোটেল গুলোতে কম্পিউটার ব্যবহারের আগে অতিথিদের বিস্তারিত তথ্য খাতার মধ্যে হাতে লিখে রাখা হতো। অতিথিরা কখন হোটেলে ঢুকতো বা বের হতো তাঁর রেকর্ড ও রাখা হতো বিশেষ এ খাতায় যার প্রচলন এখন প্রায় দেখাই যায় না। এছাড়াও অতিথিরা হোটেল ছাড়ার আগে গেস্ট বুকে হোটেল সম্পর্কিত তাদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারতো।

গুগি শিল্প: বিশেষ করে আমেরিকার হোটেলগুলোতে এই ধরনের শিল্প কর্ম বেশি দেখা যেত। এই ধরনের শিল্প কর্মে যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাশা ও যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে দেশটির অবস্থা বোঝানো হতো। শুধু তাই নয়, হোটেলে এ ধরনের কারুকার্যে অতিথিরাও আকর্ষিত হতো। তবে আধুনিক হোটেলগুলোতে এখন এ ধরনের শিল্পকর্মের দেখা মেলে না।

অভিনব পোশাক:  আধুনিক হোটেলের কর্মকর্তারা যে ধরনের পোশাক পড়ছে, তাঁর সাথে আগের দিনের কর্মকর্তাদের পোশাকের কোনই মিল নেই। এখনকার কর্মকর্তাদের পোশাক ও সাজসজ্জায় সাদা-কালোর মিশেলে এক ধরনের রুচিশীলতার পরিচয় পাওয়া যায়। তবে সে সময় যারা হোটেলে কাজ করতো তাঁরা বেশ ভারী কাজের পোশাকই ব্যবহার করত।

স্টিম হিটিং সিস্টেম: পুরনো আমলের হোটেল গুলোতে এক ধরনের স্টিম হিটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হতো। তবে এখনকার হোটেলগুলোতে ব্যবহার করা হয় ইলেক্ট্রিক হিটার, রেডিয়েটর, এসির মতো আধুনিক তাপ নিয়ন্ত্রক যন্ত্রগুলো। এখনো যুক্তরাষ্ট্রের কিছু পুরনো বাড়িগুলোতে এই স্টিম হিটিং সিস্টেম দেখা যেতে পারে।

বাংলা ইনসাইডার/জেড আই