ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

পিঠে ব্যথার আসল কারণটি জানুন

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৯ আগস্ট ২০১৮ বুধবার, ১২:৩৩ পিএম
পিঠে ব্যথার আসল কারণটি জানুন

পিঠের ব্যথা আমাদের অনেকেরই একটা বড় সমস্যা। শুধু যে মেরুদণ্ডের সমস্যা বা আঘাত লাগা থেকেই পিঠে ব্যথা হয়, এটা ঠিক নয়। দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন কাজ আপনার পিঠের ব্যথা কিংবা ব্যাকপেইনের জন্য দায়ী। তাই পিঠের ব্যথা থেকে বাঁচতে কিছু কাজ এড়িয়ে চলুন বা কিছু বিষয় মেনে চলুন।

ভারী বস্তু উঠা-নামা করালে

এক হাত দিয়ে ভারী বস্তু বহন বা উঠানো-নামানো হলে পিঠে ব্যথা হয়। শুধু তাই নয়, ভুল পদ্ধতিতে ভারী বস্তু উঠালে বা টানলেও পিঠে ব্যথা হতে পারে। এছাড়াও ভারী বস্তুকে হাত দিয়ে জড়িয়ে উঠানোর চেষ্টা করলেও পিঠের পেশীতে টান পড়তে পারে।

কি করবেন: এ থেকে বাঁচতে কিছু তোলার সময় প্রথমে হাঁটু মুড়ে বসে নিন, তারপর সেই বস্তুটি উঠান। ভারী ব্যাগ কখনোই একপাশের কাঁধে বহন করবেন না। এক্ষেত্রে ব্যাকপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন।

উঁচুনিচু রাস্তায় গাড়ি চালানো

উঁচুনিচু রাস্তায় গাড়ী চালালে পিঠের উপর চাপ পড়তে পারে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা একই ভাবে বসে থাকলে অথবা দীর্ঘক্ষণ গাড়ী চালালে পিঠে ব্যথা হতে পারে।

কী করবেন: এজন্য আপনাকে দীর্ঘ ভ্রমণে বের হলে কিছুক্ষণ পর পর বিরতি নিন যাতে পিঠের উপর এবং মেরুদণ্ডে চাপ কম পড়ে। ড্রাইভিং করার পূর্বে আপনার সিটটি এডজাস্ট করে নিন যাতে পিঠের উপর কম চাপ পড়ে।

দীর্ঘক্ষণ বসে কোনো কাজ করলে

কাজের জন্য দীর্ঘক্ষণ বসে থাকতে হলে পিঠে ব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা আছে। টানা ৬-৮ ঘণ্টা বসে থাকতে হলে শিরদাঁড়ার উপর মারাত্মক চাপ পড়ে এবং এর ফলে পিঠে জৈবরাসায়নিক পরিবর্তন হয়। একই স্থানে এবং একই ভঙ্গিমায় দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ফলে পিঠের ব্যথা তীব্র আকার ধারণ করতে পারে।

কী করবেন: পিঠের ব্যথাকে এড়িয়ে চলার জন্য একঘণ্টা পর পর চেয়ার ছেড়ে উঠুন এবং কিছুক্ষণ হেঁটে আসুন। সহজ কিছু ব্যায়াম করে নিতে পারেন চেয়ারে বসেই।

বসার ভঙ্গি

টিভি দেখা, গেম খেলা, মোবাইলে অনবরত মেসেজ করার সময়, ল্যাপটপে কোনো কাজ করার সময় বেশিরভাগ মানুষই বাঁকা হয়ে বা উপুড় হয়ে বসে যার ফলে পিঠে ও মেরুদণ্ডে চাপ পড়ে এবং পিঠে ব্যথা হয়।

কী করবেন: পিঠে ব্যথার একটি প্রধান কারণ হচ্ছে ভুলভাবে বসা। তাই মারাত্মক পিঠে ব্যথা ও মেরুদণ্ডের সমস্যা প্রতিরোধের জন্য আপনার বসার ভঙ্গি ঠিক করতে হবে।

নরম তোশকে ঘুমানো

খুব বেশি নরম তোশকে ঘুমালেও পিঠে আরাম দিতে পারেনা। এটি মেরুদণ্ডের হাড়ের আকৃতিতে সামান্য পরিবর্তনও করতে পারে। এতে পেশী, লিগামেন্ট ও জয়েন্টের উপরও চাপ পড়ে।

কী করবেন: আপনাকে খুব বেশি শক্ত তোশকে শুলেও পিঠে ব্যথা হতে পারে। তাই খুব বেশি নরম বা শক্ত তোশকে না শুয়ে মোটামুটি নরম-শক্ত তোশকে ঘুমাবেন না। এতে পিঠে ব্যথার কোনো সমস্যা থৈরি হবে না।


বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ