ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৮ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ডেঙ্গুজ্বরের প্রকোপ থেকে বাঁচতে

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ রবিবার, ০৮:৪৭ এএম
ডেঙ্গুজ্বরের প্রকোপ থেকে বাঁচতে

 

সম্প্রতি ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকেই। বর্ষা পরবর্তী সময়ে মশাবাহিত এই রোগটিতে সব বয়সীরা আক্রান্ত হয় বেশি। ডেঙ্গু একটি ভাইরাসজনিত জ্বর। অন্য সব জ্বরের তুলনায় এই জ্বর ভয়াবহ হয়ে উঠতেই পারে, জ্বরের তীব্রতাও বেশি হতে পারে। জ্বরের সঙ্গে যোগ হতে পারে তীব্র গা ব্যথা, মাথাব্যথা, ক্ষুধা মন্দা, জয়েন্টে ব্যথা, পালস রেট কমে যাওয়া, চোখ লাল এবং ব্লাড প্রেসার অনেক কমে যাওয়া। তাই শরীরের ক্ষতি এড়াতে এডিস মশাকে প্রতিহত করাই ডেঙ্গু প্রতিরোধের প্রধান উপায়। এই মশা সাধারণত সূর্যোদয়ের আধঘণ্টার মধ্যে ও সূর্যাস্তের আধঘণ্টা আগে কামড়াতে পছন্দ করে। তাই এ দুই সময়ে মশার কামড় থেকে সাবধান থাকুন। এক্ষেত্রে মাথায় রাখুন এই বিষয়গুলো-

মশার প্রজনন স্থল আগে ধ্বংস করুন

বদ্ধ, জমে থাকা পানিই ডেঙ্গু মশার প্রজনন স্থল। এজন্য ঘর-বাড়ি ও এর চারপাশে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা ক্যান, টিনের কৌটা, মাটির পাত্র, বোতল, নারকেলের মালা ও এ জাতীয় পানি ধারণ করে এমন পাত্র নষ্ট করে ফেলুন। যাতে পানি জমতে না পারে।

এছাড়া বড় বড় ভবনের আশপাশে, আনাচে কানাচে, ডাস্টবিন ও এর আশপাশের স্থান; এমনকি ঘরের পাতিল, বদনা, ভাঙা কোনো কৌটাতেও যাতে চার-পাঁচ দিনের বেশি পানি জমে না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখুন। আবার ফ্রিজের নিচে, এসির নিচে, ফুলের টবে ও মাটির পাত্রে সামান্য পানি জমে থাকলে তাও ফেলে দিন।

মশারি ব্যবহার করুন

বর্ষাকালে ঘুমানোর আগে অবশ্যই মশারি ব্যবহার করুন। এটা ডেঙ্গু প্রতিরোধের সর্বোত্তম পন্থা। এডিস মশা দিনের বেলাতেই বেশি কামড়ায়। তাই দিনের বেলা ঘুমালেও অবশ্যই মশারি ব্যবহার করুন। বিশেষ করে আপনার বাড়ির শিশুদের দিকে বেশি নজর দিন।

মশা নিরোধক ব্যবহার করুন

শুধু দিনের বেলাতেই নয়,  নয়, রাতের বেলাও সারা শরীরে মশা নিরোধক ক্রিম ব্যবহার করুন। মশা তাড়াতে চাইলে তেলও ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া বাসাবাড়ি, হাসপাতাল, অফিস-আদালতের আনাচ-কানাচে মশার স্প্রে বা ওষুধ ছিটাতে দিন যেন এসব স্থানে কোনোভাবেই মশা আশ্রয় নিতে না পারে।

স্বাস্থ্যকর পরিবেশ নিশ্চিত করুন

যেকোনো রোগ নিয়ন্ত্রণে রাখার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো স্বাস্থ্যকর পরিবেশ নিশ্চিত করা। এজন্য বাসার ডাস্টবিন সবসময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখুন। আর সেটির উপরে ঢাকনা ব্যবহার করতে ভুলবেন না। টয়লেট পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি ফ্রেশনার ব্যবহার করুন। চাইলে ঘরের দরজা, জানালায় ও ভেন্টিলেটরে মশানিরোধক জাল ব্যবহার করতে পারেন। এতে বাড়তি প্রতিরোধে থাকবেন আপনি।

তুলসি গাছ

জানালার পাশে তুলসি গাছ লাগান। কারণ তুলসি মশাকে দূরে রাখতে পারে। তুলসি গাছ থাকলে সেই জানালা বা দরজা দিয়ে মশা সহজে ভিতরে প্রবেশ করতে পারবে না।

কর্পূর ব্যবহার করতে পারেন
প্রাকৃতিক উপায়ে মশা তাড়াতে কর্পূর ভালো উপকারী হতে পারে। এজন্য দরজা-জানালা বন্ধ করে কর্পূর জ্বালিয়ে রুমের ভেতর রাখুন। ২০ মিনিটের মধ্যেই মশা চলে যাবে। আপনি এই ডেঙ্গুর সময়ে সকাল এবং সন্ধ্যায় কর্পূর জ্বালিয়ে রাখুন।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ/জেডএ