ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

খাবার থেকে শরীরের দুর্গন্ধ?

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শুক্রবার, ০৪:০৫ পিএম
খাবার থেকে শরীরের দুর্গন্ধ?

প্রকৃতিতে গরম আবহাওয়া বিরাজ করলে একদিকে গরমে অস্বস্তি যেমন বেশি হয়, সেই সঙ্গে ঘাম আর গন্ধে সবকিছু অসহ্য হয়ে ওঠে। এই গন্ধ বা দুর্গন্ধে আপনার পাশাপাশি আশেপাশের লোকজনও বিরক্ত হবে স্বাভাবিকভাবে। শুধু গরম আর ঘামের জন্যই যে মূলত শরীরে দুর্গন্ধ হয়, এটা ভাবার কোনো কারণ নেই। বিভিন্ন খাবারেও এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা থেকে শরীরে উৎকট গন্ধ হতে পারে। এই ধরনের খাবারগুলো সম্ভব হলে এড়িয়ে চলাই ভালো।

কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ খাবার

শরীরের কর্মক্ষমতার ঘাটতি যাতে না দেখা যায়, সেদিকে খেয়াল রাখে কার্বোহাইড্রেট। ফলে এই উপাদানের ঘাটতি হলে শরীর বিভিন্ন সমস্যায় পড়বেই। কার্বোহাইড্রেটের ফলে শরীর নিজেকে সচল রাখতে কিটোন বডি নামে এক ধরনের জ্বালানির উৎপাদন করতে পারে। এই কিটোন বডি একটোন নামক উপাদানের সৃষ্টি করে শরীরে দুর্গন্ধ তৈরি করে। তাই বেশি মাত্রায় কার্বোহাইড্রেটসমৃদ্ধ খাবার নয়।

শতমূলী

এই শাকটি খেলে ঘাম এবং প্রস্রাব থেকে খারাপ গন্ধ বের হতে পারে। শতমূলীতে থাকা মার্কেপটন গ্যাসটি শরীরে এই দুর্গন্ধের সৃষ্টি করে। তাই পুষ্টিকর হলেও এই খাবারটি এড়িয়ে চলুন বা কম পরিমাণে খান।

মাংস

সুস্বাদু মাটন কারি খেতে ভালোবাসে সবাই। কিন্তু এই মাটন আমাদের শরীরে বেশ ক্ষতিও করতে পারে। বিশেষ করে রেড মাটন বা লাল মাংস খাওয়ার পর তার বেশিরভাগ অংশই একেবারেই হজম হতে পারে না। ফলে যে অংশটা হজম হয় না, সেটির নির্যাস অনেকসময়েই ঘামের মাধ্যমে শরীরের বাইরে বেরিয়ে আসে। আর এতে শরীরের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াগুলি সক্রিয় হয়ে শরীরের দুর্গন্ধ বেশি হয়।

ঝাল মশলাযুক্ত খাবার

রান্নাকে সুস্বাদু করে তুলতে বিভিন্ন মশলা যেমন আদা, রসুন এবং পেঁয়াজ ছাড়া চলেই না। কিন্তু এই মশলাগুলোতে প্রচুর সালফার থাকে। আর শরীরে বেশি মাত্রায় সালফার প্রবেশ করলে শরীরে ঘামের দুর্গন্ধ হতে পারে। এজন্য গরমের সময়ে কম মশলাদার খাবার খাবেন। এতে দুর্গন্ধ কম হবে।

অ্যালকোহল

বরফমিশ্রিত ঠাণ্ডা অ্যালকোহল গলা দিয়ে শরীরে প্রবেশ করার পরে তা অ্যাসিটিক অ্যাসিডে রূপান্তরিত হয়। এরপরে সেই অ্যাসিড ত্বকের ছিদ্রগুলি দিয়ে বাইরে বেরিয়ে আসে। ফলে শরীরের দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে ফেলে। তাই ঘামে বাজে গন্ধ দূর করতে অ্যালকোহলকে একদমই বিদায় জানান অভ্যাস থেকে।

মাছ

শরীর সুস্থ রাখতে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডের ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে। মাছে প্রচুর পরিমাণে এই অ্যাসিডটি থাকে। তাই সুস্থ জীবনের জন্য মাছ খাওয়া জরুরি। কিন্তু মাছে আবার কোলিন উপাদান থাকে, যেটি শরীরের গন্ধ বাড়িয়ে দেয়। কারণ মাছ খাওয়ার পর তা ভালোভাবে হজম না হলে কোলিন সক্রিয় হয়ে ঘামের সঙ্গে ট্রিমেথিলেমিন নামক উপাদান বের করে। এতে শরীরে বেশি গন্ধ হয়।

বাঁধাকপি

শরীরে বেশি গন্ধ টের পেলে ব্রকলি, বাঁধাকপি, কর্নফ্লাওয়ার খাওয়া একদম কমিয়ে দিন। কারণ এই সবজিগুলোতে রয়েছে পটাশিয়াম এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকলেও সালফার শরীরে মারাত্মক গন্ধ তৈরি করে। তাই গায়ে বেশি গন্ধ হলে অবশ্যই এই সবজিগুলো খাওয়া কমিয়ে দেবেন।


বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ