ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

নির্বাচনী প্রচারণায় পরিবার

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮ রবিবার, ০৮:৩১ এএম
নির্বাচনী প্রচারণায় পরিবার

আপনি নির্বাচনে দাঁড়িয়েছেন বড় একটি স্বপ্ন নিয়ে। কিন্তু এত বিশাল রাস্তা পেরোতে হলে আপনাকে মাঝেমাঝে হাল ছেড়ে দিতে ইচ্ছে হতে পারে, ক্লান্তবোধ, দুশ্চিন্তা ভর করতে পারে। কিন্তু দিনশেষে দেখলেন যে প্রচারণা থেকে ফিরলে আপনার পরিবার আপনাকে অনেকটাই মানসিক সমর্থন দিচ্ছে। আপনি তাদের সঙ্গে কথা বলে হালকাবোধ করছেন। রাজনীতি আর পরিবারকে একসঙ্গে মেলাবেন না ভেবেছিলেন হয়তো, কিন্তু এই পরিবারই আপনার সবচেয়ে বড় ভরসার জায়গা হয়ে উঠতে পারে।

একজন প্রার্থী হিসেবে আপনি যে শুধু প্রচারণার মাঠেই দৌঁড়াদৌঁড়ি করবেন, এমনটা তো নয়। আপনার একটি পরিবার আছে। আপনার সুখে-দুঃখে বা বিপদে আপদে তারা আপনার পাশে থাকে সবসময়। নির্বাচনের মতো এতো বড় একটা পরীক্ষার সময়েও আপনাকে তারা অনেকটাই সাহায্য করতে পারেন। তাই একজন প্রার্থীর পরিবার হিসেবে তাকে কি কি ধরনের সযযোগিতা করা যায় তা নিয়ে থাকছে বাংলা ইনসাইডারের আজকের আয়োজন-

১. পুরুষ প্রার্থীর ক্ষেত্রে তাঁর স্ত্রী প্রচারণার সময়ে বিশেষ সহযোগিতা করতে পারে। আপনার স্ত্রী যদি আপনার হয়ে টুকটাক প্রচারণার চেষ্টা করে, সেটা খারাপ হয় না। তিনি আপনার সঙ্গে মাঝেমধ্যে প্রচারণায় যেতে পারেন। আলাদাভাবেও কিছু প্রচারণা করতে পারে। তিনি যাদের সঙ্গে ওঠাবসা করেন, বা কোনো সংগঠনের সঙ্গে জড়িত থাকেন তবে তিনি স্বামীর ভালোমন্দ ‍দিকগুলোকে তুলে ধরতে পারেন। বিশেষ করে তিনি নারী বলে অন্য নারীদের মাঝে একটা প্রভাব তৈরি করতে পারেন।

২. আবার একজন স্বামীও তার প্রার্থী স্ত্রীর নির্বাচন আর প্রচারণা সংক্রান্ত যাবতীয় কাজে সহায়তা করতে পারে। স্ত্রী প্রচারণার সময়ে পাশে থাকা, তার নিরাপত্তার বিষয়ে খেয়াল রাখা, কিছু পরিকল্পনা প্রণয়নে সহায়তা করতে পারেন। কোনো সমস্যায় পাশে থেকে তাঁকে সার্বিকভাবে পরামর্শ দিতে পারেন।

৩. আপনার সন্তান যদি প্রাপ্তবয়স্ক এবং তরুণ হয়, তবে অবশ্যই তাদের পাশে রাখা উচিৎ। কারণ তরুণ প্রজন্ম এই তরুণ সমাজকে পথ দেখিয়ে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। সেই তরুণ সন্তান যদি বাবা-মায়ের সঙ্গে প্রচারণায় হাত মেলাতে পারে, সেটা অনেকদূর সাহায্য করতে পারে। আপনার প্রচারণায় সরাসরি অংশগ্রহণ, তার বন্ধুমহলে বাবা-মাকে তুলে ধরতে পারলে সেটা অনেক সুবিধাজনক হবে।

৪. আত্মীয়-স্বজনদেরকেও আপনার সঙ্গে যুক্ত রাখুন। আপনার অসংখ্য আত্মীয় স্বজনকে অন্যান্য সময় এড়িয়ে চললেও এই সময়টাতে কাছে রাখতে পারেন। তাদের সঙ্গে নির্বাচন নিয়ে আলোচনা করুন। আপনি কোথায় যাচ্ছেন না যাচ্ছেন, কেমন হচ্ছে প্রচারণা এগুলো অবগত রাখুন।

৫. আপনার সামাজিক মাধ্যমে আপনার কর্মকাণ্ডগুলো শেয়ার করতে পারেন। প্রচারণার ছবি, ভিডিও, লাইভে গিয়ে আপনি কিছু আপলোড করলে আপনার বন্ধুতালিকায় থাকা সবাই সেগুলো দেখবে। তারা যদি সেগুলো বেশি করে শেয়ার দিতে পারে তবে তা অনেকদূর পর্যন্ত ছড়াবে। এতে করে আপনার সম্পর্কে প্রচার অনেক বাড়বে।

৬. দিনে একবার অন্তত চেষ্টা করুন পরিবার নিয়ে কিছুক্ষণের জন্যে হলেও বসা। বসে আলোচনা করবেন। আপনার বাবা-মাসহ পরিবারে যেই থাকুক না কেন, তাদের আপনার প্রচারণা আর নির্বাচন নিয়ে খোলাখুলি আলোচনা করবেন। তাদের পরামর্শ, মতামত আপনাকে সহায়তা করবে। বিপদে অনেকটাই পাশে দাঁড়াবে।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ/জেডএ