ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

করে ফেলুন পিকনিকের প্ল্যান

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৭ জানুয়ারি ২০১৯ রবিবার, ০৮:০৭ এএম
করে ফেলুন পিকনিকের প্ল্যান

প্রায় বছর ধরে পিকনিক করবে করবে বলে পরিকল্পনা করেই যাচ্ছে সাদিক আর তার ৬ সহকর্মী। সময় হচ্ছে তো বাজেট হচ্ছে না। বাজেট হলেও সেটার বণ্টন নিয়ে ঝামেলা হচ্ছে। কতোবার যে পিকনিক বাতিল হলো তার হিসেব নেই। কিন্তু শেষ পর্যন্ত উদ্যোগী হলো সাদিক নিজেই। সে সবাইকে শেষবারের মতো ডাকলো। ছুটির দিন ঠিক করে তারা আশেপাশেই কোথাও পিকনিকে যাবে। সবার কাছে মোটামুটি একটা পরিকল্পনা সে দাঁড় করিয়ে দিলো। সবার সেটা পছন্দও হলো। শেষমেস পিকনিকের জন্য প্রস্তুত হলো তারা।

আর তাই প্রয়োজন একটা সুষ্ঠু পরিকল্পনার। পিকনিকে আনন্দ করবেন, পরিকল্পনা কেন করবেন না? তাই এভাবে সাজান পরিকল্পনা-

আগেই পরিকল্পনা প্রয়োজন

একটি সঠিক পরিকল্পনা না করলে পিকনিকটি অবশ্যই ভালো হবেনা। আপনাকে অবশ্যই আগে পরিকল্পনা করে নিতে হবে। আগে ভাবুন কতোজন আপনারা। নারী বা শিশু কতজন আছে, পিকনিক কত সময়ের জন্য হবে, কত দূরত্বের মাধ্যমে করতে হবে, কোথায় করবেন, কোথায় যাবেন, পিকনিকে কি কি ইভেন্ট রাখবেন, সেই ইভেন্টগুলো কোথায় হলে সব ঠিকঠাক করা সম্ভব হবে সেগুলো আগে সুন্দর করে গুছিয়ে নিন। এজন্য বিভিন্ন পিকনিক স্পটের সেবা ও দরদাম এবং সীমাবদ্ধতা ও শর্ত সম্পর্কে জেনে ফেলুন। তাহলে সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধা হবে। আগে হাতে সময় নিয়েই সব করবেন। না হলে স্পট বুকিং দিতে পারবেন না।

ব্যবস্থাপনা কি করবেন ভাবুন

একটি পিকনিক পার্টিতে বিভিন্ন কাজ থাকে। দূরে পিকনিক হলে সেখানে যাওয়া আসা, খাওয়াদাওয়া, বিনোদন, খেলাধুলা, পুরষ্কার, সব ম্যানেজ করা্র জন্য প্রস্তুত নিন। পিকনিকের সব সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে ম্যানেজ করবেন, নিজে থেকে সব করতে গেলে ঝামেলার ভয় থাকে। সেক্ষেত্রে নিজেদের মধ্যে দায়িত্ব ভাগ করে এ-দুইজনকে নেতৃত্ব দিয়ে দিন। তারাই পুরোটা তদারকি করে নেবে। নিজেদের মধ্যে সম্ভব না হলে রান্নার ভালো লোক খুঁজে নিন। কোনো ট্যুর বা পিকনিক বা ইভেন্ট ম্যানেজার প্রতিষ্ঠানকেও দায়িত্ব দিতে পারেন। এতে নিশ্চিত থাকতে পারবেন সবাই। আর বাজেট নিয়েও আপনাদের সমান অংশগ্রহণ দরকার। এমন বাজেট সবার ওপর চাপিয়ে দেবেন না, যাতে কারো সমস্যা হয়।

পিকনিক স্পটে

পিকনিক স্পটে তো খাওয়া ছাড়াও আনন্দ বিনোদনের বিভিন্ন আয়োজন থাকে। আপনাকে অবশ্যই খাবারের মেন্যু নাস্তার তালিকা এসবের পরিমাণ বাজেট ও মান আগে থেকে ঠিক করে নিতে হবে। যদি ভেন্যুতে পান তাহলে তাদেরকে সেভাবে অর্ডার করতে হবে আর যদি নিজেরা আয়োজন করেন তাহলে রাধুনী আর তার সহকারী সার্ভিসের লোক ঠিক করে নিজেদের দলের কয়েকজনকে তাদের দায়িত্ব দিয়ে কাজ করানো ভালো। লোকসংখ্যা অনুসারে ভেন্যু ঠিক করবেন। যাতে সেখানে তাদের বসা , খাওয়া ও ঘোরাফেরার পর্যাপ্ত জায়গা থাকে। আর রিফ্রেশ হওয়ার জন্য পর্যাপ্ত রুম ও ওয়াশরমের কথাও মাথায় রাখতে হবে।

খাওয়া দাওয়া

পিকনিকে খাওয়াদাওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যদি মেন্যু অনুসারে অর্ডার করেন তাহলে তাদেরকে অবশ্যই বলে দেবেন খাবারে একবারে মধ্যম মানের হয়। কারণ সবার পছন্ত তো এক না। কেউ স্পাইসি, কেউ সাধারণ খাবার পছন্দ করে। সেগুলোর জোগাড়যন্ত্র আগেই করে রাখুন। আর দুপুরের খাবার ছাড়াও সকাল ও বিকেলের নাস্তার কথা অবশ্যই মাথায় রাখবেন।

পরিবহন

পিকনিকে অবিচ্ছেদ্য অংশ হতে পারে পরিবহন। ‍যদি দূরে কোথাও যেতে হয় তবে নির্দিষ্ট স্থান থেকে পিকনিক স্পটে ‍যাওয়ার জন্য আরামদায়ক পরিবহনের ব্যবস্থা করতে হবে। ভালো হয় নিজেরা আগে থেকে গাড়ি বা অন্য ব্যবস্থা করে রাখলে। কারণ সবার সুবিধার কথা মাথায় রাখতে হবে।

বিনোদন

বিনোদন ছাড়া পিকনিকতো চিন্তাই করা যায়না। তাই গান, খেলাধুলা, র‌্যাফেল ড্র, কৌতুকসহ নানা আয়োজনে আপনি পিকনিককে আনন্দময় করে তুলতে পারেন। শিশু ও নারীদের জন্য থাকতে পারে ভিন্ন আয়োজন। যদি রাতে অবস্থান করেন তাহলে আতশবাজি ও ফানুস উড়াতে পারেন।

বাংলা ইনসাইডার