ঢাকা, শনিবার, ২৩ মার্চ ২০১৯, ৯ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

এড়িয়ে চলুন বিরক্তিকর অভ্যাসগুলো

শাহরিনা হক
প্রকাশিত: ১০ মার্চ ২০১৯ রবিবার, ০৮:০৭ এএম
এড়িয়ে চলুন বিরক্তিকর অভ্যাসগুলো

আপনি খুব মন দিয়ে অফিসের কাজ করছেন বা পড়াশোনা করছেন, আপনার পাশের ব্যক্তিটি খুব জোরে জোরে অনর্থক কথা বলেই যাচ্ছে। আপনার রাগ ধরবে। এমন কিছু মানুষ আছে যারা এমন আচরণ করে যা অন্যের বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আর এমন লোকদের সঙ্গেই আমাদের চলতে হয়। কি সেই অভ্যাস যা আপনারও বাদ দিতে হবে, তা নিয়ে থাকছে আজকের আলোচনা। 

১. প্লেন বা বাসের সিটে বসতে গেলেও কিছু নিয়ম মানতে হবে আপনাকে। সেখানে আরাম আয়েশ করে বসার আগে ভাবুন অন্য কারো সমস্যা হচ্ছে না তো? এই ধরুন আপনি আরাম করে বসার জন্য সামনের সিটে পা ধাক্কা দিলেন বা পিছনের দিকে সিটটা নিয়েই হেলান দিলেন। এতে অন্য যাত্রীদের বসতে কষ্ট হয়, বিরক্ত লাগে। তাই এগুলো মাথায় রাখুন।

২. অফিস টাইমে একটা সমস্যা প্রায়ই হয়। আপনি যখন কম্পিউটারে কোনো কাজ করবেন, তখন কেউ পেছনে এসে দাঁড়ায়, দেখবেন অস্বস্তি লাগে, কাজ করতে অসুবিধা হয়। তাই নিজে কখনো কাজের আশেপাশে থাকবেন না। এটা ভালো দেখায় না। গ্রুপওয়ার্ক হলে সেটা ভিন্ন কথা।

৩. দুই তিনজন একসঙ্গে সিনেমা দেখতে বসলেন, এর মধ্যে কোনো একজনের সেটা আগেই দেখা। সবাই মিলে দেখার মাঝখানে সে আগে থেকেই সিনেমার গল্প বা কোনটার পর কী হবে বলে দিতে লাগলো। এটা খুব বিরক্তিকর। এটা করবেন না, মনোযোগ নষ্ট হবে।

৪. আপনি ব্যাংকের কাজ বা কোনোকিছুর জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন। আপনাকে পিছন থেকে বিনা কারণে কেউ ঠেললে বা লাইন অতিক্রম করে যেতে চাইলে আপনার রাগে অতিষ্ট লাগবেই। এটা খারাপ অভ্যাস, নিজেও এমনটা করবেন না।

 

৫. আপনি কাউকে খুব গুরুত্বপূর্ণ কিছু বলছেন। সে আপনার কথার গুরুত্ব না দিয়ে নিজের মত ফোন গুতিয়ে যাচ্ছে বা অন্যকাজ করেই যাচ্ছে। এটা অসহ্যকর লাগবে দেখবেন। আপনি আর কিছু বলার আগ্রহ পাবেন না, রাগ হবে। তাই নিজের এমন অভ্যাস থাকলে সেটা বাদ দিন।

৬. অনেকেরই অভ্যাস থাকে জোরে জোরে কোনো কাজ করা। জোরে শব্দ করে দরজা লাগানো, জোরে হাচি দেওয়া, শব্দ করে খাওয়া- এগুলো করার সময় খেয়াল থাকে না। কিন্তু অন্যদের খুব অসুবিধা হয় এতে। সেটা বুঝতে হবে আপনার।

৭. কারো বিপদ দেখলে অনেকেরই হেসে ওঠার অভ্যাস থাকে। ধরুন কারো গায়ে চা পড়ে গেলো, কেউ রাস্তায় হোঁচট খেলে তা দেখে আরেকজন হা হা করে হেসে উঠলো। এটা তার জন্য খুব বিব্রতকর। বন্ধু বা পরিচিতদের মধ্যে এমন হলে তাও মানা যায়। কিন্তু অন্য কেউ এমন মজা করলে সেটা খারাপ লাগে।   

৮. পথেঘাটে কিছু মানুষ আছে যাদের দেখবেন বিনা কারণেই তাকিয়ে থাকার অভ্যাস থাকে। অপরিচিত একজন অনবরত আপনার দিকে তাকিয়ে থাকলে আপনার মেজাজটাই খারাপ লাগবে। আপনি নিজেও কখনো এমন কাজ করবেন না।

৯. আমরা একটা কাজ প্রায়ই করি। কাউকে একটা নির্দিষ্ট সময়ে দেখা করার কথা বলে দেরি করে যাওয়া, তাকে বিনা কারণে অপেক্ষা করিয়ে রাখে। এটা পুরোই মানসিকতার বিষয়। একমাত্র আপনাকে এমন অপেক্ষাতে রাখলেই আপনি বুঝবেন কেমন বিরক্ত লাগে তখন।

 

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ/এমআর