ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ৭ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ওজন কমান অফিসে বসেই

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০ মার্চ ২০১৯ রবিবার, ০৪:০৬ পিএম
ওজন কমান অফিসে বসেই

দিন দিন যেন ওজন বেড়েই যাচ্ছে ইসহাক সাহেবের। বয়স মাত্র ত্রিশ না পেরোতেই মোটা স্বাস্থ্য, বেশি ওজন, বড়সড় একটা ভুড়ি নিয়ে চিন্তায় পড়ে গেলেন তিনি। এমন সমস্যা ৪-৫ বছর আগেও ছিল না। চাকরিতে ঢোকার পর থেকেই ওজন বাড়ছে। এর তো কারণও আছে। সারাদিন ডেস্কে বসে কাজ করা, খাওয়ার অনুপাতে পরিশ্রম কম করা, কোনো ব্যায়াম না করা- এগুলো কারণই স্থূলতা বাড়িয়ে দেয়।

এর সমাধান আছে আপনারই হাতে। দেখে নিন সেগুলো-

দাঁড়িয়ে থাকা

যাদের ডেস্কে একনাগাড়ে বসে থাকতে হয়, তাদের স্থূলতা, শরীরে পানি জমা, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, কোলেস্টেরলও ধরা পড়তে পারে। কেউ আবার ক্যানসারেরও আশঙ্কার কথা বলেন। এজন্য বিশেষজ্ঞরা বলেন যে ডেস্কে বসে কাজের সময়ে প্রতি ৩০ মিনিট অন্তর উঠে দাঁড়াতে। এতে রোগের প্রকোপ কমে, আপনার দেহের মেদও কমে যাবে।

সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামার অভ্যাস

আমরা তো সিঁড়ি দিয়ে ওঠা এখন ছেড়েই দিয়েছি। লিফট থাকতে কষ্ট করে, সময় নষ্ট করে কেন সিঁড়ি ভাঙতে যাবো। কিন্তু বসে থেকে থেকে যে মেদ আপনি জমান, সেগুলো ঝরানোর সহজ উপায় হতে পারে সিঁড়ি দিয়ে বার বার ওঠানামা করা। বাড়িতে থাকলে সময়ের অভাবে মর্নিংওয়াক করতে পারেন না অনেকেই। সেক্ষেত্রে আপনি যদি অফিসে লিফটে ওঠার বদলে সিঁড়ি দিয়ে বেশ কয়েকবার ওঠানামা করেন, তাহলে দেখবেন বাড়তি ওজন অনেকটাই কমবে।

বেশি করে পানি খাওয়া

অফিসে ঢুকে গেলে কাজের চাপে নিজের দিকে তাকানোর সময়ও থাকে না আপনার। হয়তো কিছু খেলেন, তার সঙ্গে এক ঢোক পানি। ব্যস, এইটুকুই। এতে শরীর পানিশূন্য তো হবেই। আর মেদও ঝরতে দেবে না। অফিসে থাকাকালীন অন্তত ৩ লিটার পানি খেতে চেষ্টা করুন। কারণ পানি ওজন ঝরাতে সাহায্য করে।

আপনার খাবারদাবার

অফিসে যাওয়ার তাড়ায় সময়ের অভাবে বেশিরভাগই সকালের নাস্তা করা হয় না। বাইরের অস্বাস্থ্যকর, তেলেভাজা খাবার খেয়ে নিতে হয়। দুপুরেও এমন খেতে হয়। এভাবে অনবরত বাইরের খাবার খেয়ে নিজের ওজন নিজেই বাড়াচ্ছেন। চেষ্টা করুন বাইরে না খেয়ে বাড়ির বানানো খাবার খেতে। এতে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে। আর অবসরের কি খাচ্ছেন খেয়াল রাখুন। বেশি ক্যালরিযুক্ত খাবার কখনোই খাবেন না। বিশেষত মিষ্টি জাতীয় খাবার। চকলেট জাতীয় খাবার বা আইসক্রিম কম খাবেন।

শারীরিক ব্যায়াম

প্রশ্ন জাগতেই পারে, অফিসে বসে আবার ব্যায়াম হয় নাকি! হয়, সম্ভব। পা মেঝে থেকে অল্প উপরে তুলে রাখুন। এবার দুই পায়ের পাতাকে উপর দিকে করে নিজের শরীরের দিকে টেনে রাখুন দশ সেকেন্ড। এবার ছেড়ে দিয়ে ঠিক উল্টো দিকে অর্থাৎ শরীরের বাইরের দিকে ঠেলে দিন পায়ের পাতাকে। এইভাবে দশ সেকেন্ড রাখুন। এই ব্যায়ামে আপনার ক্যালরি ঝরবে।

কাজ করতে করতেই শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যায়াম করুন। প্রথমে মনে মনে ১ থেকে ৮ গোনা পর্যন্ত শ্বাস টেনে ভিতরে রাখুন। এবার ১ থেকে ৮ গুনতে গুনতে ধীরে ধীরে নিঃশ্বাস ছাড়ুন। অফিসে কাজের ফাঁকে শ্বাস-প্রশ্বাসের এই ব্যায়াম শুধু আপনার শরীর সুস্থ ও সতেজ করতে সাহায্য করবে।

চেয়ারে সোজা হয়ে বসার সময় দু’পায়ের হাঁটু এবং গোড়ালি জোড়া করে বসুন। এতে পায়ের পেশী সুগঠিত হয়। শরীরের বাড়তি মেদ দ্রুত ঝরাতেও সাহায্য করে বসার এই ভঙ্গিমা। প্রতি ৩০ মিনিট পর পর অন্তত ১০ মিনিট করে এভাবে বসার অভ্যাস করুন। মেরুদণ্ড একদম সোজা, টান টান করে বসলে অধিক ক্যালরি খরচ হয়। এ ভঙ্গিতে বসলে পেট ও পিঠের পেশীগুলি অনেক সুগঠিত হবে আর টান টান হবে।

অফিসে কাজে বসার সময় শুধু মেরুদণ্ড সোজা করে বসলেই হবে না, পায়ের পাতা মেঝের সঙ্গে সমান করে ছুঁয়ে রাখুন এবং মাথা সোজা রেখে কাজ করার চেষ্টা করুন।

আর প্রতিদিন কর্মব্যস্ততার ফাঁকে নিজের জন্য ৩০ মিনিট সময় বের করে ব্যায়াম করুন। তা না হলেও সকালে ১০-১৫ মিনিট হাঁটুন। সাইক্লিং, জগিং করুন।

 

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ/এমআর