ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

সেহেরি খেতে অনীহা

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ মে ২০১৯ বুধবার, ০৩:২৭ পিএম
সেহেরি খেতে অনীহা

সেহেরি খেতে হবে বলে প্রতিদিনই অ্যালার্ম দিয়ে রাখেন আপনি। কিন্তু প্রতিদিন সেই অ্যালার্ম বন্ধ করে আপনি আবার শুয়ে পড়েন বা একগ্লাস পানি খেয়ে নেন। কারণ আপনার হয়ত সেহেরি খেতেই ইচ্ছে করে না, আলসেমি লাগে।

ভোররাতে ঘুম ভেঙে সেহেরি করা অনেকের জন্যেই কষ্টকর হয়ে যায়। কিন্তু রোজা তো করতে হবে। সেহেরি না খেলে রোজা হবে ঠিকই, কিন্তু আপনার শরীর ঠিক থাকবে না। অনেকে দেখা যায় শুধু একগ্লাস পানি বা খুব হালকা কিছু খেয়ে নেন।

হিসাব করে দেখা যায়, সেহেরিতে না খেলে বিশাল একটা সময় না খেয়ে থাকা পড়ে। রাতে খাওয়ার পর পরদিন ইফতার পর্যন্ত না খেয়ে থাকা মানে প্রায় পুরো একটা দিন, ২৪ ঘণ্টার মতো না খেয়ে থাকা। এটা শরীরের জন্য ক্ষতিকর। টানা একমাস এমন না খেয়ে থাকলে আপনার শরীর ভেঙে পড়বে, অসুখ বিসুখ জেকে বসবে একেবারে।

সেহেরির প্রতি অনীহার অনেকগুলো কারণ আছে। তার মধ্যে প্রথম হলো ঘুম না ভাঙা। ঘুম ভেঙে উঠে কিছু খাওয়া অলসতা। ফলে কোনোরকম একগ্লাস পানি খেয়ে আবার শুয়ে পড়া। কখনো একেবারেই কিছু না খেয়ে থাকা।

আমাদের অনেকের একটা সমস্যা হলো ইফতার আর রাতের খাবারটা জমপেশ করা। সারাদিন না খেয়ে থেকে ঠেসেঠুসে ইফতার করা হয়ে যায়। আবার রাতেও ভালোমন্দ আইটেম রাখা হয় পুষ্টিচাহিদা পূরণ করার নিমিত্তে। এই ভরপেট খাওয়ার পরে সেহেরিতে খাওয়ার কোনো চাহিদাই থাকে না।  

বেশি রাত করে খাওয়াও সেহেরির প্রতি অনীহা তৈরি করে দেয়। খাওয়ার সময়ের মধ্যে নির্দিষ্ট সময় গ্যাপ না থাকলে খেতে ইচ্ছে করবে না। আবার ইফতার আর রাতের খাবারে খুব বেশি তৈলাক্ত, চর্বিযুক্ত বা ফাস্টফুড জাতীয় খাবার খেলে ক্ষুধামন্দা বা অ্যাসডিটি হতে পারে। ফলে সেহেরি খেতে ইচ্ছে করবে না।

অনীহা কাটাবেন কীভাবে

রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়ার অভ্যাস করুন। যাতে ঘুমটা পর্যাপ্ত হয়, রাতের খাবারটা পরিপাক হয়। আর রাতে খাওয়ার পর কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করবেন বা হালকা ব্যায়াম করবেন যাতে খাবারটা হজম হয়। তৈলাক্ত, হাবিজাবি খাবার খেয়ে পেট না ভরিয়ে স্বাস্থ্যকর খাবার খাবেন অবশ্যই।

আর মনে রাখবেন, খাবার আপনার শরীরকে শক্তি যোগায়। আপনি যদি একবেলা খাবার মিস দেন, পরবর্তীতে যতক্ষণ না খাবার খাচ্ছেন ততক্ষণ আপনার শরীর কোনো শক্তি পাচ্ছে না। আর রোজা থেকে সারাদিন একটা কিছুও খেতে পারবেন না আপনি, এমনকি একফোটা পানিও নয়। তাই সেহেরিতে ভরপেট খেতে না পারলে সারাদিন আপনি থাকবেন নিস্ক্রিয় এবং দুর্বল। তাই নিজেই নিজের অনীহা কাটান। প্রথম দুই-তিনদিন খেতে অলসতা লাগলেও পরে ঠিক হয়ে যায়। তাই কষ্ট হলেও আপনাকে অভ্যাসটা ঠিক রাখতেই হবে। 

বাংলা ইনসাইডার