ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

ঈদের ছুটিতে বাড়ি যাওয়ার আগে…

শাহরিনা হক
প্রকাশিত: ২৭ মে ২০১৯ সোমবার, ০৮:০০ এএম
ঈদের ছুটিতে বাড়ি যাওয়ার আগে…

ঈদ আসছে, বেশ কয়দিনের ছুটি রয়েছে হাতে। কত পরিকল্পনাই তো করে রেখেছেন। বহুদিন পরে বাড়িতে যাবেন বা প্রকৃতির কাছাকাছি ঘুরতে যাবেন পরিবার পরিজন নিয়ে। কিন্তু নিজের যত্নের বাড়িঘর ফেলে যে ঘুরতে যাবেন, সেগুলোর রক্ষণাবেক্ষণের দিকেও তো আপনাকে খেয়াল রেখে যেতে হবে। তাই নির্বিঘ্নে চিন্তামুক্ত হয়ে বাড়িতে যেতে জেনে রাখুন এই বিষয়গুলো-

যে বিষয়গুলো লক্ষ্য রাখবেন

বাসা ছেড়ে বেশ কিছুদিনের জন্য যেহেতু যাচ্ছেন, তাই কয়দিনের জন্য আপনার খালি বাসায় বাড়তি নিরাপত্তার জন্য একটি অতিরিক্ত তালাচাবির ব্যবস্থা করে নিন। পুরো বাড়ি যদি খালি করে যেতে হলে প্রতিবেশীদের বলুন যেন খেয়াল রাখে আপনার বাড়ির। আর যাওয়ার সময়ে বাড়ির দারোয়ান এবং প্রতিবেশীদের নাম্বার মনে করে সঙ্গে নিন।

বাসায় গাছপালা আর পশুপাখি থাকলে

আশেপাশে নির্ভরযোগ্য কোনো ব্যক্তি থাকলে আগে থেকে সব বুঝিয়ে দিয়ে যান। তাদের কাছেই পশুপাখির অতিরিক্ত খাবার কিনে দিয়ে রাখুন। পশুপাখির খাঁচা থাকলে সেটি আলো বাতাসপূর্ণ স্থানে রেখে বেশি পরিমাণ খাবার ও পানি দিয়ে রেখে যেতে পারেন। আর সঙ্গে নেওয়ার মতো সুযোগ থাকলে নিয়ে গেলে সবচেয়ে ভালো।

আর আপনার গাছের যত্ন নিজেই খেয়াল রাখুন। গাছগুলো আপনার বারান্দায় রেখে পুরনো পানির বোতলে পানি ভর্তি করে মুখে ছোট একট ছিদ্র করে ছিদ্রযুক্ত অংশ নিচের দিক সামান্য কিছু গাছের গোড়ায় মাটিতে পুতে দিন। একেবারে কড়া রোদে দিয়ে রাখবেন না, তাহলে গাছের ক্ষতি হবে। বৃষ্টি থেকেও নিরাপদে রাখবেন।

পথেঘাটে কি খাবেন

আর মাত্র কয়েকদিন পরেই নামতে হবে ভ্রমণযুদ্ধে। ভ্রমণে খাওয়াদাওয়া নিয়েও আপনাকে ভাবতে হবে। একেবারে খালি পেটে ভ্রমণ না করাই ভালো। আবার একেবারে ভরা পেটেও ভ্রমণ করবেন না। ভ্রমণের সময়ে তেল বা মসলাদার খাবার না খেয়ে হালকা খাবার খান। পথে খাওয়ার জন্য রাস্তার খোলা খাবার কিনে না খেয়ে সঙ্গে রাখুন পানি, ফল ও হালকা বিস্কুট বা ক্র্যাকার্স।

বৃষ্টি থেকে বাঁচতে

এই মৌসুমে কখন হুট করে ঝড়বৃষ্টি শুরু হয়, তার ঠিক নেই। যেহেতু এখন সময়টা এমন যে এই রোদ আবার এই ঝুম বৃষ্টি। তাই বৃষ্টির কথা মাথায় রেখে পোশাক নির্বাচনেও লক্ষ্য রাখতে হবে। প্রথমেই নিয়ে নিন ছাতা বা রেইন কোট। ব্যাগের ক্ষেত্রে নির্বাচন করুন রেক্সিন, প্লাস্টিক বা রাবার জাতীয় উপকরণে তৈরি ব্যাগ। কাদা-পানি থেকে রক্ষার জন্য নিতে পারেন রাবার, রেক্সিন বা স্পঞ্জের জুতা। আর বাসার জিনিসপত্রও বৃষ্টির হাত থেকে রক্ষা করে যান।

ওষুধগুলো ঠিকমতো নিয়ে নিন

ডায়াবেটিস, হৃদরোগের মতো শারীরিক সমস্যা হলে নিয়মিত কিছু ওষুধ খেতেই হবে। এছাড়া ভ্রমণে অনেকের বমি হয়, আবার ঈদের খাবার খেয়ে হতে পারে অ্যাডিটির সমস্যা। এই রোগগুলোর ওষুধ ছাড়াও কিছু স্যালাইন আর মাথাব্যথার ওষুধও সঙ্গে নিন। অ্যান্টিসেপটিক ক্রিম, ব্যথানাশক ক্রিমও নিয়ে নিন সঙ্গে।

বৈদ্যুতিক সংযোগ ঠিকমতো দেখে বের হন

খেয়াল রাখতে হবে বাসার বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতির দিকে। টেলিভিশন, ফ্রিজ, কম্পিউটার, ওভেন ও ওয়াশিং মেশিনের মতো নানা যন্ত্রপাতিগুলো ছুটিতে বাড়ি যাওয়ার আগে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে রেখে যেতে হবে। বজ্রপাতে কখন কি বিপদ হয় তা কেউই বলতে পারে না। ফাঁকা ঘরে বজ্রপাতের সময় এসব যন্ত্রের বৈদ্যুতিক সংযোগ দেওয়া থাকলে দুর্ঘটনার আশঙ্কা বেশি থাকে। ফ্রিজে বেশি খাবার জমে থাকলে সেটা এখনই শেষ করে ফেলতে থাকুন। কারণ, বাড়ি ছাড়ার আগেই ফ্রিজ খালি করে সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখতে হবে।

গ্যাসের চুলার দিকে খেয়াল রেখে বের হন

বাসা থেকে চলে যাওয়ার আগে অবশ্যই মনে করে গ্যাসের চুলা বন্ধ কিনা দেখে যান। চুলার সামনের দিকের নব ছাড়াও পেছনের দিকে থাকা চাবিও বন্ধ করে রেখে যান। রান্নাঘরে ভেন্টিলেটর না থাকলে জানালা অল্প করে খোলা রাখুন। যাতে ভেতরে বাতাস চলাচল করতে পারে। না হলে বদ্ধ ঘরে গ্যাস ছড়িয়ে আগুন ধরে যেতে পারে।

যাবতীয় বিল শোধ করে যান

ছুটিতে যাওয়ার আগে এই মাসে যত বিল জমা আছে তা শোধ করে যাওয়ার চেষ্টা করবেন। কারণ ছুটি শেষ করে ফিরতে ফিরতে আপনার অনেকটা দেরি হয়ে যাবে। তাই সাবধান থাকাই ভালো।

ধোয়া-মোছা করবেন

সম্ভব হলে বেড়াতে যাওয়ার আগে বিছানার চাদর, বালিশের কভার, ময়লা পোশাকগুলো ধুয়েমুছে শুকিয়ে গুছিয়ে রেখে যান। এতে ফিরে কাজের চাপ কম থাকবে। এসে আর এগুলো ধুতে হবে না।

গ্যাজেটগুলোতে পর্যাপ্ত চার্জ দিয়ে নিন

আপনার মোবাইল, ল্যাপটপ, পাওয়ার ব্যাংকে ভালো করে চার্জ দিয়ে নিন। এর পাশাপাশি হেডফোন, চার্জার, ব্যাগ কভার নিতে একদম ভুলে যাবেন না।

আশেপাশে জানিয়ে যান

যেখানেই যান না কেন, আশেপাশে জানিয়ে যান আপনি কোথায় যাচ্ছেন, কতদিন থাকবেন, কোনদিন কোন এলাকায় ঘুরতে যাবেন। ফোন নাম্বার দিয়ে যান এবং সবসময় যোগাযোগের ব্যবস্থা রাখুন। এতে আপনার কোনো বিপদ হলে তারা টের পাবেন এবং সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ