ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

ছুটিতে শরীর আর মনের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে...

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ আগস্ট ২০১৯ রবিবার, ০৮:৫৪ পিএম
ছুটিতে শরীর আর মনের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে...

সারাবছর কত অভাব-অভিযোগ আমাদের, একটুও সময় পাইনা, কোথাও যেতে পারিনা, মন ভরে কোনো কাজ করতে পারি না সময়ের অভাবে। এটা তো সত্যি, যান্ত্রিক জীবনে এগুলোর ফুসরত কমে গেছে। আবার ঈদ এলেই মাঝেমাঝে ভাবি কী করে ঈদের ছুটিটা কাজে লাগাবো, আবার বোরিং হয়ে যাবো না তো! এসব না ভেবে একটু সহজ হিসাব করলেই তো হয়। কারণ এবার ঈদে বেশ লম্বা ছুটি থাকছে। তাই সারাবছর যে কাজগুলো ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও করা হয় না, সেগুলো তো এই বিশাল ছুটিতে করে ফেলতেই পারেন। কিছু পরিকল্পনা রাখুন মাথায়- 

খাওয়াদাওয়া সীমিত রাখবেন

যেহেতু এটা কুরবানীর ঈদ, মানে খাওয়া আর খাওয়া। ভুলেও বেশি খাওয়ার প্রতি প্রতি বেশি মনোযোগ দিতে যাবেন না। যত পরিমিত, স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খেতে পারবেন, ততোই আপনার ভালো। মাংস বেশি খেয়ে ফেলতে যাবেন না, নিয়ম মেনে খাবেন।

আপনার ব্যায়ামটা একটু বাড়াতে পারেন

আপনার কাজের চাপে একটু যে মন দিয়ে ব্যায়াম বা শারীরিক পরিশ্রম, হাঁটাহাঁটি করবেন সেটাও হয়না। শরীরকে ভালো রাখতে ব্যায়াম বা হাঁটাহাঁটি করতে হয়, এটুকুর জন্যই ব্যায়াম করা বা ঘড়ি ধরে ২০-৩০ মিনিট হাঁটা। কম ব্যায়ামেই আপনি অভ্যস্ত হয়ে গেছেন। কিন্তু নিয়মরক্ষার ব্যায়ামের অভ্যাসটাতো আপনি বদলে ফেলতেই পারেন। ছুটি তো লম্বা। এই সুযোগে পড়ে পড়ে না ঘুমিয়ে ব্যায়ামের অভ্যাসটা বাড়িয়ে ফেলুন। দেখবেন অন্যদিনগুলোতেও ব্যায়ামের প্রতি আলাদা স্পৃহা কাজ করছে। আপনি আগের চেয়ে আরও ফিট বোধ করছেন।

যে কাজ জমে আছে বহুদিন থেকে

ক্লাস করি, অফিস করি, ঘরের সব কাজ সামলাই- এর মধ্যে কত কাজই তো জমে যায়। সেগুলো ছুটির দিনের অভাবে আরও জমতেই থাকে। সপ্তাহের একদিনের ছুটিতে সেগুলো শেষ করাও সম্ভব হয় না। এবার ঈদে ছুটি তো বেশি পেলেন। জমা কাজগুলোর দিকে মনোযোগ দিন। এই যেমন একগাদা কাপড় জমে রয়েছে, সেগুলো ধুয়ে ফেলুন। সেলফে বই, কাগজ এলোমেলো হয়ে আছে, ওগুলো সাফ করে ফেলুন। ঘরটা ঈদ আর ছুটি উপলক্ষ্যে নতুনভাবে সাজিয়ে ফেলুন। ঘরের আসবাবপত্রগুলো এদিক-ওদিক সরিয়ে নতুনত্ব আনুন। দেখবেন পরিশ্রম হচ্ছে, ছুটি বলে বোরিংও লাগছে না।

যে শখ পড়ে আছে মনের অবহেলায়

আমাদের শখের তো কোনো অভাব নেই। কিন্তু ওই সেই ব্যস্ততা, যার কারণে সব কাজ পড়ে থাকে। তেমন শখও পড়ে থাকে। আপনার নিজ হাতে করা ছোট্ট বাগানটা পড়ে থাকে, সেগুলো এই এক সপ্তাহ একটু দেখভাল করুন। সাইকেলটাও এককোণে পড়ে আছে। সেটা নিয়ে ফাঁকা রাস্তায় বেড়িয়ে আসুন। ছবি আঁকার ক্যানভাসটাও অবহেলায় ফেলে রেখেছেন। দেখুন তো রংপেন্সিল দিয়ে ছবি আঁকা শুরু করতে পারেন কিনা। গান শুনুন, বই পড়ুন, গান গাওয়া শুরু করুন। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে রান্নাবান্না করুন নতুন কোনো ধরনের। ঘুরতেও যেতে পারেন প্রিয় মানুষগুলোর সঙ্গে। দেখবেন ছুটি কত সুন্দর আর ঝলমলে কেটে গেছে।

এই সুযোগে অভ্যাস বদলে ফেললেন

আপনার বেশকিছু বদঅভ্যাস থাকতে পারে। এই ধরুন ধূমপান। বাইরে থাকলে সহকর্মী, বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে থাকলে বা মানসিক চাপে থাকলে কতশত সিগারেট যে খেয়ে ফেলতে পারতেন তার শেষ নেই। কিন্তু এখন তো অবসর। বাইরে খুব যেতে হচ্ছে না, মানসিক চাপও নেই। তাহলে এক কাজ করে ফেলুন। ঈদের মজামাস্তিতে সিগারেটের কথা ভুলে যান। আস্তে আস্তে ছেড়ে দিন ধূমপান।

অনেকের আবার বেশি ঘুমানোর অভ্যাস থাকে। এজন্য ক্লাস আর অফিস একেবারে চুলোয় যায়। এই লম্বা ছুটিতে ঘুমের একটা রুটিনের মধ্যে আসুন। নিয়মমতো একটা নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমাতে যান। দেখবেন একসপ্তাহে ঘুমের একটা ভালো অভ্যাস দাঁড়িয়ে গেছে।

একটু সামাজিক যোগাযোগ বাড়ান

আপনি কাজের কারণে আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের মধ্যে পড়ে দিন দিন যেন অসামাজিক হয়ে যাচ্ছেন। বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়স্বজন, প্রতিবেশিদের সঙ্গে আগের মতো দেখা বা কথা কোনোটাই হয়না। ফোন বা মেসেঞ্জারেই প্রয়োজনীয় যোগাযোগটা সেরে নেন। যোগাযোগ না হওয়ার অন্যতম কারণ সময়ের অভাব। এই যে ঈদে ছুটি পেলেন, দেখা করুন কাছের প্রিয় লোকগুলোর সঙ্গে। তাদের বাড়িতে যান, বাইরে কোথাও দেখা করুন, নিজের বাড়িতে নিমন্ত্রণ করুন। সুন্দর একটা সময় কাটিয়ে ফেলুন। পার্টি, পিকনিক, গেট টুগেদারের ব্যবস্থাও করে ফেলুন। ঈদের আমেজটা মনের মধ্যে নিয়ে আসুন।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ