ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ঘরেই বানান ওভেন ছাড়া বড়দিনের কেক

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার, ০৪:০১ পিএম
ঘরেই বানান ওভেন ছাড়া বড়দিনের কেক

দিনটা পেরোলেই বড়দিন। আপনার নিশ্চয়ই সব আয়োজন এরই মধ্যে শেষ। বড়দিনে কেক হবে না, সেটা অসম্ভব। ওদিকে বাড়িতে হয়ত ওভেন নেই বা নষ্ট হয়ে রয়েছে, বাইরে থেকে অনেকগুলো কেক আনা খরচের ব্যাপার, অথবা আপনার ইচ্ছে করছে নিজের হাতে কেক বানিয়ে প্রিয় মানুষগুলোকে আপ্যায়ন করতে। ঘরে কেক বানানোর জন্য কিছু টিপস আর ওভেন ছাড়াই ভ্যানিলা কেক বানানোর রেসিপি থাকছে বড়দিনকে সামনে রেখে-

ময়দার পরিমাণ ঠিক রাখুন। কৌটা থেকে বের করে সরাসরি মেজারিং কাপে ময়দা রাখুন। যেটা বাড়তি থাকবে ছুড়ি দিয়ে ছেঁচে ফেলে দিন। উপকরণগুলোর একটু হেরফের হলেই স্বাদ পাল্টে যাবে।

হাতে যদি খুব বেশি সময় না থাকে, তাহলে ফ্রিজ থেকে ঠাণ্ডা ডিম বের করে দেবেন না। তাতে কেক হতে সময় লাগবে। তার চেয়ে বরং ডিম ছাড়াই কেক করুন। কেক বেকিংয়ের পাত্রে মাখন লাগাতে ব্যবহার করুন পার্টি ব্রাশ।

কেকে মাখন বা ডিম যা-ই ব্যবহার করুন তা রুম টেম্পারেচারে আনার পরই মেশাবেন। তাহলে বাকি মিশ্রণের সঙ্গে এটা তাড়াতাড়ি মিশে যাবে এবং ভালোভাবেই। সরাসরি কেকের ব্যাটারের (মিশ্রণের) উপর ডিম ফেটাবেন না। অন্য একটা কাপে ফেটিয়ে তারপর মিশ্রণের সঙ্গে মেশান।

কেক পুরোপুরি হয়েছে কি না তা বোঝার জন্য ওভেনে কেকে একটা কাঠি ঢুকিয়ে দেখুন। কাঠিটা যদি ঠিকমতো ঢুকে যায় আর তারপর পরিষ্কারভাবে বেরিয়ে যায়, তাহলে বুঝতে হবে কেক রেডি। আর কাঠিতে যদি কোনও উপকরণ লেগে থাকে, তাহলে বুঝতে হবে ভিতরটা কাঁচা রয়েছে।

আর কেক তৈরির আগে ওভেনের টেম্পারেচার ঠিকমতো অ্যাডজাস্ট করে নিন। বেকিং শেষ হওয়ার পরও ওভেনে স্ট্যান্ডিং টাইম দিয়ে কেক খানিকক্ষণ বসিয়ে রাখুন। ঠাণ্ডা হলে বের করলে নরম ব্যাপরাটা থাকবে।

শীতের দিন কেক বাইরেই রাখতে পারেন, তবে কোনো এয়ারটাইট কন্টেনারে। একটু ফাঁকা করে। কেক আরও সুস্বাদু করতে চিনি, ময়দা, মাখন দিয়ে যখন ব্যাটারটা করবেন তাতে খানিকটা পাতিলেবু বা কমলালেবুর রস ফেলে দিতে পারেন।

ময়দা বা অন্যান্য সামগ্রী মেশানোর সময় যাতে ডেলা না পাকিয়ে যায়, তাই হ্যান্ড ব্যাটার মিক্স যন্ত্রও কিনে নিতে পারেন। কেক পরিবেশনের ক্ষেত্রে অনেক সময়ই প্লেটে আটকে যায় তোলার সময়। এর হাত থেকে বাঁচতে চিনি পাউডার প্লেটে ছড়িয়ে তার উপর কেকটা রাখুন। কাটার সময় আর আটকাবে না।

কেক ভালোভাবে হয়েছে কিনা বুঝতে চুলায় দেওয়ার ২০ মিনিট পর টুথপিক কেক এর মিশ্রণে ঢুকিয়ে যদি দেখেন টুথপিক এর গায়ে কিছু লাগেনি তাহলে বুঝবেন কেক তৈরি হয়ে গিয়েছে।

বাজারে হেভিক্রিম বা হুইপ ক্রিম কিনতে পাওয়া যায়। এই ক্রিম ঠান্ডা অবস্থায় সামান্য সফট বাটার সহ ইলেক্ট্রিক বিটারে বিট করে নিয়েও ক্রিম রেডি করে নিতে পারেন কেকের জন্য।

চলুন ওভেন ছাড়া ভ্যানিলা কেক বানানোর একটা রেসিপি দেখে নেই-

ডিম ২ টি, ময়দা ৪ টেবিল চামচ বা ১ কাপ, তেল ২ টেবিল চামচ, বেকিং পাওডার ১/২ চা চামচ, ভেনিলা ১/২ চা চামচ এবং লেবুর রস ১ চা চামচ, গুড়ো দুধ ২ টেবিল চামচ, চিনি ৪ টেবিল চামচ বা ১ কাপ, মোরব্বা বা কিসমিস ।

কীভাবে বানাবেন

প্রথমে শুকনো আইটেমগুলো ময়দা, বেকিং পাউডার ও দুধ একত্রে চালুনি দিয়ে ছেঁকে নিতে হবে। এরপর তেলের মধ্যে চিনি দিয়ে ভালোভাবে মেশাতে হবে। চিনি অবশ্যই আগে তেলে মিশিয়ে নিতে হবে ময়দার মিশ্রণ বা ডিমের সঙ্গে মেশালে কেক হবে না। তেল এবং চিনি মেশানো হয়ে গেলে এখন ২টা ডিম ফেটে এতে মেশাতে হবে।

এরপর অল্প করে ময়দার মিশ্রণ ভালোভাবে মেশাতে হবে। মেশানো হয়ে গেলে ভ্যানিলা এবং এক চামচ লেবুর রস দিয়ে ভালোভাবে মেশান। কেকের পাত্রে তেল ব্রাশ করে নিন। এখন মিশ্রণটির ৩/২ ভাগ কেকের পাত্রে ঢালুন। কিসমিস বা মোরব্বা শুকনো ময়দার সঙ্গে মিশিয়ে কেকের মিশ্রণের উপর ছিটিয়ে দিন এবং বাকি মিশ্রনটুকু উপরে ঢেলে দিন।

এবার একটি বড় হাঁড়িতে হাঁড়ি রাখার স্টেন রেখে মৃদু আঁচে গরম করে নিতে হবে। কেকের পাত্রটি স্টেনের উপর রাখতে হবে। হাঁড়িতে ঢাকনা দিয়ে মৃদু আঁচে ৩৫ মিনিটের মতো চুলায় রাখতে হবে। কেক হয়েছে কিনা তা টুথপিক দিয়ে পরীক্ষা করে দেখতে পারেন। কেক হয়ে গেলে গরম গরম পাত্র থেকে ঢেলে ফেলুন এবং পছন্দমতো মাপে কেটে পরিবেশন করুন।

 

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ