ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নতুন বছরে হোক নতুন প্রতিজ্ঞা

শাহরিনা হক
প্রকাশিত: ০১ জানুয়ারি ২০২০ বুধবার, ০৮:০০ এএম
নতুন বছরে হোক নতুন প্রতিজ্ঞা

নতুন সূর্যোদয় দেখে ঘুম ভেঙেছে আজ। নতুন বছর এসে গেছে। গেলো বছরে কি হয়েছে না হয়েছে, কি গেছে না গেছে- তা নিয়ে খুব বেশি চিন্তাভাবনা করার চেয়ে বোধহয় এই বছরটাকে গেলো বছরটাকে যাতে আরও সুন্দর করে তোলা যায়, সেটা ভাবাই তো বুদ্ধিমানের কাজ! তবে শুধু ভাবলেই তো হবে, ভাবনা অনুযায়ী কাজও তো করতে হবে আপনাকে। তাই নতুন বছরের শুরুর দিনেই আপনাকে কিছু প্রতিজ্ঞা করতে হবে যা আপনাকে এগিয়ে নিয়ে যাবে আগামী প্রতিটি বছরে। থার্টিফার্স্ট নাইটে, বা বছরের প্রথমদিনে হৈ-হুল্লোড় বা মজামাস্তির পাশাপাশি প্রতিজ্ঞাও করে নিন কিছু। কেমন হতে পারে নতুন বছরের প্রতিজ্ঞাগুলো, জেনে নিন-

সদয় হোন

নতুন বছরে নিজের এবং অন্যের প্রতি সদয় হওয়া উচিত। নিজের ভুলক্রটিতে গভীর শ্বাস নিয়ে নিজেকে শান্ত করার চেষ্টা করুন। এভাবে এক সপ্তাহ নিজেকে প্রস্তুত করে পরবর্তীতে অন্যের প্রতিও সদয় থাকার চেষ্টা করুন। আপনি কারো প্রতি সদয় হলে অন্যেও আপনার প্রতি সদয় হবে। তবে কিছুর বিনিময়ে কিছু প্রত্যাশা করবেন না।

সুস্থ থাকবেন, এই চিন্তা রাখুন

সুখী এবং সমৃদ্ধ জীবনযাপনের প্রথম শর্ত সুস্থ থাকা। শারীরিক আর মানসিক সুস্থতাই সফলতার প্রথম ধাপ। জীবনে সফল হতে চাইলে আপনাকে সুস্থ থাকতেই হবে। আর সুস্থ থাকার জন্য বছরের শুরুতেই পরিকল্পনা করে নিন। এর জন্য খাদ্যাভ্যাসের পাশাপাশি আপনাকে শারীরিক পরিচর্যার দিকে বিশেষ নজর দিন।

ক্যারিয়ার নিয়ে পরিকল্পনা করুন

বছরের শুরুতেই ক্যারিয়ার নিয়ে নতুন কিছু পরিকল্পনা নিয়ে ফেলুন। এজন্য প্রথমে আপনাকে লক্ষ্যটা ঠিক করে নিন। কী ধরনের কাজ করতে চান, কোনটা আপনার জন্য ভালো হবে- এগুলো নিয়ে অন্যদের সঙ্গে আলোচনা করুন। অবশ্যই পরিকল্পনা এবং আত্মবিশ্বাস নিয়ে এগোবেন। এতে অবশ্যই আপনি সফল হতে পারবেন।

আর্থিক পরিকল্পনা করে নিন

যেকোনো কাজ শুরুর আগে আর্থিক পরিকল্পনা খুবই জরুরি। তাই বছরের শুরুতেই আর্থিক পরিকল্পনা সেরে ফেলুন। এক্ষেত্রে কাজের ধরনের সঙ্গে মিলিয়ে পরিকল্পনা করা আপনার জন্য ভালো। তবে আয় বৃদ্ধির সঙ্গে সঞ্চয় বাড়ানোর চেষ্টা করুন। আপনার বর্তমান আর্থিক পরিস্থিতি বিশ্নেষণ করুন। আয়, ব্যয়, ব্যয়ের বিভিন্ন খাত আলাদা করে ভাগ করে নিন।

আপনার যোগাযোগ পরিকল্পনা সমৃদ্ধ করে নিন

ভালো থাকা সবসময়ের জন্য জরুরি। এজন্য সবার সঙ্গে ঠিকমতো যোগাযোগ বজায় রাখা জরুরি। আর এক্ষেত্রে প্রযুক্তির ব্যবহার যোগাযোগকে অনেক সহজ করে তুলেছে। প্রযুক্তির মাধ্যমে নিজের যোগাযোগের দক্ষতা বাড়ান। পেশা বিষয়ক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও পত্রিকার পাতায় নিয়মিত চোখ রাখুন। ফেসবুক, লিংকড ইনসহ বিভিন্ন গ্রুপের সঙ্গে যুক্ত হন। শুরু থেকেই যোগাযোগের সবখানে সরব থাকার চেষ্টা করুন। নিয়মিত মেইল চেক, জবসাইটগুলোতে চোখ রাখুন। মোটামুটি আপনার একটি শক্ত নেটওয়ার্ক রাখুন।

লক্ষ্য অর্জনের পরিকল্পনা

নতুন বছরে নিজে কী কী অর্জন করতে চান, আপনার কিসে কিসে আগ্রহ সেটা কোথাও টুকে ফেলুন। আর সেই অনুযায়ী কাজের প্রস্তুতি নিন, সফলতা না আসা অবধি চেষ্টা করে যান। লক্ষ্য অর্জনের পরিকল্পনা আপনার অবস্থান সম্পর্কে ধারণা দেবে। সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করার ক্ষেত্রে পরিকল্পনা ছাড়া আমার কোনো বিকল্প নেই। দৃঢ় কিছু পরিকল্পনা নিশ্চয়ই আপনাকে সারাবছর ভালো রাখবে।

পরিবারকে সময় দেওয়ার চিন্তা রাখুন

কাছের মানুষ এবং পরিবারকে সময় দেওয়ার জন্য নতুন বছরের শুরুতে পরিকল্পনা করে নিন। বছরের কোন সময়ে কী কাজ করবেন তার একটি তালিকা করুন। বিশেষ দিনে বা সময়ে যাতে পরিবারকে সময় দিতে পারেন সে অনুযায়ী পরিকল্পনা করুন। দেখবেন খুব সহজেই সবার মন রক্ষা করতে পারছেন। কারণ আমরা আজকাল অনেকেই পরিবার থেকে মানসিকভাবে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছি।

সামাজিক পরিকল্পনা করুন

আমরা সমাজে বেড়ে উঠেছি, আর তাই সমাজের কাছে আমাদের কিছু দায়বদ্ধতা রয়েছে। তাই সামাজিক কাজকে এড়িয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ আমাদের নেই। তাই বছরের শুরুতে কিছু পরিকল্পনা করে নিন। সমাজের উন্নয়নে, মানুষের জন্য কাজ করার চিন্তা করুন, মানসিক শান্তি পাবেন। এছাড়াও ইতিবাচক চিন্তা করুন এবং সৃষ্টিশীল কাজে এগিয়ে আসুন।

কৃতজ্ঞতা স্বীকার করা

কৃতজ্ঞতা স্বীকার করাকে এই নতুন বছরে আমাদের সবাইকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নেওয়া উচিত। সবকিছুর জন্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার করা উচিত। যেমন প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে ঈশ্বরের প্রতি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করা উচিত। সেই একইভাবে যা কিছু ভালো ঘটে এবং যার মাধ্যমে ঘটে তার জন্য কৃতজ্ঞ থাকা এবং তা প্রকাশ করা জরুরি।

 

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ