ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ফাল্গুন আর ভালোবাসার দিনের সাজ

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ বুধবার, ০৪:৪৩ পিএম
ফাল্গুন আর ভালোবাসার দিনের সাজ

বাঙালি তাদের বসন্তকে বরণ করে নিতে পুরোপুরি প্রস্তুত। যদিও বসন্ত এবার একদিন পেছানো। তবে বসন্ত এবার একা আসেনি। তার সঙ্গে এবার যোগ হয়েছে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। দুই মহা উৎসবকে ঘিরে তো বাঙালির এবার আনন্দ আর আয়োজনের শেষ নেই। হাতে আর মাত্র একটা দিন। এই একদিনেই আপনার জন্য থাকছে ফাল্গুন আর ভালোবাসা দিবসের সাজগোজের মোটামুটি কিছু ধারণা।

একটা সময় বসন্তের প্রথম দিনে মেয়েদের পরনেই শুধু দেখা যেত হলুদ বা বাসন্তী পোশাক। তাঁত বা টাঙ্গাইল শাড়ি পরার চলই ছিল বেশি। বৈচিত্র্যের জন্য বাসন্তী শাড়িতে দেখা যায় উজ্জ্বল সব রঙের ব্যবহারও। এদিকে আবার কয়েক বছর ধরে তো শুধু মেয়েরাই নয়, ছেলেদের জন্যও মিলছে বসন্ত আর ভালোবাসার দিনের বিশেষ পোশাক।

এবার এই বিশেষ দিনেও থাকছে মোটামুটি শীতের আমেজ। সাজগোজ নিয়ে তাই তেমন কোনো চিন্তা নেই। আর ছুটির দিন হওয়াতে সারাদিনের মতো ঘোরা বা পার্টির প্লান থাকলে লম্বা সময়ের জন্য মেকআপ, সাজ করে নিন।

নিজের সাজটিও হতে হবে আকর্ষণীয়। আপনার সাজের আগে অবশ্যই তৈলাক্ত ত্বকটি ভালো করে ফেসওয়াশ করে সানস্ক্রিন বুলিয়ে নিন। মেকআপে বেইজ তৈরি করা সবচেয়ে জরুরি। গায়ের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে অয়েল বা ওয়াটার বেইজড ফাউন্ডেশন লাগান।

মুখে, গলায় ও ঘাড়ে সমানভাবে ব্লেন্ড করুন। এরপর কমপ্যাক্ট পাউডারের প্রলেপ দিন। বসন্তের সময় হালকা আইশ্যাডো মানানসই। চোখের নিচের পাতায় কাজলের হালকা রেখা আর উপরের পাতায় আইলাইনার টানতে পারেন। কমপক্ষে দুবার মাশকারা লাগান। দিনের সাজে হালকা করে ব্লাশন নিয়ে নিন, হাসলে গালের যে অংশ ফুলে ওঠে সেখানেও ব্লাশন ব্যবহার করুন। এরপর লিপস্টিক দিন। ফাগুনের সাজে ঠোঁট একটু কালারফুল হলেই ভালো দেখাবে।

ফাল্গুনের মতো উত্সবে চুলের স্টাইল পোশাকের মতোই গুরুত্বপূর্ণ। এ সময়টা ইচ্ছামতো ফুল দিয়ে চুল সাজানোর সময়। বসন্তের প্রথম দিনে গাঁদা ফুলের কদর তো থাকেই, তবে আজকাল স্টাইলে নতুনত্ব আনতে অন্যান্য ফুলের দিকেও হাত বাড়াচ্ছেন মেয়েরা। কসমস, গোলাপ, কাঁঠালচাঁপা থেকে শুরু করে নানা রঙের অর্কিড ফুলও শোভা পাচ্ছে নারীদের চুলে। রঙের বেলায় যেমন পোশাকে দেখা যাচ্ছে ভিন্নতা, তেমনি নজর কাড়ছে বৈচিত্র্যময় ফুলের ব্যবহার। তাজা ফুলের সঙ্গে নজর কাড়বে প্লাস্টিক, কাপড় বা কাগজের ফুলও।

হেয়ারস্টাইলের ক্ষেত্রে শাড়ির সঙ্গে খোঁপাকেই সবচেয়ে বেশি মানায়, সাধারণ হাতখোঁপা করে পছন্দের ফুল দিয়ে সাজিয়ে নিন চুল। আজকাল একপাশে ঢিলেঢালা বেণিও খুব মানায়, বেণিতে ছোট ছোট ফুল গুঁজে নিতে পারেন। সালোয়ার-কামিজ, কুর্তি কিংবা জিন্স-টপসের সঙ্গে সাধারণত চুল খোলাই ভালো লাগবে।

আর ফুল পরতে ইচ্ছা হলে একপাশে বেশির ভাগ চুল সরিয়ে কানে ফুল গুঁজে নিন। মাথার সামনের অংশের চুল নিয়ে দুই পাশে দুটি বেণি করে নিন, নিচের অংশে বেশির ভাগ চুল খোলা থাকুক। এবার বেণি দুটি পেছনে নিয়ে বাঁধুন, বেণিতে গুঁজে নিন হরেক রকমের ফুল। এই স্টাইলটি সালোয়ার-কামিজ ও কুর্তির সঙ্গে দারুণ মানায়। অনেকে আজকাল ফুলের মালা বানিয়েও মাথায় মুকুটের মতো পরেন। পাঞ্চ ক্লিপ দিয়ে চুল পেঁচিয়ে একটু ঢিলেঢালাভাবে আটকে নিন, কিছুটা চুল এলোমেলো করে ঘাড়ে আর কানের পাশে ফেলে রাখুন, হয়ে গেল মেসি বান। এবার পছন্দমতো ফুল গুঁজে নিন চুলে।

যেহেতু ফাল্গুনের উত্সবে পোশাক আর ফুলের দিকেই প্রাধান্য থাকে বেশি, তাই গয়না একটু কমই পরা হয়। ফুল দিয়ে চুল সাজালে নজর রাখুন সেদিকেই, তবে গলা, কান খালি না রেখে পরে নিন ছোট কোনো কানের দুল কিংবা চিকন চেইন। মনে রাখবেন, চুলে ফুল দিয়ে সাজতে চাইলে অতিরিক্ত গয়না না পরাই ভালো। হাতে রঙিন কাচের চুড়ি ছাড়াও থাকতে পারে ছোট আংটি, আর পায়ে পরে নিন নূপুর।

সঙ্গে টিপ লাগাতে ভুলবেন না, কারণ বাসন্তী সাজে টিপ দারুণ মানায়।