ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৩ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

গ্যাস লাইন বিস্ফোরণ রোধে করণীয়

লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ মঙ্গলবার, ০৩:৪৩ পিএম
গ্যাস লাইন বিস্ফোরণ রোধে করণীয়

গণমাধ্যমে প্রায়ই চোখ পড়ছে গ্যাস লাইন বা গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনা। শহর বা মফস্বল সবখানেই ঘটছে এই ঘটনা। এতে প্রাণহানী ঘটছে, ক্ষয়ক্ষতিও নেহায়েত কম হচ্ছে না। বিস্ফোরণ আর ধ্বংসস্তুপের দৃশ্য দেখে আমরা শিউরে উঠছি ঠিকই, কিন্তু বুঝতে পারছি না যে এগুলো আমাদের অসতর্কতার ফলেই বার বার হচ্ছে। আমরা এই গ্যাস লাইন এবং গ্যাস সিলিন্ডারের সাবধানতা বিষয়ে যথেষ্ট উদাসীন। তবে সতর্ক হওয়া উচিৎ সবাইকেই। আসুন জেনে নিই হঠাৎ গ্যাস সিলিন্ডার ও গ্যাসলাইন বিস্ফোরণ রোধে আপনার করণীয় কি-

১. রান্নার কাজ শেষ হলে চুলা বন্ধ রাখতে হবে। এতে একদিকে গ্যাসের অপচয় রোধ হবে, অন্যদিকে বিস্ফোরণের ঝুঁকি কমবে।

২. গ্যাসের চুলা জ্বালানোর পর দিয়াশলাই কখনই সিলিন্ডারের ওপরেই রাখবেন না। দিয়াশলাই দূরে সরিয়ে রাখুন।

৩. গ্যাসের পাইপলাইন পরিষ্কার করতে সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার বিপদজ্জনক। তাই পাইপ পরিষ্কার করতে কখনও এসব জিনিস ব্যবহার করা যাবে না। পাইপ যদি অতিরিক্ত ময়লা হয়ে থাকে, তবে পরিষ্কার করতে শুকনো কাপড় বা হালকা ভেজা কাপড় ব্যবহার করতে পারেন।

৪. পাইপলাইনে কোনো লিক বা ফুটো থাকলে অবশ্যই তা বদলে ফেলতে হবে। এছাড়া পাইপের গায়ে কোনো কাপড় বা প্লাস্টিক দিয়ে মুড়িয়ে রাখবেন না। এতে বিস্ফোরণের শঙ্কা বাড়ে।

৫. গ্যাসের রেগুলেটরের নল ভালো করে পাইপ দিয়ে ঢেকে রাখুন। গ্যাস বন্ধ করে ঘর থেকে বের হওয়ার সময় দেখে নিন গ্যাসের পাইপ গরম বার্নারের গায়ে লেগে আছে কিনা। যদি থাকে সরিয়ে দিন।

৬. ঘরে ঢুকেই যদি গ্যাসের গন্ধ পান, তবে ফ্যান বা সুইচ বোর্ড বা বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম চালু করবেন না। এতে গ্যাস মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পুরো ঘরে আগুন ধরে যাবে। গ্যাস বেরিয়ে যাচ্ছে এমন মনে হলে দ্রুত ব্যবস্থা নিন।

৭. বিস্ফোরণ থেকে নিরাপদ থাকতে সেফটি ক্যাপ ব্যবহার জরুরি। রান্না শেষে সিলিন্ডারের মুখ ঢেকে রাখুন সেফটি ক্যাপে।

৮. আর সবসময় মনে রাখবেন যে রান্নাঘর আপনাকে অবশ্যই খোলামেলা রাখতে হবে। আর রান্নাঘরে সকালে ঢু্কেই প্রথমে গ্যাসের চুলা জ্বালাবেন না। জানালা দরজা খুলে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন, তারপর চুলা জ্বালান।

 

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ