ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangla Insider

করোনাকালে অভ্যাস করুন বই পড়ার

মোস্তাকিম ভুঞা
প্রকাশিত: ০২ জুন ২০২০ মঙ্গলবার, ১০:০০ এএম
করোনাকালে অভ্যাস করুন বই পড়ার

চলছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। মরণব্যাধী এই ভাইরাসের কারণে জীবন জীবিকা থেকে শুরু করে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা সকল কিছুই আজ ব্যাহত। সবকিছুতেই একটা ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক রয়েছে। তেমনি রয়েছে করোনার ক্ষেত্রেও। এই করোনার আগেই আপনার হাতে অবসর সময় ছিল না বললেই চলে। নাগরিক ব্যস্ততায় প্রিয়জনের খোঁজ নিতে পারতেন না, প্রিয় সিনেমাটা দেখার সুযোগ হচ্ছিল না। পড়তে পারছিলেন না প্রিয় লেখকের প্রিয় বইগুলো।

কিন্তু করোনার এই সংক্রমণ আপনাকে অফুরন্ত সময় উপহার দিয়েছে। এখন আপনি খুব সহজেই নিজেকে নিয়ে ভাবতে পারছেন। এই ভাবনার ফাঁকে করোনার এই সময়ে একটা ভালো কাজ করে ফেলুন। বই পড়াকে অভ্যাস হিসেবে গড়ে তুলুন। বাংলাদেশে এই সময়ে লাখ লাখ শিক্ষার্থী অনিশ্চয়তার মধ্যে জীবন পাড় করছে। সদ্য এসএসসি শেষ করা শিক্ষার্থীদের হাতে কোন কাজ নেই, এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা জানে না কবে তাদের পরীক্ষা শুরু হবে। চাকরির পরীক্ষার জন্য অপেক্ষা করছে লাখ লাখ শিক্ষিত তরুণ, কারো হাতেই কোন কাজ নেই। তাই এই সময়ে সবচেয়ে ভালো কাজ হতে পারে বই পড়ার অভ্যাস করা।

ফিকশন কিংবা ননফিকশন, নিজের পছন্দ মতো পড়া শুরু করতে পারেন। বাংলা, ইংরেজি কিংবা ভিনদেশি সাহিত্য, যা ভালো লাগে তা দিয়েই শুরু করতে পারেন। কাগজে কিংবা পিডিএফ সহজলভ্যতার বিচারে যেটা টিকে থাকবে তা দিয়েই শুরু করতে পারেন। তবে পিডিএফ এর চেয়ে মলাটবাঁধা বই সবসময়ই ভালো। আবার বয়সের বিচারেও শুরু করতে পারেন। কিশোর হলে শুরু করতে পারেন সুকুমার রায়ের ছড়া, তাঁর ছেলে সত্যজিৎ রায়ের রহস্য উপন্যাস ফেলুদা দিয়ে। এরপর রবীন্দ্রনাথের কিশোরদের ছোটগল্প, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়সহ আরও অসংখ্য লেখক বাংলা সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করেছে কিশোরদের জন্য লেখা লিখে। আর ইংরেজি সাহিত্যের পরিধি তো আরও বিস্তৃত ও সমৃদ্ধ।

তাই যেহেতু করোনা দীর্ঘকাল ধরে থাকছে, তাই আজ এখন থেকেই শুরু করুন বই পড়ার অভ্যাস। নিজে ভালো বই পড়ুন, অন্যকে উৎসাহিত করুন, পড়তে বলুন। করোনা শেষে বেঁচে থাকলে, জীবনে যেন অন্তত ভালো একটা অভ্যাস গড়ে উঠে। এই সময়ে বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুললে আপনার সময়টা যেমন ভালো কাটবে। তেমনি মানসিকভাবেও ভালো থাকতে পারবেন। এতে করে আপনি মানসিকভাবে উৎফুল্ল থাকবেন।