ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৩ আগস্ট ২০২১, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

চুলের যত্নে ঘি 

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ জুন ২০২১ শনিবার, ০৮:০৪ এএম
চুলের যত্নে ঘি 

ঘি এমন এক খাদ্য উপাদান যা শুধু শরীরের জন্যই উপকারী নয়, চুলের যত্নেও এর উপকারের শেষ নেই। খুশকি, চুল পড়া, চুল পাকার মত অনেক সমস্যার সমাধান এই ঘি। তবে সরাসরি চুলে ঘি লাগালে পরিষ্কার করতে খুব কষ্ট হবে। তাই সব সময় চুলে ঘি ব্যবহারের সময় এর সঙ্গে অন্য একটি উপাদান মিশিয়ে নেবেন। যাতে সহজে চুল থেকে ঘি পরিষ্কার করা সম্ভব হয়।

চুলে কোন উপায়ে ঘি ব্যবহার করবেন এবং ঘি ব্যবহারে চুলের কী কী উপকার হয় সে সম্বন্ধে জানিয়েছে লাইফস্টাইল বিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাই। চলুন দেখে নেওয়া যাক-

চুল পড়া রোধে

প্রথমে একটি প্যানে চার থেকে পাঁচ চামচ ঘি গরম করুন। হালকা গরম হলে এর সঙ্গে পাঁচ গ্রাম কাজুবাদামের গুঁড়ো ও তিন টেবিল চামচ কাজুবাদামের তেল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এই মিশ্রণ চুলে লাগিয়ে ৩০ মিনিট পর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে চুলের গোড়া মজবুত হবে এবং চুল পড়া রোধ হবে।

প্রাকৃতিক কন্ডিশনার

ঘি চুলে শাইনি ভাব আনতে সাহায্য করে এবং চুলকে নরম করে। একটি বাটিতে দুই টেবিল চামচ ঘি ও এক টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে চুলে লাগান। এবার ২০ মিনিট পর চুল ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক চুলে কন্ডিশনারের কাজ করবে।

চুলের আগা ফাটার সমস্যা দূর করে

তিন টেবিল চামচ ঘি নিয়ে চুলের আগায় ভালো করে লাগান। এবার ১৫ মিনিট পর চুল আঁচড়ে নিন। সবশেষে চুলে মাইল্ড শ্যাম্পু লাগিয়ে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে চুলের আগা ফাটার সমস্যা দূর হবে।

চুল ঝলমলে করে

চুরে সরাসরি ঘি লাগিয়ে ২০ মিনিট পর লেবুর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। লেবুর রস চুলে আলাদা একটা চকচকে ভাব আনতে সাহায্য করে।

নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে

মাসে অন্তত দুবার চুলে ঘি লাগান। এরপর আমলকীর রস অথবা পেঁয়াজের রস দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন, ধীরে ধীরে আপনার মাতায় নতুন চুল গজাবে।

খুশকি দূর করে

কাজুবাদামের তেলের সঙ্গে ঘি মিশিয়ে মাথার তালুতে ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট পর গোলাপজল দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এভাবে নিয়মিত ব্যবহারে চুলের খুশকি দূর হবে।

মাথার তালুর সংক্রমণ দূর করে

মাথার তালুতে ব্যাকটেরিয়া সংক্রান্ত নানা ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। ত্বকের এসব সমস্যা অনেক সময় সংক্রামক হয়। সপ্তাহে অন্তত দুদিন মাথার তালুতে ঘি ব্যবহার করলে সংক্রমণে ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস হবে।