ঢাকা, সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

লকডাউনে স্ত্রীর সঙ্গে ভাগ করে নিন বাড়ির কাজ

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩ জুলাই ২০২১ শনিবার, ০৮:০০ এএম
লকডাউনে স্ত্রীর সঙ্গে ভাগ করে নিন বাড়ির কাজ

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সারাদেশে কঠোর লকডাউন চলছে। এসময় প্রায় সবাই ঘরবন্দি হয়ে পড়েছেন। যেহেতু পুরুষেরা ঘরের বাইরের কাজে বেশি ব্যস্ত থাকে সবসময় তাই এই লকডাউনের সময় ঘরবন্দি হয়ে অনেকেই বিষন্নতায় ভুগতে পারেন। তাছাড়া ঘরবন্দি থাকতে ভালো লাগার কথাও না। তবে পুরিস্থিতি যেহেতু অনুকূলে নেই সুতরাং না চাইলেও থাকতে হচ্ছে। তবে এই বন্দি দশাকে ভিন্নভাবেও দেখতে পারেন, ব্যবহার করতে পারে অন্য উপায়ে। 

একটি সংসারে অনেক কাজ থাকে। শুধু স্ত্রী ঘরের কাজ করবেন, সন্তানদের সামলাবেন আর স্বামী উপার্জন করে যাবেন, আধুনিক নাগরিক জীবনে এই ধারণা পুরনো হয়ে গেছে। এখন নারী-পুরুষ সমানভাবে কর্মক্ষেত্রে কাজ করে যাচ্ছেন। তাই ঘরবাড়ির কাজও হাসিমুখে স্ত্রীর সাথে ভাগ করে নিতে পারেন লকডাউনের এই সময়গুলোতে।

এখন ছেলেদের কাজ বা মেয়েদের কাজ বলে আলাদা কিছুই হয় না। রান্না করা, ঘর মোছা, বাসন পরিষ্কার, বাচ্চাদের খাওয়ানো, এই সব কাজ কিন্তু ছেলেরাও করতে পারেন। তাই দুজনেই একে অপরকে সাহায্য করুন। কারোর একার ঘাড়ে সবটা চাপিয়ে দেবেন না। অযথা ঝগড়া করে অশান্তি সৃষ্টি না করে দায়িত্ব নিয়ে দু`জন মিলেই সামলান। এতে করে পরিবারকে সঠিক সময় দেওয়ার পাশাপাশি আপনার স্ত্রীও আপয়ানার উপর খুশি হবে। 

কিভাবে কাজ ভাগ করে নেবেন চলুন জেনে নেওয়া যাক-

কে কোন কাজ করবেন তা আগেই ঠিক করে নেবেন। যে যা কাজ করতে পছন্দ করেন সেটা আগে কথা বলে নিন। একই কাজের পিছনে দুইজন সময় নষ্ট করবেন না। একজন জামাকাপড় কাচলে অন্যজন থালা-বাসন মাজার দায়িত্ব নিন। তবে রান্নাটা দুইজনে একসঙ্গে মিলেই করতে পারেন।

যদি ঘরে বসে অনলাইন অফিস করতে হয় তবে নিজেদের কাজ সামলে দুজন দুজনের মতো করে সময় বের করে নিন। যেমন যার সকালের দিকে অফিস তিনি বিকালে আর রাতের দিকে বাড়ির কাজগুলো করে নেবেন। যার দুপুরে অফিস তিনি সকালের বাজার বা অন্যান্য টুকিটাকি কাজের দায়িত্ব নিন। আর দুপুরের খাওয়াটা একসঙ্গে খাওয়ার চেষ্টা করুন।

যে কাজ জানেন না সেটা শিখে নিন। সবাই যে সব কাজ জানেন এমন নয়। এতে লজ্জা পাওয়া বা অকারণে রাগারাগি করার কিছু নেই। বরং নিজের মতো করে কাজগুলো শিখে নিন। হয়তো কোনো কাজে স্ত্রী বা স্বামী পারদর্শী, সে কাজটা তার থেকে শিখে নিন। নতুন কোনো কাজ শিখলে দেখবেন নিজেরও ভালো লাগবে।

প্রতিদিন খাবারে আলাদা আলাদা মেন্যু তৈরী করতে পারেন। এতে করে রান্নার কাজের একঘেয়েমি কাটবে। নতুন কিছু করার আনন্দে পরিবারের সকলে আনন্দিত হবে। লকডাউনের সময়ে পরিবারের কাছাকাছি থাকার সময়টুকু ভালোভাবে কাজে লাগান।

বিষয়: লকডাউন