ইনসাইড বাংলাদেশ

মৈত্রী পাইপলাইন দুদেশের সম্পর্কের নতুন মাইলফলক: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ: ০৭:০৩ পিএম, ১৮ মার্চ, ২০২৩


Thumbnail

ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রেখেই দুই দেশের উন্নয়নে কাজ করতে চায় সরকার। আর বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী পাইপলাইন দুই দেশের সহযোগিতা উন্নয়নের মাইলফলক বলে বর্ণনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার (১৮ মার্চ) বিকেলে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে আন্তঃদেশীয় জ্বালানি তেল আনতে বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী এ পাইপলাইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

গণভবন থেকে এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে শেখ হাসিনা বলেন, নতুন অধ্যায় রচিত হলো বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের এ মৈত্রী পাইপলাইনের মাধ্যমে। বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী পাইপলাইন দুদেশের সহযোগিতা উন্নয়নের মাইলফলক ও দুদেশের সম্পর্কে নতুন মাইলফলকও।

দুদেশের মধ্যে বিভিন্ন সমস্যা সমাধান করা হয়েছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের ফলে বিশ্বের অনেক দেশ যখন জ্বালানি সংকটের মুখোমুখি, তখন জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে এই পাইপলাইন।

ভারত আমাদের অকৃত্রিম বন্ধু ও ভ্রাতৃপ্রতিম রাষ্ট্র উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মৈত্রী পাইপলাইন দুদেশের সহযোগিতা উন্নয়নে মাইলফলক, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত করবে। এছাড়া দুদেশের বন্ধুত্ব অটুট থাকবে।

এ দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

নরেন্দ্র মোদি বলেন, বিগত বছরগুলোতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য উন্নতি করেছে। বাংলাদেশের এই উন্নতিতে পাশে থাকতে পেরে আমরা খুশি। এই পাইপলাইন (ডিজেলের) বাংলাদেশের উন্নতিতে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

দুই দেশের মধ্যে কানেকটিভিটি যত বাড়বে তত দুই দেশের লোকজনের মধ্যে সম্পর্ক জোরালো হবে বলেও উল্লেখ করেন মোদি।  

কোভিড মহামারির পরও এই প্রজেক্টের কাজ চালিয়ে যাওয়ায় আমরা খুশি উল্লেখ করে মোদি বলেন, এই পাইপলাইনের কল্যাণে খরচ কমার পাশাপাশি কার্বন নিঃসরণও কম হবে। এর মাধ্যমে স্থানীয় লোকজনের উপকার হবে।

শিলিগুড়ি থেকে দিনাজপুরের পার্বতীপুর পর্যন্ত প্রায় ১৩২ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের পাইপলাইনের পুরোটাই নির্মাণ হয়েছে ভারতের অর্থায়ন ও কারিগরি সহায়তায়। যা দুদেশের সম্পর্কের নতুন মাত্রা হিসেবে দেখছে জ্বালানি বিভাগ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ভারত থেকে পাইপলাইনে প্রাথমিক অবস্থায় বছরে ২ লাখ টন জ্বালানি পাওয়া যাবে, পরবর্তীকালে যা উন্নীত হবে ১০ লাখ টনে। পূর্ণক্ষমতায় পাইপলাইনটি ব্যবহার হলে পরিবহন ব্যয়বাবদ বছরে প্রায় শতকোটি টাকা সাশ্রয়ের আশা নীতিনির্ধারকদের।

ইন্দো-বাংলা   মৈত্রী পাইপলাইন   প্রধানমন্ত্রী  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

সরকারের প্রস্তাব নিয়ে আলোচনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত পরে: বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন

প্রকাশ: ০৪:০৮ পিএম, ১৮ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

কোটা সংস্কারের দাবিতে চলমান আন্দোলন নিয়ে সরকারের পক্ষ থেকে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের আলোচনার প্রস্তাবের পর সেই বিষয়ে মতামত জানিয়েছে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন।

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) দুপুরে আইনমন্ত্রীর আলোচনার প্রস্তাবের পর গণমাধ্যমকে মতামত জানান বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের অন্যতম সমন্বয়ক সারজিস আলম।

তিনি বলেন, ‘কোটা সংস্কারের বিষয়ে সরকারের আলোচনার প্রস্তাবের বিষয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা চলছে, পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।’

এর আগে মন্ত্রী বলেন, আন্দোলনকারীদের আলোচনার প্রস্তাবকে স্বাগত জানায় সরকার। আমাকে ও শিক্ষামন্ত্রীকে দায়িত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। ওরা চাইলে আমরা আজকেই আলোচনায় বসতে রাজি। 


সরকার   প্রস্তাব   আলোচনা   বিষয়   সিদ্ধান্ত   বৈষম্য   বিরোধী   ছাত্র   আন্দোলন  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

পটুয়াখালীতে কোটা আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগ-যুবলীগের সংঘর্ষ, আহত ২০


Thumbnail

বৈষম্য বিরোধী আন্দোলনকারীদের ডাকা কমপ্লিট শাটডাউন সফল করতে বাউফল -পটুয়াখালী সড়কের মুরাদিয়া বোর্ড অফিস ব্রিজের উপরে বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিলে অতর্কিত হামলা চালায় ছাত্রলীগ, যুবলীগ নেতাকর্মী ও পুলিশ। এতে প্রায় ২০ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। 

 

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সকাল দশটার দিকে দুমকি আজিজ আহম্মেদ ডিগ্রি কলেজ, জয়গুন্নেছা মাধ্যমিক বিদ্যালয় সহ অন্যান্য স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা কোটা বিরোধী নানা শ্লোগান দিয়ে রাস্তা অবরোধ করে।

 

পরে ছাত্রলীগ যুবলীগ নেতাকর্মীরা মোটরসাইকেল যোগে সেখানে গিয়ে লাঠিসোটা নিয়ে তাদের ধাওয়া করে। একইসাথে হামলা চালায় পুলিশ।

এতে আন্দোলনকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। ত্রিমুখী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ২০ জন আহত হয়। আহতরা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এদের মধ্যে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক হাসান শিকদার এবং মুরাদিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ ফারুককে আহত অবস্থায় দুমকি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করা হয়েছে।


কোটা আন্দোলন   পুলিশ   আন্দোলনকারী  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

গুলিবিদ্ধ ও আহত হয়ে ঢামেকে ৩৩ জন

প্রকাশ: ০৩:৫৬ পিএম, ১৮ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

রাজধানীতে কোটা সংস্কার আন্দোলনে পুলিশ ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ৩৩ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) সকাল ১০টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত বিভিন্ন এলাকা থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জরুরি বিভাগে আনা হয়।

ঢামেকে আসাদের মধ্যে রয়েছেন যাত্রাবাড়ীর কাজলা এলাকায় গুলিবিদ্ধ মো. রিয়াদ (২৩) আশরাফুল (২৩), পারভিন (৩০), সায়েন্সল্যাবে গুলিবিদ্ধ তানিম (১৭), যাত্রাবাড়ীর জনপথের মোড়ে ইট-পাটকেলে আহত হয়েছেন বিআরটিসি বাসের চালক উজ্জ্বল (৩২)। রামপুরা ব্রিজের উপর ককটেল বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন ফজলুল হক মিলন (৫৫)।

এছাড়াও গুলিবিদ্ধ হয়েছেন রেসিডেন্স মডেল কলেজের শিক্ষার্থী আবির হোসেন পিয়াস (২১), নর্দান ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী হাসিবুল (২২), সিদ্ধেশ্বরী কলেজের শিক্ষার্থী রাইভী (২০), গুলিবিদ্ধ উত্তরা রেসিডেন্স মডেল কলেজের শিক্ষার্থী সৌমিক (২০), সিদ্ধেশ্বরী কলেজের শিক্ষার্থী সাদমান সাইফ (২৩), যাত্রাবাড়ী এলাকায় গুলিবিদ্ধ পথচারী মইনুল ইসলাম (২৫), উত্তরা থেকে ইমরান (১৮), শিক্ষার্থী মোজাম্মেল (১৯), ৭১ টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার নাদিয়া শারমিন (৩৭) ও ক্যামেরাপার্সন সৈয়দ রাশেদুল হাসান (৩২), বাদামতলী এলাকা থেকে কিশোর জয়নাল (১১), যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে পথচারী আনোয়ার (৪৪), সিদ্ধেশ্বরী হাই স্কুলের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী সোনিয়া (১৪), ইসমাইল (৪৬), ইমরান (১৮), মোজাম্মেল (২৫), তারেক (১৮), অজ্ঞাত (১৮), মুজাহিদুল ইসলাম (২৩), শাকিল (৪৪), তারেক (৩০), অজ্ঞাত (১৮), সিয়াম (১৮), আরিফ (১৮), ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থী তাহাসিন (২৪), উত্তরা ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থী তাহসিন (২৩), মারিয়া (২৩)।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে গুলিবিদ্ধসহ আহত অন্তত ৩৩ জন ঢাকা মেডিকেল এসেছেন। জরুরি বিভাগে তাদের চিকিৎসা চলছে।  


গুলিবিদ্ধ   আহত   আন্দোলকারী  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

উত্তরায় সংঘর্ষে নিহত ২, বাড্ডায় ১, আহত শতাধিক, থানায় আগুন

প্রকাশ: ০৩:৪৪ পিএম, ১৮ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সাব্বির আহমেদ সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘সংঘর্ষে নিহত এক ছাত্রকে সোয়া ১২টার দিকে আমাদের হাসপাতালে আনা হয়। শতাধিক ছাত্র আহত অবস্থায় এই হাসপাতালে আসে। তাঁদের অনেককেই চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বেলা তিনটা পর্যন্ত হাসপাতালে প্রায় ৩০ জন আহত শিক্ষার্থী চিকিৎসাধীন ছিলেন।

এদিকে উত্তরা ক্রিসেন্ট হাসপাতালের অর্থোপেডিক বিশেষজ্ঞ মাহমুদুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, সেখানে ৪০০ জনের বেশি আন্দোলনকারী আহত হয়ে তাঁদের হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এর মধ্যে একজন মারা গেছেন। তাঁর পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

রাজধানীর উত্তরায় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশ ও র‍্যাবের সংঘর্ষ আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার পর থেকে শুরু হয়।  সকাল ১১টার দিকে স্থানীয় বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ ও স্কুলের শিক্ষার্থীরা উত্তরার জমজম টাওয়ারের সামনে জড়ো হন। পরে তাঁরা মিছিল নিয়ে মূল সড়কে উঠতে চাইলে পুলিশ ও র‍্যাব তাঁদের ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করে। পরে সংঘর্ষ   বাঁধে।


সংঘর্ষ   উত্তরা   নিহত   আহত   শতাধিক   উত্তরা   পূর্ব   থানায়   আগুন  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

প্রশাসনের সহযোগিতায় মুক্ত হলো জবির দুই শিক্ষার্থী


Thumbnail

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থীকে আন্দোলনকারী সন্দেহে আটক করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। পরবর্তীতে কোন ধরনের সংশ্লিষ্টতা না থাকায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সহযোগিতায় মুক্ত হয় তারা। 

 

বৃহস্পতিবার (১৮ জুলাই) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে থেকে আটক করে তাদের।তারা দুজনই বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ ব্যাচের সিএসই বিভাগের শিক্ষার্থী। 

 

ঘটনাটি গনমাধ্যমে আসলে তাৎক্ষণিকভাবে ব্যবস্থা গ্রহন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বড়ির তৎপরতায় 

 

এদিন দুপুর ২.৩০ মিনিটের দিকে মুক্ত হয় তারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর নিউটন হাওলাদার বলেন, শিক্ষার্থীরা আটকের ঘটনা সাথে সাথে জানার পর আমরা থানাই যায়। তাদেরকে কিছু সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়। মুচলেকা দিয়ে ছাড়িয়ে আনা হয়েছে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড.জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, কয়েকজন শিক্ষার্থী সন্দেহজনকভাবে আটক হয়েছিলো। কোতোয়ালি ও সূত্রাপুর থানায় সহকারী প্রক্টর ও শিক্ষকদের প্রতিনিধিদের সমঝোতা মাধ্যমে তাদেরকে ছাড়িয়ে আনা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জানার পরপরই তাদেরকে ছাড়ানো হয়েছে। শিক্ষার্থীদের প্রতি অনুরোধ তারা যেন কোন প্রকার সহিংসতায় না লিপ্ত হয়।


জবি   গ্রেপ্তার   পুলিশ   প্রশাসন  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন