কোর্ট ইনসাইড

দুর্নীতি মামলায় ৮ বছরের কারাদণ্ড বাবরের

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১১:৩৪ এএম, ১২ অক্টোবর, ২০২১


Thumbnail

অবৈধ সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের মামলায় সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের ৮ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। 

আজ মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭ এর বিচারক শহিদুল ইসলামের আদালতে এ রায় ঘোষণা করা হয়। রায় ঘোষণার আগে বাবরকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। রায় ঘোষণার পর তাকে আবারও কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

২০০৭ সালের ২৮ মে বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে আটক হওয়া বাবরের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের মামলাটি ২০০৮ সালের ১৩ জানুয়ারি রমনা থানায় দায়ের করা হয়। মামলাটি করেন সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-১ এর সহকারী পরিচালক মির্জা জাহিদুল আলম।

তদন্ত শেষে ওই বছরের ১৬ জুলাই দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক রূপক কুমার সাহা আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

চার্জশিটে বাবরের বিরুদ্ধে ৭ কোটি ৫ লাখ ৯১ হাজার ৮৯৬ টাকার অবৈধ সম্পদ রাখার অভিযোগ করা হয়েছে। তিনি দুদকে ৬ কোটি ৭৭ লাখ ৩১ হাজার ৩১২ টাকার সম্পদের হিসাব দাখিল করেছিলেন। তার অবৈধ সম্পদের মধ্যে প্রাইম ব্যাংক এবং এইচএসবিসি ব্যাংকে দুইটি এফডিআর-এ ৬ কোটি ৭৯ লাখ ৪৯ হাজার ২১৮ টাকা এবং বাড়ি নির্মাণ বাবদ ২৬ লাখ ৪২ হাজার ৬৭৮ টাকা গোপনের কথা উল্লেখ করা হয়। একই বছরের ১২ আগস্ট আসামির বিরুদ্ধে চার্জগঠন করেন আদালত।

 

 

 


মন্তব্য করুন


কোর্ট ইনসাইড

জি কে শামীমের মাকে আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

প্রকাশ: ০৩:১৭ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদের মামলায় ঠিকাদার জি কে শামীমের মা আয়েশা আকতারকে বিচারিক আদালতে আট সপ্তাহের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আজ সোমবার (২৯ নভেম্বর) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।

আমিন উদ্দিন মানিক বলেন, জি কে শামীমের মা আয়েশা আকতার হাসপাতাল থেকে আগাম জামিনের জন্য অ্যাম্বুলেন্সে করে হাইকোর্টে এসেছেন। আদালত আগাম জামিন না দিয়ে ৮ সপ্তাহের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন।

মন্তব্য করুন


কোর্ট ইনসাইড

জাহাঙ্গীরের নামে সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা

প্রকাশ: ০২:১৮ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কটূক্তি করায় গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বহিষ্কৃত মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে নতুন করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।  

গতকাল রোববার (২৮ নভেম্বর) ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালতে মামলাটি দায়ের করেন ওমর ফারুক আসিফ নামে এক আইনজীবী।

বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে আগামী ৬ জানুয়ারির মধ্যে সিআইডিকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মন্তব্য করুন


কোর্ট ইনসাইড

নটর ডেম শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে রিট

প্রকাশ: ১০:৫০ এএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়িচাপায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহতের ঘটনায় আপাতত তার পরিবারকে ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন করা হয়েছে।

গতকাল রোববার (২৮ নভেম্বর) গণমাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন প্রতিবেদন যুক্ত করে জনস্বার্থে ‘জন অধিকার ফাউন্ডেশন’ নামে একটি সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক ও ঢাকা আইনজীবী সমিতির সদস্য আইনজীবী পারভীন আক্তারের পক্ষে রিট করেন আইনজীবী মনোজ কুমার ভৌমিক।

আজ সোমবার (২৯ নভেম্বর) রিট আবেদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেন আইনজীবী মনোজ কুমার ভৌমিক। রিটে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব, বিআরটিএ চেয়ারম্যান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও মহাব্যবস্থাপককে (যানবাহন) বিবাদী করা হয়েছে। অন্তর্বর্তীকালীন ৫০ লাখ টাকা ছাড়াও নাঈমের পরিবারকে পর্যাপ্ত ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়েছে রিটে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, রিট আবেদনটি হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চের আজকের কার্যতালিকায় রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৪ নভেম্বর বেলা ১১টা ২০ মিনিটে পল্টন মডেল থানার গুলিস্তান বঙ্গবন্ধু স্কয়ার গোল চত্বরের দক্ষিণ পাশে নাঈম হাসান (১৮) রাস্তা পার হওয়ার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। ওই সময় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের একটি ট্রাক (ঢাকা-মেট্রো-শ-১১-১২৪৪) বেপরোয়া গতিতে নাঈমকে ধাক্কা দেয়। ওই সময় গাড়িচালক ছিলেন রাসেল খান।


মন্তব্য করুন


কোর্ট ইনসাইড

১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

প্রকাশ: ০৮:৩২ এএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail

গাজীপুর সিটি করপোরেশেনের (গাসিক) বরখাস্তকৃত মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা হয়েছে। গতকাল রোববার (২৮ নভেম্বর) গাজীপুর চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সিটি করপোরেশনের নলজানি এলাকার বাসিন্দা মো. আতিক মাহমুদ মামলাটি করেন।

বাদি পক্ষের আইনজীবী মো. নুরনবী সরদার জানান, বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে গাজীপুর সদর থানা পুলিশকে তদন্ত করে আগামী ৩০ জানুয়ারির মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন জমা দিতে বলেছেন।

এজাহারের উল্লেখ করা হয়েছে, মো. জাহাঙ্গীর আলম গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচিত মেয়র হলেও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল নয়। তিনি সম্প্রতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মহান স্বাধীনতার ইতিহাস নিয়ে কটুক্তি করেন। যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয় এবং বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। এতে বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতির সুনাম ক্ষুণ্ন হয়েছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলাদেশের ইমেজ নষ্ট হয়েছে। এতে বাদি ক্ষুদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধু ও বাঙালি জাতির অপমান সহ্য করতে না পেরে সম্মানহানি হিসেবে ১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা করেন।

প্রসঙ্গত, বরখাস্ত হওয়া মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কানাইয়া এলাকার মৃত মিজানুর রহমানের ছেলে।


মন্তব্য করুন


কোর্ট ইনসাইড

আবরার হত্যা মামলা: রায় পিছিয়ে ৮ ডিসেম্বর নির্ধারণ

প্রকাশ: ১২:৩৪ পিএম, ২৮ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার রায় পিছিয়ে ৮ ডিসেম্বর (বুধবার) নির্ধারণ করেছেন বিচারক। রোববার (২৮ নভেম্বর) ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান বেলা ১২টা ৭ মিনিটে এজলাসে এসে রায় পেছানোর এ আদেশ দেন।

তিনি বলেন, ‘উভয়পক্ষের যুক্তিতর্কের ভিত্তিতে রায় প্রস্তুতে আরও সময় প্রয়োজন। এজন্য নতুন তারিখ ধার্য করা হলো।’

সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের পাবলিক প্রসিকিউটর আবু আব্দুল্লাহ গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, সকাল সাড়ে ৯টার পর কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ঢাকার কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ২২ আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়। এরপর তাদের আদালতে হাজতখানা রাখা হয়।

এরপর বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে আসামিদের আদালতের হাজতখানা থেকে সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালের এজলাসে হাজির করা হয়। পরে আদালত রায়ের জন্য নতুন এ তারিখ নির্ধারণ করেন।

এজাহারে থাকা আসামিরা হলেন- মেহেদী হাসান রাসেল, অনিক সরকার, ইফতি মোশাররফ সকাল, মেহেদী হাসান রবিন, মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মুনতাসির আলম জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, মুজাহিদুর রহমান, মুহতাসিম ফুয়াদ, মনিরুজ্জামান মনির, আকাশ হোসেন, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মাজেদুল ইসলাম, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, এ এস এম নাজমুস সাদাত, মোর্শেদুজ্জামান জিসান ও এহতেশামুল রাব্বি তানিম।

এজাহারবহির্ভূত ছয় আসামি হলেন- ইশতিয়াক আহমেদ মুন্না, অমিত সাহা, মিজানুর রহমান ওরফে মিজান, শামসুল আরেফিন রাফাত, এস এম মাহমুদ সেতু ও মোস্তবা রাফিদ।

পলাতক তিনজন হলেন- মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও মোস্তবা রাফিদ। এদের মধ্যে প্রথম দুজন এজাহারভুক্ত।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৬ অক্টোবর রাতে আবরারকে তার কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে যান বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। তারা ২০১১ নম্বর কক্ষে নিয়ে গিয়ে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করে। পরে রাত ৩টার দিকে শেরে বাংলা হলের সিঁড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই বছরের ৭ অক্টোবর রাজধানীর চকবাজার থানায় আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন।

পুলিশ পরে ২২ জনকে গ্রেফতার করে। এর মধ্যে আটজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এদের সবাই বুয়েট ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

আবরার ফাহাদ বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন।


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন