ঢাকা, রোববার, ২১ অক্টোবর ২০১৮, ৬ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

তারেককে আড়াল করতে গোলাম আজম ফর্মূলা?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১ মে ২০১৮ শুক্রবার, ১০:০০ পিএম
তারেককে আড়াল করতে গোলাম আজম ফর্মূলা?

নেতৃত্ব থেকে আপাতত তারেক জিয়ার অপসারন চায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহ প্রভাবশালী দাতা দেশগুলো। বিদেশী কূটনীতিকরা বিএনপিকে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, আপাতত তারেক জিয়াকে দলের নেতৃত্ব থেকে দূরে রাখলেই কেবল তাঁরা নির্বাচন নিয়ে সংলাপের জন্য সরকারকে চাপ দেবে। বিএনপি এবং কূটনৈতিক সূত্রে এখবর পাওয়া গেছে।

বিএনপি আগামী দুই একদিনের মধ্যেই বাংলাদেশে অবস্থানরত বিদেশী রাষ্ট্রের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের উদ্যোগ নিয়েছে। এই উদ্যোগের অংশ হিসেবে বিএনপি মহাসচিব সহ কয়েকজন নেতা কথা বলেছেন, প্রভাবশালী কয়েকটি দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে। এসব আলাপে, কূটনীতিকরা বিএনপিকে আগে তারেক জিয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে বলেছে। তারেক জিয়ার নেতৃত্ব নিয়ে সবথেকে বেশী আপত্তি জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারত। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, মার্কিন দূতাবাসের একজন কর্মকর্তা বিএনপি মহাসচিবকে বলেছেন, তারেক তো দেশে নেই। রাজনৈতিক আশ্রয়ে লন্ডনে আছে। তাহলে কেন সে নেতৃত্ব দেবে? ঐ কর্মকর্তা এটাও বলেছেন, ‘লেট হিম কাম অ্যান্ড লিড দ্য পার্টি।’ বিএনপি মহাসচিব বলেছেন, ‘বিএনপির রাজনীতিতে জিয়া পরিবার অপরিহার্য। চাইলেই আমরা তারেককে বাদ দিতে পারিনা।’ মার্কিন কর্মকর্তা বলেছেন, ‘তারেকের তৎপরতা সম্পর্কে আমরা ওয়াকিবহাল। তার ব্যাপারে আমাদের কাছে সেনসেটিভ ইনফরমেশন আছে।’

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতোই ভারতের অবস্থান। ভারত তারেকের ব্যাপারে আরো কঠোর। ভারতের দূতাবাসের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড: আব্দুল মঈন খানের সঙ্গে তারেককে নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা করেছেন। ভারতের কাছে তথ্য আছে, তারেক নানা রকম অবৈধ কাজের সঙ্গে জড়িত রয়েছে। তারা মনে করেন, তারেক রাজনীতির জন্য বিপদজনক। ভারত মনে করে, একজন দণ্ডিত রাজনীতিবীদের প্রথম কাজ হলো তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মোকাবেলা করা।

এদিকে ব্রিটিশ দূতাবাস বিএনপিকে নিশ্চিত করেছে, তারেক ব্রিটেনে চিরস্থায়ী থাকার ‘বৈধ’ অধিকার পেয়েছে। ব্রিটিশ দূতাবাসের তথ্য অনুযায়ী তারেক জিয়া দেশে ফিরতে আগ্রহী নয়। সেক্ষেত্রে তারা বিএনপিকে প্রশ্ন করেছে, তারেককে এখন দলের নেতৃত্বে রাখার দরকার কি? 

কূটনীতিকদের সাথে আনুষ্ঠানিক বৈঠকের আগে তাই বিএনপির জন্য তারেক জিয়ার আনুষ্ঠানিক নেতৃত্বে থাকা না থাকা একটি বড় ইস্যু হিসেবে সামনে এসেছে। গতরাতে বিএনপির নেতারা এনিয়ে বসেছিলেন। যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযম যখন লন্ডনে এবং পাকিস্তানে ছিল, সে সময় সে আমির থাকলেও জামাত তা প্রকাশ্যে বলত না। এসময় জামাত প্রকাশ্যে ভারপ্রাপ্ত আমির দিয়ে দল চালাতো-এই উদাহরণটি দেন বিএনপির একজন প্রভাবশালী নেতা। তিনি বলেন, সেরকম করে তারেক জিয়ার নাম আমরা আড়ালে রাখতে পারি। আমরা দলে অন্য কাউকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে পারি। তবে বিএনপির ঐ বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, বিষয়টি নিয়ে তারা তারেক জিয়ার সাথে কথা বলবেন। এব্যাপারে তার মন্তব্য কি তা জেনেই বিএনপি কূটনীতিকদের সাথে বসতে চান।



Read in English- https://bit.ly/2IAjc5I

বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ