ঢাকা, সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘শেখ হাসিনা পারেনও!’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭ জুন ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ০৯:১৮ এএম
‘শেখ হাসিনা পারেনও!’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আজ দিনের প্রকাশ্য কর্মসূচি শুরু হচ্ছে সকাল সাড়ে নটায়। ঐতিহাসিক ৭ জুন (ছয় দফা দিবস) উপলক্ষে ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন তিনি। এখান থেকে ছুটে যাবেন সংসদ ভবনে। ১০ টায় সংসদ ভবনে মন্ত্রিসভা কক্ষে অনুষ্ঠিত হবে মন্ত্রিসভার বৈঠক। এই বৈঠকে বাজেট উপস্থাপনের জন্য অনুমোদন দেবেন প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে মন্ত্রিপরিষদ। এখান থেকে প্রবেশ করবেন সংসদ কক্ষে। জাতীয় সংসদে পেশ করা হবে ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরের বাজেট। পুরো বাজেট পেশের সময় সংসদ নেতা অধিবেশনেই থাকবেন। অধিবেশন শেষ করেই ছুটে যাবেন গণভবনে। সেখানে সামান্য প্রস্তুতি আর আনুষাঙ্গিক কাজ সেরেই যাবেন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে। বিমান বন্দরের ভি ভি আই পি লাউঞ্জে তাঁর সাদামাটা ইফতারির ব্যবস্থা রয়েছে। একটু ইফতারি সেরে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় শেখ হাসিনা কানাডার উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করবেন। ৮ জুন থেকে অনুষ্ঠেয় জি-৭ আউটরিচ সম্মেলনে তিনিই অন্যতম কেন্দ্রীয় চরিত্র। ধনীদের জন্য শেখ হাসিনা এক দৃষ্টান্ত। কীভাবে একটি স্বল্পোন্নত দেশ হাসিমুখে দশ লাখ রোহিঙ্গার ভার কাঁধে নিতে পারে, সে দৃষ্টান্ত তো শেখ হাসিনাই বিশ্বকে দেখিয়েছেন। মাত্র দুদিনের সফর। প্রচণ্ড কর্মব্যস্ততা। এরপর তিনি উড়াল দেবেন প্রিয় মাতৃভূমিতে। ফিরবেন ১২ জুন রাতে। কীভাবে সম্ভব একজন ৭০ উর্ধ্ব মানুষের পক্ষে এতো পরিশ্রম করা? এভাবে বিরামহীন ছুটে চলা? তাঁর সঙ্গী, সহকর্মীরা বলেন, ‘শেখ হাসিনা পারেনও!’ আর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় বলেন, ‘মানুষের কথা চিন্তা করলে, আমার সব ক্লান্তি চলে যায়। আমার জীবন তো এদেশের মানুষের জন্যই।’

আজ সকালে যে প্রকাশ্য কর্মসূচির কথা বলছি, তার অনেক আগেই প্রধানমন্ত্রীর দিন শুরু। আসলে সেহরির পর থেকেই তাঁর ব্যস্ততার সূচনা। কোরআন তেলাওয়াত, নামায, পত্রিকা পড়া, একটু হাঁটাচলা, কিছু ফাইলপত্র দেখা। নটার আগে তিনি দিনের অর্ধেক কাজ তো শেষই করে ফেলেন। এজন্যই তাঁর সঙ্গে যারা কাজ করেন তারা বলেন, ‘যে দেশের প্রধানমন্ত্রী এভাবে পরিশ্রম করেন, সে দেশের উন্নতি রুখবে কে?’


বাংলা ইনসাইডার/ডিকে/জেডএ

বিষয়: শেখ-হাসিনা