ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বার্নিকাটের সাক্ষাৎ

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭ আগস্ট ২০১৮ মঙ্গলবার, ১১:৪৫ এএম
পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বার্নিকাটের সাক্ষাৎ

বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট গত শনিবার প্রটোকল ভেঙ্গে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদারের বাসায় নৈশভোজে অংশ নেওয়ার জন্য মোহাম্মদপুরে গিয়েছিলেন। সেখানে তখন আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের অন্তত ১২ জন সুশীল সমাজের প্রতিনিধি। যারা সেখানে গিয়েছিলেন তাঁদের মধ্যে ছিলেন ড. কামাল হোসেন, হাফিজউদ্দিন, ডা. জাফর উল্লাহ চৌধুরী, ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, ড. আসিফ নজরুল, দুজন পত্রিকার সম্পাদক সহ আরও কয়েকজন। অভিযোগ উঠেছে নৈশভোজ শেষে বেরিয়ে আসার সময় কয়েকজন যুবক মার্কিন রাষ্ট্রদূতের গাড়িতে হামলা চালায়। যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এরকম কোনো ঘটনা ঘটেনি। কিছু উৎসুক জনতার ভিড়ে সেখানে সামান্য হট্টগোল হয়েছিল।।

এই পরিপ্রেক্ষিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী গতকাল সোমবার বিকেল ৫টায় বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটকে ডেকে পাঠান। পররাষ্ট্র সচিবের উপস্থিতিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্কিন রাষ্ট্রদূতের কাছে জানতে চান, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কারণে রাজধানী উত্তপ্ত। এমন পরিস্থিতিতে তিনি প্রটোকল ভেঙ্গে কর্তৃপক্ষকে অবহিত না করে কেন মোহাম্মদপুরে গিয়েছিলেন?

বার্নিকাট জানান, কিছুদিনের মধ্যেই তিনি বাংলাদেশ ত্যাগ করবেন। এই উপলক্ষে একটি ফেয়ারওয়েল ডিনারে অংশ নিতে মোহাম্মদপুরে যান। কিন্তু পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বার্নিকাট কোথায় যাবেন না যাবেন সেটি কর্তৃপক্ষের জানা প্রয়োজন। কারণ এই অবস্থায় যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটে যেত তাহলে সেটি সামলানো মুশকিল হয়ে যেত। এসময় মার্শা বার্নিকাট শনিবার রাতে কোনো ধরনের দুর্ঘটনা ঘটেনি বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে আস্বস্ত করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী তখন মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে ইউএস ডিপার্টমেন্ট অব স্টেটের ওয়েবসাইটে বাংলাদেশে বসবাসরত মার্কিন নাগরিকদের নিরাপত্তাজনিত কারণে যে সকল বিধি-বিধান মেনে চলতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে সেগুলো মেনে চলতে বলেন। মার্শা বার্নিকাট তখন বলেন, বাকি যে কয়েকদিন তিনি বাংলাদেশে থাকবেন নির্দেশনা অনুযায়ীই চলবেন।

গত ৩ জুলাই ওই ওয়েবসাইটে মার্কিন নাগরিকরা কোথায় যেতে পারবে বা পারবে না সে সংক্রান্ত নির্দেশনাসহ অনেকগুলো নির্দেশনা দেওয়া হয়।

বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে গত জুলাইয়ে আর্ল রবার্ট মিলারের নাম ঘোষণা করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রাষ্ট্রদূত হিসেবে মিলারের যোগদানের আগে এখন শুধুই মার্কিন সিনেটের অনুমোদনের অপেক্ষা। অনুমোদনের পরপরই বর্তমানে বতসোয়ানায় রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালনরত মিলার বাংলাদেশে নিযুক্ত বর্তমান মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটের স্থলাভিষিক্ত হবেন।


বাংলা ইনসাইডার/এসএইচটি/জেডএ