ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৩ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

সমালোচনাকারীরাই এখন বঙ্গবন্ধুর ভক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৫ আগস্ট ২০১৮ বুধবার, ১১:০১ এএম
সমালোচনাকারীরাই এখন বঙ্গবন্ধুর ভক্ত

সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশ যখন বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছিল, ঠিক সেই সময় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে স্বপরিবারে হত্যা করে দেশের অগ্রযাত্রা থামিয়ে দেওয়া হয়েছিল। জাতির পিতাকে হত্যার মাধ্যমে বাঙালি জাতির মুক্তিযুদ্ধের আদর্শকে ভিন্ন পথে পরিচালিত করা হয়। 

১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করে একদল সেনা সদস্য। তবে জাতির পিতাকে হত্যা করার পটভূমি অনেক আগে থেকেই তৈরি করা হচ্ছিল অনেক আগে থেকেই। বঙ্গবন্ধুর বিরোধিতা করে তৎকালীন সময়ে রাজনৈতিক অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করে, জাতির পিতাকে হত্যার পটভূমি নির্মাণে অন্যতম ভূমিকা পালন করেন জাসদের হাসানুল হক ইনু, ওয়ার্কার্স পার্টির রাশেদ খান মেনন, অধ্যাপক মো. আনোয়ার হোসেন, মুনতাসির মামুন, জাসদের শরীফ নুরুল আম্বিয়াসহ আরও অনেকে।

বঙ্গবন্ধু হত্যার পর একটি বিদেশি সংবাদ মাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ইনু দাবি করেছিলেন, ‘শেখ মুজিব রাজনৈতিকভাবে দেশ চালাতে ব্যর্থ হয়েছিলেন। বিরোধী দলকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা না করে অগণতান্ত্রিক-ভাবে তিনি ছড়ি ঘুরাতেন। তিনি জনগণকে নিয়ন্ত্রণ করতে চাইতেন। তিনি সমালোচনা মোটেও পছন্দ করতেন না।’

৭৫ সালের ১৫ই আগস্টের আগে ও পরে একটি বিষয় লক্ষণীয় যে হাসানুল হক ইনু জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে কোনো সময় বঙ্গবন্ধু বা জাতির পিতা বলে বলে সম্বোধন করতেন না। শুধুই শেখ মুজিবুর রহমান বলে সমালোচনা করতেন। এসময় অন্যান্য রাজনৈতিক দল যেমন গণতন্ত্রী পার্টি সরকারের সমালোচনা করলেও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সম্বোধন করেই সমালোচনা করতেন। তৎকালীন গণতন্ত্রী পার্টির নেতা প্রয়াত সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত একাধিকবার এই বিষয়টি উল্লেখ করেছেন তার বিভিন্ন বক্তব্যে।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যার পর ট্যাঙ্কের উপর উঠে উল্লাস করেছিলেন হাসানুল হক ইনু এমন অভিযোগও পাওয়া যায় অনেক প্রবীণ রাজনৈতিক নেতাদের বিভিন্ন লেখায়।

১৯৭১ সালের পর থেকেই জাসদ বঙ্গবন্ধুর নামে নানা রকম কুৎসা রটনা করতে থাকে যেমন, তাঁরা ঐসময় তার মধ্যে অন্যতম হল বঙ্গবন্ধুকে একনায়ক, স্বৈরশাসক, দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ বলেও উল্লেখ করেন, এমনকি দেশে দুর্ভিক্ষের কারণ হিসেবে তাঁরা জাতির পিতার নাম জড়িয়ে নানা অপপ্রচার চালান। বঙ্গবন্ধুর সরকারের বিরুদ্ধে এইসব অপপ্রচার জাতির পিতার হত্যার পথকে অনেক পরিষ্কার করেছে বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করেন।  

স্বাধীনতার ৪৭ বছর পেড়িয়ে এসে রাজনৈতিক অবস্থার অনেক পট পরিবর্তন হয়েছে। জাতির পিতার বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এখন এগিয়ে চলছে দূর্বার গতিতে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার অসমাপ্ত স্বপ্নকে একে একে বাস্তবায়ন করে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যুদ্ধত্তোর বাংলাদেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নামে যারা নানা অপপ্রচার চালাতেন এখন তাদের অনেককেই জাতির পিতার নামে মাতম করতে দেখা যায়। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের পরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধুর চরম সমালোচনায় মুখর সেই রাশেদ খান মেনন ও হাসানুল হক ইনুরাই এখন বঙ্গবন্ধুর চরম গুণকির্তন করতে দেখা যায়।


বাংলা ইনসাইডার/আরকে