ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ৩ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ঐক্য প্রক্রিয়ায় নেই কেন কাদের সিদ্দিকী

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৯ আগস্ট ২০১৮ বুধবার, ০৩:০০ পিএম
ঐক্য প্রক্রিয়ায় নেই কেন কাদের সিদ্দিকী

আসন্ন জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে কয়েকজন নেতার ঐক্য প্রক্রিয়ার কারণে ইদানীং রাজনৈতিক অঙ্গনের আলোচিত এক নাম যুক্তফ্রন্ট। বিকল্পধারা বাংলাদেশ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (রব), কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ও নাগরিক ঐক্য - এই চারটি দল নিয়ে গত বছর গঠিত হয় যুক্তফ্রন্ট। এই জোটের মূল উদ্যোক্তা ছিলেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী। তবে কাদের সিদ্দিকীর হাত ধরে যুক্তফ্রন্টের যাত্রা শুরু হলেও এখন তিনি যুক্তফ্রন্টের সঙ্গে নেই। সম্প্রতি যুক্তফ্রন্টও জাতীয় ঐক্যের যে এত তোড়জোড় সেখানে অনুপস্থিত বঙ্গবীর।

ঐক্য প্রক্রিয়ার উদ্দেশ্যে গতকাল মঙ্গলবার রাতে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের বেইলি রোডের বাসায় এক বৈঠকে মিলিত হন বিকল্পধারার সভাপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি মহাসচিব আবদুল মান্নান, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী বলে পরিচিত ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ আরও অনেকে। কিন্তু ওই বৈঠকে ছিলেন না কাদের সিদ্দিকী। অথচ কাদের সিদ্দিকীই প্রথম ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে একটি ঐক্যবদ্ধ প্ল্যাটফর্ম করার জন্য কথা বলেছিলেন। যুক্তফ্রন্টের স্বপ্নদ্রষ্টাদের একজন হয়েও কেন গতকালের বৈঠকে কাদের সিদ্দিকী ছিলেন না তার পেছনে সুনির্দিষ্ট কারণও আছে।

বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর রাজনৈতিক দর্শন ও কর্মকাণ্ডে অনেক সমস্যা আছে,  আছে তাঁর বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগও; কিন্তু একটি ব্যাপারে এই বীর মুক্তিযোদ্ধা অতুলনীয়। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধু পরিবারের ব্যাপারে তিনি সবসময় বিশ্বস্ত ও আপোসহীন। ’৭৫ এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর যে কজন মুষ্টিমেয় লোক প্রতিবাদ করেছিলেন তাঁদের মধ্যে কাদের সিদ্দিকী ছিলেন অন্যতম। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিলে কাদের সিদ্দিকী।

বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর ঘনিষ্ঠজনদের ভাষ্যমতে, আগামী নির্বাচন যাতে একতরফা না হয় সেজন্য প্ল্যাটফর্ম তৈরি করার উদ্দেশ্যেই যুক্তফ্রন্ট গঠনের উদ্যোগ নিয়েছিলেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সেক্যুলার দলগুলোকে নিয়ে ঐক্য করাই ছিল কাদের সিদ্দিকীর আকাঙ্ক্ষা। কিন্তু যুক্তফ্রন্টের কার্যকলাপ পর্যবেক্ষণ করে এখন তিনি বুঝতে পারছেন, দলটির মধ্যে ষড়যন্ত্র ঢুকে গেছে। যখন কাদের সিদ্দিকী বুঝলেন এই ঐক্য প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে পর্যুদস্ত করার জন্য চক্রান্ত চলছে তখনই তিনি সরে গেছেন। তাই গতকালের বৈঠকে উপস্থিত থাকার জন্য ড. কামাল হোসেনের ফোন পেয়েও সেখানে উপস্থিত থাকতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন কাদের সিদ্দিকী।

বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী এমন কোনো রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত থাকতে চান না যে রাজনৈতিক প্রক্রিয়া বঙ্গবন্ধু কন্যাকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। আর যুক্তফ্রন্টের উদ্যোক্তা হওয়ার কারণে তিনি খুব ভালোমতোই বুঝতে পারছেন বর্তমানের আলোচিত ঐক্য প্রক্রিয়াটির উদ্দেশ্য হচ্ছে চক্রান্ত বা ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে নিজেদের কার্যসিদ্ধি করা। এজন্যই বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী এই ঐক্য প্রক্রিয়া থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচটি/জেডএ