ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

যুক্তফ্রন্টের প্রহসন

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ৩১ আগস্ট ২০১৮ শুক্রবার, ০৮:০৪ এএম
যুক্তফ্রন্টের প্রহসন

আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে জাতীয় ঐক্য গঠন করেছে যুক্তফ্রন্ট। এই উদ্দেশ্যে গত মঙ্গলবার গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের বাসায় সমবেত হন বিকল্পধারার প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডাক্তার জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা। বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, বি. চৌধুরী ও ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে আগামী জাতীয় নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করবে যুক্তফ্রন্ট।

যুক্তফ্রন্ট জাতীয় ঐক্যে বিএনপিকেও নিয়ে আসার চেষ্টা করছে। কিন্তু দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক মিত্র জামায়াতে ইসলামীকে ছাড়া কোনো জোটে আসার ব্যাপারে আগ্রহী নয় বিএনপি। আর বিএনপিকে চাইলেও যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে অভিযুক্ত জামাতকে জোটে চাইছেন না যুক্তফ্রন্ট নেতারা।

জামাত-শিবিরকে বাদ দিয়ে ঐক্য করার উদ্যোগ নিশ্চিতভাবেই সাধুবাদ পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু মজার ব্যাপার হচ্ছে, যুক্তফ্রন্ট প্রেসিডেন্ট বি. চৌধুরীর দল বিকল্পধারার মহাসচিব মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান এমন একজন মানুষ যিনি একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য লড়াই না করে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বাঙালির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছেন।

ইতিহাসের পাতা ঘাটলে দেখা যায়, একাত্তরে মাতৃভূমির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা বাঙালি সেনার সংখ্যা ৮০ জনেরও বেশি। এদের মধ্যেই অন্যতম ছিলেন ’৯২ সালে বিএনপির মন্ত্রী ও পরে বিকল্প ধারার নেতা হওয়া মেজর আবদুল মান্নান।

মেজর (অব.) আবদুল মান্নান মুক্তিযুদ্ধের সময় চট্টগ্রাম সেনানিবাসে ৩ নং কমান্ডো ব্যাটালিয়নে কর্মরত ছিলেন। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর হয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে কমান্ডো হামলায় অংশ নেওয়ার রেকর্ড আছে মান্নানের। এমনকি ১৬ ডিসেম্বর নিয়াজীর সঙ্গে আত্মসমর্পণও করেছিলেন মেজর মান্নান। বাংলাদেশ স্বাধীন হলে তিনি পাকিস্তানে চলে যান। ১৯৭৩ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনী থেকে অবসর নেন মেজর মান্নান। পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের পর বাংলাদেশে পুনর্বাসিত হয়ে টিসিবির চেয়ারম্যান হন। বাঙালি নিধনে হত্যাকারী অন্যান্য বাঙালি সেনাদের মতো মেজর মান্নানকেও কখনো বিচারের সম্মুখীন হতে হয়নি।

জামাত-শিবিরকে বাদ দিয়ে জোট গড়ার মাধ্যমে নিজেদের স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি হিসেবে দেশবাসীর সামনে উপস্থাপন করার প্রয়াস পেয়েছে যুক্তফ্রন্ট। কিন্তু মেজর মান্নানের মতো স্বাধীনতা বিরোধী, পাকিস্তানের পক্ষ হয়ে রণাঙ্গনে যুদ্ধ করা একজন ব্যক্তিকে দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে রেখে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে নিজেদের অবস্থানকেই প্রশ্নবিদ্ধ করে তুললো যুক্তফ্রন্ট।   


বাংলা ইনসাইডার/এসএইচটি/জেডএ