ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

আ. লীগের বিরুদ্ধে ছক কষছেন যাঁরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ১০:০০ পিএম
আ. লীগের বিরুদ্ধে ছক কষছেন যাঁরা

আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে এবার আদাজল খেয়েই নেমেছে দেশের সুশীল সমাজের একটি বড় অংশ। শুধু টকশো আর পত্র-পত্রিকায় সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনা নয়, নির্বাচন কেন্দ্রিক রাজনীতিতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে পর্যুদস্ত করতে নানা কর্ম পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে সুশীল সমাজের একটি গ্রুপ। একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে, সুশীল সমাজ এবং কয়েকটি দূতাবাসের পৃষ্ঠপোষকতায় জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া গঠনের কার্যক্রম চলছে। এই ঐক্য প্রক্রিয়ায় যেন বিএনপি যোগ দেয় সেজন্য ক্রমাগত কূটনৈতিক চাপ দেওয়া হচ্ছে।

ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে ‘সিভিল সোসাইটি অ্যালায়েন্স’ নামে একটি সংগঠন দুই কোটি তরুণ ভোটারের একটি ডাটাবেইস তৈরির কাজ করছে। জানা গেছে, এই তরুণ ভোটারদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা হবে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে, এই তরুণরা যেন সক্রিয় থাকে সে লক্ষ্যে তাঁদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। সোজা সাপ্টা ভাষায়, তাঁদের জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার ভোট ব্যাংক হিসেবে তৈরি করা হবে।

সুশাসনের জন্য নাগরিক, সুজনের উদ্যোগে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার জন্য সৎ প্রার্থী খোঁজার কাজ চলছে আরও দু’মাস আগে থেকে। আওয়ামী লীগ বা বিএনপিতে কোণঠাসা অথবা কোনো রাজনৈতিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত না কিন্তু এলাকায় জনপ্রিয় এমন একটি তালিকা তৈরি করছে ’সুজন’।

নাজিম কামরান চৌধুরীর নেতৃত্বে তাঁর নিজস্ব প্রতিষ্ঠান, সারা দেশে ৩০০টি নির্বাচনী এলাকায় একটি জরিপ চূড়ান্ত করে ফেলেছে। এখন এই জরিপের তথ্যগুলো একত্রিত করার কাজ চলছে। এই জরিপে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা কতটুকু, তাদের দুর্বলতাগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে। এই জরিপের তথ্য ও উপাত্তের ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্য তাঁর নির্বাচনী কৌশল নির্ধারণ করবে বলেও জানা গেছে। দেশের সর্বাধিক প্রচারিত একটি ইংরেজি দৈনিকে এই জরিপটি প্রকাশ করা হবে। ঐ ইংরেজি দৈনিক এবং একই প্রতিষ্ঠানের একটি বাংলা দৈনিকে আওয়ামী লীগ সরকারের মন্ত্রী, এমপিদের দুর্নীতির খতিয়ান তৈরি করা হচ্ছে। জানা গেছে, এ পর্যন্ত অন্তত ৮৭ জন আওয়ামী লীগ নেতা এবং এমপির নানা অনিয়মের তথ্য সংগ্রহ করেছে পত্রিকা দু’টি। নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে এসব সংবাদ প্রকাশ করা হবে। এর ফলে জনমত আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে চলে যাবে বলে সংশ্লিষ্টদের ধারণা।

নির্বাচনে অর্থ একটি বড় ফ্যাক্টর, তিনটি বড় বড় শিল্প গ্রুপ জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় অর্থায়ন করছে। গণফোরামের একজন নেতা বলেছেন, ‘ক’দিন আগেও গণফোরাম একটি কর্মী সভা করার আগেও দশবার ভাবতো। টাকা কোত্থেকে আসবে, সেই চিন্তা করতো। এখন, দেখি মুড়ি মুড়কির মতো টাকা খরচ হচ্ছে। টাকা কোত্থেকে আসছে কে জানে?’

সব মিলিয়ে এবার কোমর কষেই নেমেছে সুশীল সমাজের এই অংশটি। যে অংশটি ২০০৭ সালে ওয়ান-ইলেভেনের রূপকার ছিল। এখন তারা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ছক কষছে। এসব প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত একজন সুশীল সমাজের প্রতিনিধি বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ কথায় কথায় বলে, আমাদের ভোট নেই, জনসমর্থন নেই। এবার আমরা দেখাবো, আমরা কি পারি।’ 

বাংলা ইনসাইডার/জেডএ