ঢাকা, রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ড. কামাল-বি. চৌধুরী আওয়ামী লীগের সৃষ্টি?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ রবিবার, ১০:০০ পিএম
ড. কামাল-বি. চৌধুরী আওয়ামী লীগের সৃষ্টি?

যুক্তফ্রন্ট এবং ড. কামাল হোসেন সমন্বয়ে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়াকে আওয়ামী লীগ এবং ভারতের পৃষ্ঠপোষকতায় সৃষ্টি- এমনটাই মনে করছে জামাতসহ কয়েকটি দক্ষিণপন্থী রাজনৈতিক দল। তারা মনে করছে, শেষ পর্যন্ত বিএনপি এবং ২০ দল যদি নির্বাচনে যোগ না দেয়, তাহলে ‘তথাকথিত জাতীয় ঐক্য নির্বাচনে গিয়ে বর্তমান সরকারকে বৈধতা দেবে। ভারতের নীলনকশা অনুযায়ী এই সংগঠনটি গড়ে উঠেছে বলেও ঐ দলগুলোর মূল্যায়ন। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, জামাতের কেন্দ্রীয় নেতারা ২০ দলের ইসলাম পছন্দ দলগুলোর সঙ্গে বৈঠক করে এই অভিমত প্রকাশ করেছে।

গত বুধবার দেশের সর্বশেষ রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে জামাতের নীতি নির্ধারনী সংস্থা মজলিশে শুরার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে, ড. কামাল হোসেন এবং অধ্যাপক বদরুদ্দোজাকে আওয়ামী লীগ ও ভারতে এজেন্ট হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। জামাত মনে করে, ২০ দল ভাঙতে এবং বিএনপিকে জামাত থেকে আলাদা করতেই, আওয়ামী লীগ এদের মাঠে নামিয়েছে। জামাতের মজলিশে শুরায় অভিমত ব্যক্ত করা হয় যে, সরকার বিএনপিকে ভাঙার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে, এখন এদের নিয়োগ দিয়েছে।’ মজলিশে শুরায় মন্তব্য করা হয়, ‘ড. কামালদের প্রতিপক্ষ কে, সরকার না জামাত? জামাতের রাজনৈতিক মূল্যায়নে বলা হয়েছে, ‘বিএনপি এবং ২০ দলকে বাইরে রেখে আরেকটি প্রহসনের নির্বাচন করতে চায় আওয়ামী লীগ। এই নির্বাচনে গৃহপালিত বিরোধী দল হিসেবে তারা যুক্তফ্রন্ট এবং জাতীয় ঐক্যকে আনতে চায়। ড. কামাল হোসেন এবং অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরী ভারতের ইঙ্গিতে এবং আওয়ামী লীগের পৃষ্ঠপোষকতায় মাঠে নেমেছে। এরা আসলে আওয়ামী লীগের বি টিম। চতুরতার সঙ্গে সরকারের সমালোচনা করে এরা জনগণের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে। কিন্তু এদের মূল লক্ষ্য হলো নির্বাচনে গিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে আরেকবার বৈধতা দেওয়া।  জামাত তার রাজনৈতিক মূল্যায়ন রিপোর্ট নিয়ে খেলাফত মজলিশ, ইসলামী ঐক্যজোট, ওলামায়ে ইসলাম, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টিসহ ২০ দলভুক্ত রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে কথা বলেছে। তারা জামাতের মনোভাবের সঙ্গে একমত পোষণ করে বলেছেন, ‘যুক্তফ্রন্ট আওয়ামী লীগ ভারতের যৌথ প্রযোজনা।’

খেলাফত মজলিসের একজন নেতা তাদের নীতি মূল্যায়ন জানাতে গিয়ে বলেন,‘বাংলাদেশে আবার সেক্যুলার রাজনীতি চালু করতেই ড. কামালরা মাঠে নেমেছে। ইসলামকে রাজনীতি থেকে বিতাড়িত করাই এদের লক্ষ্য। এজন্যই এরা ২০ দল ভাঙার খেলায় মেতেছে। এরা বিএনপিকেও ভাঙ্গবে। নির্বাচন এলেই এদের মুখোশ উন্মোচন হয়ে যাবে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, জামাত অনতি বিলম্বে ২০ দলের বৈঠক ডাকার আহ্বান জানিয়ে চিঠি দিয়েছে। ২০ দলের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খানকে দেওয়া চিঠিতে বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি মূল্যায়নের জন্য অনতি বিলম্বে ২০ দলের বৈঠক ডাকা প্রয়োজন।’ জানা গেছে, ২০ দলের বৈঠকে জামাত সাম্প্রতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে তাদের মূল্যায়ন প্রতিবেদন উপস্থাপন করবে।

বাংলা ইনসাইডার/জেডএ