ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৫ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

বার্নিকাটের পথেই শ্রিংলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার, ০১:১২ পিএম
বার্নিকাটের পথেই শ্রিংলা

বাংলাদেশের নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাটের চলে যাওয়ার কথা ছিল। তাঁর জায়গায় নতুন মার্কিন রাষ্ট্রদূত হওয়ার কথা ছিল আর্ল রবার্ট মিলারের। বিদায় ঘণ্টা শব্দে প্রস্তুতিও নিচ্ছিলেন মার্শা বার্নিকাট। সবাই কাছ থেকেই মোটামুটি বিদায় নিয়ে ফেলেছেন এমন সময় ওয়াশিংটন থেকে বার্তা এলো, নির্বাচন পর্যন্ত মার্শা বার্নিকাটই থাকছেন বাংলাদেশের মার্কিন রাষ্ট্রদূত। একই অবস্থা দেখা যাচ্ছে ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলার ক্ষেত্রেও।

বাংলাদেশে ভারতের হাইকমিশনারের পদে পরিবর্তন আসবে বলে জানা গিয়েছিল। বর্তমান ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা দায়িত্ব নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে চলে যাওয়ার কথা ছিল। আর বাংলাদেশে নতুন হাইকমিশনার হওয়ার কথা ছিল ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন সাংস্কৃতিক সম্পর্ক কাউন্সিলের ঢাকা কার্যালয়ের দায়িত্বে থাকা রিভা গাঙ্গুলি দাসের। তবে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের মতো ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও তাঁদের বর্তমান রাষ্ট্রদূত শ্রিংলাকেই আগামী জাতীয় নির্বাচন পর্যন্ত বাংলাদেশের দায়িত্বে রাখতে যাচ্ছে।

ধারণা করা হচ্ছে, মার্শা বার্নিকাটকে বাংলাদেশে রাখায় যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতেই হর্ষবর্ধন শ্রিংলার বাংলাদেশের থাকার মেয়াদ দীর্ঘায়িত করতে চাইছে ভারত। কূটনৈতিক সূত্রমতে, মার্শা বার্নিকাট ও হর্ষবর্ধন শ্রিংলা দুজনেই গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশে আছেন। তাঁরা দুজনই বাংলাদেশের রাজনীতি ও পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছেন। এখন নতুন কেউ আসলে স্বভাবতাই বাংলাদেশ পরিস্থিতি বুঝে উঠতে তাঁর সময় লাগবে। এ কারণেই যুক্তরাষ্ট্র প্রথমে মার্শা বার্নিকাটকে সরিয়ে নেওয়ার চিন্তা করলেও পরে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে। একই ভাবে ভারতের উপলব্ধি, হর্ষবর্ধন শ্রিংলাকে সরিয়ে নেওয়া হলে বাংলাদেশের ওপর মার্কিন প্রভাব বাড়বে, কিন্তু তাদের প্রভাব কমে যাবে। বাংলাদেশের ওপর মার্কিন প্রভাব খর্ব করতেই ভারত শ্রিংলাকে নির্বাচন পর্যন্ত বাংলাদেশে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মত কূটনৈতিক বিশ্লেষকদের।

বাংলা ইনসাইডার/জেডএ