ঢাকা, রোববার, ২১ অক্টোবর ২০১৮, ৬ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মালদ্বীপের নির্বাচনে চীনের প্রত্যক্ষ ভূমিকা, কী হবে বাংলাদেশে?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ রবিবার, ০৩:৩৮ পিএম
মালদ্বীপের নির্বাচনে চীনের প্রত্যক্ষ ভূমিকা, কী হবে বাংলাদেশে?

দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র মালদ্বীপে আজ রোববার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। স্থানীয় সময় সকাল ৮টা থেকে নির্বাচনের প্রথম ধাপের ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। মালদ্বীপের সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনের প্রথম ধাপে কোনো দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলে, নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপ অনুষ্ঠিত হবে ২১ দিন পর। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বর্তমান প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনের বিরুদ্ধে লড়ছেন বিরোধী দলীয় নেতা ইব্রাহিম মোহাম্মদ সালিহ।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মাত্র চার লাখ জনগণের ছোট দ্বীপরাষ্ট্রে চলছে চরম রাজনৈতিক অস্থিরতা। এবারের নির্বাচনে সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ লড়ছেন না। তবে তিনি মালদ্বীভিয়ান ডেমোক্র্যাটিক পার্টির (এমডিপি) জ্যেষ্ঠ নেতা ইব্রাহিম মোহাম্মদ সালিহকে সমর্থন দিয়েছেন। চলতি বছরের শুরু থেকেই দেশটিতে জরুরি অবস্থা জারি করে রাখা হয়েছে। প্রথমবারের মতো গণতান্ত্রিক ভাবে নির্বাচিত মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ ২০১২ সালে পদচ্যুত হওয়ার পর এটিই প্রথম নির্বাচন। 

আন্তর্জাতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, মালদ্বীপের এই নির্বাচন হচ্ছে চীনের জন্য একটি টেস্ট কেস। বর্তমানে ক্ষমতায় থাকা বর্তমান প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের ভালো সম্পর্ক। তাঁর বিরুদ্ধে লড়া বিরোধী দলীয় নেতা ইব্রাহিম মোহাম্মদ সালিহ আবার চীনপন্থী। বিশ্বে এই প্রথম কোনো দেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে সরাসরি প্রভাব রাখছে চীন। এর আগে কখনো সরাসরি কোনো দেশের নির্বাচনে চীনকে এভাবে তৎপর দেখা যায়নি।

বিশ্লেষকরা বলছেন, চীন বরাবরই তাদের অর্থনৈতিক প্রভাব সুসংহত রাখতেই বদ্ধপরিকর। তবে সম্প্রতি চীনের বৈশ্বিক নীতিতে কিছু পরিবর্তন এসেছে। অর্থনৈতিক সম্পর্কের স্বার্থেই কোনো দেশের রাজনৈতিক বিষয়ে সম্পৃক্ত হওয়ার নীতি গ্রহণ করেছে চীন। ওই নীতি গ্রহণের পর এই প্রথম মালদ্বীপের নির্বাচনে সরাসরি প্রভাব রাখছে চীন।

মালদ্বীপের নির্বাচনে ফলাফল যাই হোক চীন তার নীতিতে অটল থাকলে পরবর্তীতে বিভিন্ন দেশের রাজনৈতিক বিষয়েও তাদের হস্তক্ষেপ থাকবে বলেই মনে করেন বিশ্লেষকরা। চলতি বছরের শেষে বা আগামী বছরের শুরুতে বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ নির্বাচন। বাংলাদেশের সঙ্গে চীনের অর্থনৈতিক সম্পর্ক স্মরণকালের ইতিহাসে সবচেয়ে ভালো। গত ১০ বছরে চীনের সঙ্গে দেশের যতটা অর্থনৈতিক সম্পর্ক গড়ে উঠেছে এর আগে স্বাধীনতার পর থেকে ৩৭ বছরে ততটা হয়নি। বাংলাদেশের রাজনীতিতেও চীনকে ভূমিকা রাখার জন্য অনেক রাজনৈতিক দলই অনুরোধ করে আসছে। এই পরিপ্রেক্ষিতে অর্থনৈতিক সম্পর্কের স্বার্থে মালদ্বীপের মতোই বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনে চীন কোনো প্রভাব ফেলবে কিনা সেটাই এখন বড় প্রশ্ন। আর এমনটি ঘটলে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত প্রভাব বলয়ের পর চীন বলও দেখা যাবে।

বাংলা ইনসাইডার/জেডএ