ঢাকা, বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘তারেক অনেক বড় খেলোয়াড়’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০ অক্টোবর ২০১৮ বুধবার, ০৮:০০ পিএম
‘তারেক অনেক বড় খেলোয়াড়’

বিএনপির যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী নেতা সাদেক হোসেন খোকা বলেছেন, ‘তারেক অনেক বড় খেলোয়াড়। তাঁকে যারা গুরুত্বহীন মনে করেছে তারাই হেরেছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায় তারেক জিয়াকে ‘আন্ডারএস্টিমেট’ করারই ফল।’ আজ নিউইয়র্ক সময় ভোরে বিএনপির যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কর্মীদের কাছে এভাবেই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন সাবেক এই মেয়র। 

বর্তমানে ক্যানসারের চিকিৎসার জন্য নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন ঢাকা মহানগরী বিএনপির সাবেক এই সভাপতি। তবে দেশ থেকে দূরে থাকলেও সারাক্ষণ রাজনীতি নিয়ে আড্ডা দিয়েই সময় কাটান। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায়ের দিন তাঁর বাড়িতেই ছিল অন্তত ৫জন বিএনপি কর্মী। নিউইয়র্ক সময় মধ্যরাতের পরে রায় ঘোষণা হয়। রায় শুনে অট্টহাসিতে ফেটে পড়েন সাদেক হোসেন খোকা। বলেন ‘বাবর আর পিন্টু তো তারেকের নির্দেশ পালন করেছেন মাত্র। নির্দেশ পালনের জন্য যদি ওদের মৃত্যুদণ্ড হয়, তাহলে নির্দেশদাতার যাবজ্জীবন কীভাবে হয় বলো?’ কর্মীরাও তাঁর এই মন্তব্যের সঙ্গে একমত হন। এরপর তিনি তারেক জিয়ার বেশকিছু অপকর্মের বর্ণনা দিয়ে বলেন, ‘ও ট্যালেন্ট, কিন্তু ওর সব মেধা খরচ করে খারাপ কাজে।’ খোকা বলেন, ‘এর আগে মানি লন্ডারিং মামলায় নিম্ন আদালত তারেক জিয়াকে খালাস দিয়েছিল। লন্ডনে থাকলে কি হবে, ঢাকার প্রতি মিনিটের খবর তারেক রাখে।’

বিএনপির কর্মীদের কাছে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন খোকা। বলেন, ‘বেচারা পদত্যাগ করতে চেয়েছিল। তাকে দিয়ে এসব করাতে বাধ্য করানো হয়েছিল।’

এই রায়ে অবাক হয়েছেন বেগম জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন সময়ের মুখ্য সচিব ড. কামাল সিদ্দিকীও। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার মোনাস বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনায় ব্যস্ত এই সাবেক আমলা বলেন, ‘পরিকল্পনা যদি হাওয়া ভবনেই হয়েছে, এটা প্রমাণিত হয়, আর তারেক যদি ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারীই হন, তাহলে তো এই রায় একটু অবাক করেই বটে।’ তিনি বলেন, ‘আমি পুরো রায় না দেখে তো প্রতিক্রিয়া জানাতে পারবো না। তবে আমি ঘটনাকে যেভাবে দেখেছি, তাতে আমার বিচারে তারেক এবং হারিছ চৌধুরীই সর্বোচ্চ সাজা হওয়া উচিৎ ছিল।’ তার মতে, ‘২০০১ থেকে ২০০৬ সালে তারেক জিয়াই দল চালাতেন। বাবর এবং পিন্টুর সঙ্গে তো তারেক চাকর বাকরের মতো আচরণ করতো।’ ড. কামাল সিদ্দিকী বলেন, ‘সত্যি বলতে কি আমি দণ্ডের পার্থক্য দেখে অবাকই হয়েছি। তবে পুরো রায় না পড়ে এ ব্যাপারে মন্তব্য করা সম্ভবত ঠিক না।

অবশ্য সাদেক হোসেন খোকা এবং ড. কামাল সিদ্দিকী দুজনই এই ঘটনার বিচার হয়েছে, এটাকেই বড় করে দেখছেন।

বাংলা ইনসাইডার/জেডএ