ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ২০ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘এই বাঁচালদের হাত থেকে আমাদের বাঁচান’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ০২:০০ পিএম
‘এই বাঁচালদের হাত থেকে আমাদের বাঁচান’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে বিএনপির যোগদানের অন্যতম বিরোধী দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস। শুরু থেকেই বিএনপির ঐক্যফ্রন্টে যাওয়ার বিরোধিতা করেছেন তিনি। এখন ঐক্যফ্রন্টের গঠনের এক সপ্তাহের মধ্যে এর তিন নেতার বক্তব্য নিয়ে দেশজুড়ে সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে জোট বিরোধিতা নিয়ে আবার সরব হয়েছেন মির্জা আব্বাস।

ঐক্যফ্রন্টে যাওয়ার অন্যতম কারিগর বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলকে আজ সকালে মির্জা আব্বাস বলেছেন, কয়েকজন বাঁচালের খপ্পরে পড়েছে বিএনপি। জোট গঠন করে খালেদা জিয়ার মুক্তি, সরকার বিরোধিতা ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আন্দোলন করবেন কী করে। বাঁচালদের কথার বিতর্কেই ঘুরপাক খাচ্ছে ঐক্যফ্রন্ট। মির্জা আব্বাস বলেন, ঐক্যফ্রন্টের বাঁচালরা এক একটি ইস্যু তৈরি করছে এবং আমাদের বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে ফেলছে। এরা কোথায় সরকারের সমালোচনা করবে,  তা না করে কে চরিত্রহীন, কোন দেশ ভালো, সেনাপ্রধান নিয়ে বিতর্ক করছেন। এর ফলে বিএনপিরই নির্বাচনের মাঠ নষ্ট হচ্ছে। মির্জা আব্বাস বিএনপি মহাসচিবকে বলেছেন, এই বাঁচালের হাত থেকে আমাদের বাঁচান। একই সঙ্গে এই নেতাদের টক শোতে যাওয়া নিষিদ্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন মির্জা আব্বাস।

উল্লেখ্য, মির্জা আব্বাস ঐক্যফ্রন্টের যে তিন বাঁচালের কথা বলেছেন, তাঁরা হলেন বিএনপি পন্থী বুদ্ধিজীবী হিসেবে পরিচিত ডা. জাফরুল্লাহ, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন এবং নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না। সেনাবাহিনীর প্রধানকে নিয়ে টকশোতে বিতর্কিত মন্তব্য করে দেশব্যাপী সমালোচিত হয়েছেন ডা. জাফরুল্লাহ। পরে তাঁর বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে। বর্তমান এর তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।  মাহমুদুর রহমান মান্না অপর এক টকশোতে পাকিস্তান সব সূচকে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে বলে দাবি করেন। টকশোর উপস্থাপকসহ সেখানে উপস্থিত অন্যান্যরা এর বিরোধিতা করলেও মান্না নিজের কথায় অটল থাকেন। জাফরুল্লাহ নিজের বক্তব্যের জন্য পরে ক্ষমা চাইলেও মান্না নিজের বক্তব্যের বিরুদ্ধে সাফাই গেয়ে চলছেন এখনো। যদিও সব সূচকই বলছে উন্নয়নে পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ। আর দলহীন ঐক্যফ্রন্টের নেতা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন টকশোতে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে চরিত্রহীন বলেন। একজন নারী সাংবাদিককে সরাসরি অনুষ্ঠানে এমন কথা বলায় দেশজুড়ে সমালোচনা হচ্ছে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের এই উপদেষ্টার। বিশ্লেষকরা বলছেন, ঐক্যফ্রন্ট গঠিত না হতেই ‘ধরাকে সরা’ জ্ঞান করছেন ভোটের রাজনীতিতে মূল্যহীন এর নেতারা।

বাংলা ইনসাইডার/জেডএ