ঢাকা, সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ৭ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মইনুল বচন ১: জিয়া গ্রেপ্তার করেছিলেন মইনুলকে

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০১৮ শুক্রবার, ০৭:৫৯ এএম
মইনুল বচন ১: জিয়া গ্রেপ্তার করেছিলেন মইনুলকে

[ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন মহা সমারোহে বিএনপির সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিয়েছেন। কিন্তু এই বিএনপি এবং জিয়াউর রহমান সম্পর্কে তাঁর যে ধারণা বা মনোভাব তাঁরই গ্রন্থ ‘আমার জীবন আমার স্বাধীনতা’ থেকেই প্রতীয়মান হয়। তাঁর সেই গ্রন্থের বিভিন্ন সময়ের বক্তব্যগুলো যদি সত্যি হয়, তাহলে তাঁর আজকের এই অবস্থান হবে রাজনীতিতে সবচেয়ে বড় ডিগবাজিগুলোর মধ্যে একটা।]

মইনুল হোসেন রচিত `আমার জীবন আমার স্বাধীনতা’ বইয়ের ১৩৫ থেকে ১৩৬ পৃষ্ঠায় তাঁরই কিছু কথা এখানে তুলে ধরা হলো:

‘দেশে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠান করার পূর্ব ঘোষণা থেকে জেনারেল জিয়া সরে গেলেন। জনাব আতাউর খান, জেনারেল ওসমানী ও অন্যান্যরা মিলে প্রতিবাদ করতে যে যুক্ত বিবতি দেন তাতে আমার ভূমিকা ছিল। বস্তুত এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই আমি সরকারের জন্য সমস্যা হলাম। প্রেসিডেন্ট জিয়া আমাকে বিশেষ ক্ষমতা আইনে গ্রেফতার করে তিন মাসের মতো জেলে রেখেছিলেন। গ্রেফতার সম্পর্কে বিচারপতি সায়েম আমাকে আগেই সতর্ক করে দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, ওরা তোমাকে সন্দেহ করছেন। আমার ব্যাপারে তার দুশ্চিন্তা ছিল বলেই তিনি বঙ্গভবনের বারান্দায় হাঁটতে হাঁটতে আমাকে সাবধানে থাকতে বললেন। আমি বললাম, আমি তো কারও বিরুদ্ধে গোপনে কিছু করছি না। মায়ার ব্যাপারে সন্দেহ করার মতো কিছু তো থাকতে পারে না। নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হোক আমি তো তাই চাচ্ছি।

সামরিক শাসন বলবৎ রেখে নির্বাচনের বিপক্ষে তো অন্যেরাও বলছেন, আমিও বলছি। সামরিক শাসন উঠিয়ে নির্বাচন দিলেও জেনারেল জিয়া সে নির্বাচনে বিপুল ভোটেই জয়ী হবেন, সে সম্পর্কে আমার কোনো সন্দেহ ছিল না। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তাকে সরালে সরকারই টিকবে না। নির্বাচনে জয়লাভ করার মতো বড়মাপের নেতৃত্ব আওয়ামী লীগে ছিল না। আমরা চেয়েছিলাম নির্বাচন সবদিক দিয়ে স্বচ্ছ এবং সবার কাছে গ্রহণীয় হোক।

জেনারেল জিয়া আমাকে তিন মাস ঢাকা জেলে আটক রাখলেন। সাথে ছিলেন খন্দকার মোশতাক, কেএম ওবায়দুর রহমান। প্রথম রাতে আমাদের মেঝেতে ঘুমাতে হলো। আবদ্ধ থাকার কষ্ট যা হবার তা হচ্ছিল। কিন্তু বাইরে থেকে সাজু আমাদের জন্য টিনজাত খাদ্য ও স্যুপ ইত্যাদি পাঠালো। জেল কর্তৃপক্ষ খুব সদয় ছিলেন। কোনোরূপ বাধা দেয়নি। বেশি বিরক্ত করেছি জেলের লাইব্রেরিয়ানকে। বই পড়ে সময় কাটানো ছাড়া আমার অন্য কোনো পথ ছিল না। আমি তাস খেলতে পারি না। তিনি মাস পরে ছাড়া পেলাম।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচ/জেডএ