ঢাকা, রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

৩০০ আসনে প্রার্থী দিয়ে কয়টিতে জয় পাবেন এরশাদ?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০১৮ রবিবার, ০৮:০২ এএম
৩০০ আসনে প্রার্থী দিয়ে কয়টিতে জয় পাবেন এরশাদ?

জাতীয় পার্টির (জাপা) নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত জাতীয় জোটের (ইউএনএ) মহাসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিত এই সমাবেশ থেকে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ৩০০ আসনে জাপার প্রার্থী দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন জোটের চেয়ারম্যান লে. জে. (অব.) হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। এছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আগামী নির্বাচনে জাপাই জিতবে বলে ভাষণ প্রদাণকালে মন্তব্য করেছেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি ও স্বৈরশাসক।

দুটি দল ও দুটি রাজনৈতিক জোটের সমন্বয়ে সম্মিলিত জাতীয় জোট (ইউএনএ) নামের একটি ‘বৃহত্তর জোট’ গঠন করেছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। এই জোটে দুটি নিবন্ধিত দলসহ মোট ৫৮টি দল রয়েছে। দলের সংখ্যার বিচারে এটি এখন দেশের সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক জোট।

যদিও এরশাদ জাপার হয়ে ৩০০ আসনে প্রার্থী দিয়ে জয় ছিনিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী কিন্তু অতীত ইতিহাস জাপার জয়ের পক্ষে ভবিষ্যৎবাণী করছে না। ১৯৮২ সালে সেনা অভ্যুত্থান ঘটিয়ে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল করা তৎকালীন সেনাবাহিনী প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ১৯৮৬ সালের ১ জানুয়ারি জাতীয় পার্টি প্রতিষ্ঠা করেন। গণঅভ্যুত্থানের মুখে ১৯৯০ সালের ডিসেম্বর মাসে এই স্বৈরশাসকের পদত্যাগের পর এ পর্যন্ত ৫টি জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে তাঁর গঠিত দল জাতীয় পার্টি।

১৯৯১ সালে অনুষ্ঠিত ৬ষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে ৩৫টি আসন লাভ করে জাতীয় পার্টি। এরপর ১৯৯৬ সালের ১২ জুন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলটি ৩২টি আসন লাভ করে। ওই নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন লাভ করেছিল আওয়ামী লীগ। নির্বাচনের পর জাতীয় পার্টি আওয়ামী লীগকে সরকার গঠনে সমর্থন দেয়।

দীর্ঘদিন জেলে থাকার পর এরশাদ ১৯৯৭ সালের ৯ জানুয়ারি জামিনে মুক্ত হন। নানা ঘটনা পরিক্রমায় ২০০০ সালে এসে নেতৃত্বের কোন্দলে জাতীয় পার্টি তিন ভাগে বিভক্ত হয়। সে সময়ে বিভক্ত হওয়া দলটি এখনও এরশাদ গ্রুপ, আনোয়ার হোসেন মঞ্জু গ্রুপ ও নাজিউর রহমান মঞ্জু গ্রুপে বিভক্ত। ২০০১ সালের সাধারণ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি (এরশাদ গ্রুপ) ১৪টি আসন লাভ করে।

এরপর ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নির্বাচনের আগে জাতীয় পার্টি (এরশাদ) আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটে যোগ দেয়। নির্বাচনে জাতীয় পার্টি জাতীয় সংসদের ২৭ টি আসন এবং মোট ভোটের ৭% লাভ করে।

উপরের পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায়, এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি সবসময়ই সংসদের খান ত্রিশেক আসন দখল করে রাখে কিন্তু এ পরিমাণ আসন কাউকে বিজয়ী করতে যথেষ্ট নয়। এছাড়া দেশের রাজনীতি অঙ্গনের অন্যান্য দলের তুলনায় জাতীয় পার্টির রাজনীতিকের সংখ্যা বেশি হলেও তা ৩০০ আসনে প্রার্থী দেওয়ার মতো কিংবা প্রার্থী দিলেও সরকার গঠন করার মতো যথেষ্ট নয় বলে মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা। তাই মহাসমাবেশ থেকে করা এরশাদের মন্তব্যকে অবাস্তব বলে মনে করছে দেশের রাজনৈতিক মহল।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচটি/জেডএ