ঢাকা, রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ঢাকা-১৭ আসন নিয়ে বেকায়দায় এরশাদ

বিশেষ প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার, ০১:০২ পিএম
ঢাকা-১৭ আসন নিয়ে বেকায়দায় এরশাদ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা-১৭ সংসদীয় আসনে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান লে. জে. (অব.) হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সঙ্গে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ‘টাগ অব ওয়্যার’ চলছে। আওয়ামী লীগ থেকে এখনো এ আসনে এরশাদকে গ্রিন সিগন্যাল দেওয়া হয়নি। জাপা চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদও কোনভাবেই এ আসনটি হাতছাড়া করতে রাজি নন।

ক্ষমতাসীন দলের একাধিক নেতা জানান, আওয়ামী লীগ কোনভাবেই রাজধানীর এলিট এ আসনটি ছাড়তে রাজি নয়। তাছাড়া বিএনএ জোটের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার নাজমুল হুদাকে এ আসন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজ করার গ্রিন সিগন্যাল দিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর গ্রিন সিগন্যালের পর পরই গুলশান-বনানী-ক্যান্টনমেন্টের একাংশ নিয়ে গঠিত ঢাকা-১৭ আসনে প্রচার-প্রচারণা চালান ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার চাচা আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর শিল্প বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান দোহার থেকে নির্বাচন করার ইচ্ছা প্রকাশ করায় নাজমুল হুদাকে গুলশান আসনে কাজ করার ইংগিত দেয়া হয়। এদিকে, আওয়ামী লীগের একাধিক পোঁড় খাওয়া নেতা নির্বাচন করার আগ্রহ প্রকাশ করে দলীয় মনোনয়ন ফরম ক্রয় করেছেন। আওয়ামী লীগের একটি সূত্র জানায়, কোন কারণে ঢাকা-১৭ আসনে নাজমুল হুদাকে মহাজোটের মনোনয়ন না দিলে এ আসন থেকে অবসরপ্রাপ্ত লে: কর্নেল ফারুক খান নির্বাচন করতে পারেন। কারণ হিসেবে তারা বলছেন, ফারুক খানের নিজ নির্বাচনী এলাকা গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থেকে শেখ পরিবারের কাউকে মনোনয়ন দেয়া হতে পারে। ঢাকা-১৭ আসন থেকে নির্বাচন করতে কর্নেল (অব.) ফারুক খানের কোনো আপত্তি নেই বলেও সূত্রটি নিশ্চিত করেছে।

এ বিষয়ে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফয়শল চিশতী বাংলা ইনসাইডারকে বলেন, জাপা চেয়ারম্যানের নির্ধারিত আসন এটি। নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন এইচএম এরশাদ। এ আসনে জাতীয় পার্টির ছাড় দেয়ার কোন প্রশ্নই আসেনা। তিনি জানান, স্যারের পক্ষে ইতিমধ্যেই এ আসনে তারা ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। ফয়শল চিশতী এইচএম এরশাদের মুল নির্বাচনী সমন্বয়ক-এর দায়িত্ব পালন করছেন।

বাংলা ইনসাইডার/জেডএ/জেডএ