ঢাকা, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

শরিকদের জন্য দেড়শো আসন চাইছে গণফোরাম

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৫ নভেম্বর ২০১৮ রবিবার, ১১:৩২ এএম
শরিকদের জন্য দেড়শো আসন চাইছে গণফোরাম

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এবং ২০ দলে যখন নির্বাচনের জন্য আসন ভাগাভাগিকে কেন্দ্র করে টানাপোড়েন তীব্র আকার ধারণ করেছে, ঠিক তখনই গণফোরাম উত্থাপিত এক ফর্মুলায় জোটে নতুন সংকট দেখা দিয়েছে। গতকাল শনিবার রাতে জাতীয় ক্ষমতার ভারসাম্য প্রতিষ্ঠার জন্য একটি দেড়শো-দেড়শো আসনের ফর্মুলা উপস্থাপন করেছে ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শরিক দল গণফোরাম। ঐক্যফ্রন্টের প্রধান শরিক দল বিএনপিকে আজ রোববার এই ফর্মুলা দেওয়া হবে।

গণফোরামের ফর্মুলায় বলা হয়েছে, ক্ষমতার ভারসাম্য প্রতিষ্ঠা ও ক্ষমতায় গিয়ে কোনো দল যাতে একক কর্তৃত্ব না করতে পারে তা নিশ্চিত করার জন্য নির্বাচনে বিএনপির দেড়শো প্রার্থীকে এবং ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটে বিএনপির অন্যান্য শরিক দলগুলোর দেড়শো প্রার্থীকে বিভিন্ন আসনে মনোনয়ন দিতে হবে। এতদিন বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের দলগুলো বিভিন্ন প্রার্থী তালিকা দিচ্ছিল এবং তারা কতগুলো আসন চায় সে তালিকা দিচ্ছিল। এর মধ্যেই হঠাৎ করে নাটকীয়ভাবে গতকাল দেড়শো আসনের ফর্মুলা উপস্থিত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি ড. সুব্রত চৌধুরী বলেন, ‘আমরা দেড়শো আসন না, আমরা চাই বিজয়ী হবেন এমন প্রার্থী। শুধু নির্বাচনে জয়লাভই আমাদের মূল উদ্দেশ্য নয়। নির্বাচনের পর যেন সুশাসন ও জবাবদিহিতার সরকার প্রতিষ্ঠা হয় এবং ক্ষমতার ভারসাম্য বজায় থাকে সেজন্যই আমরা এখন থেকেই বিষয়গুলো নির্ধারণ করতে চাই।’

গণফোরামের একটি সূত্র জানিয়েছে, এবারের নির্বাচনের জন্য গণফোরাম ১৬০টি আসনের একটি তালিকা করেছে। এই আসনগুলোতে তাঁরা মনোনয়ন প্রত্যাশী। মাহমুদুর রহমান মান্নার নাগরিক ঐক্যও ইতিমধ্যে ৩৫ জনের একটি প্রার্থী তালিকা গণমাধ্যমে প্রকাশিত করেছে। এছাড়া জাসদের আ স ম আব্দুর রব ঐক্যফ্রন্টের প্রধান শরিক বিএনপির কাছে ২০টি আসন দাবি করেছেন।

ঐক্যফ্রন্ট ছাড়াও ২০ দলীয় জোটের বিষয়টিও বিএনপিকে ভাবতে হচ্ছে। কিছুদিন আগে ২০ দলের সঙ্গে প্রাথমিক আলোচনায় এই জোটের শরিকদের জন্য ৩০ থেকে ৪০টি আসন ছেড়ে দেওয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিএনপি।

এখন আসন ভাগাভাগি প্রসঙ্গে শরিকদের এতসব দাবিদাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে একটি নীতিগত প্রশ সামনে চলে এসেছে যে, বিএনপি তার শরিকদের জন্য দেড়শো আসন ছেড়ে দেবে কিনা। কারণ বিএনপি যদি শরিকদের জন্য দেড়শো আসন ছেড়ে দেয় তাহলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলটি সবগুলো আসনে বিজয়ী হলেও সংসদে একক কর্তৃত্ব করতে পারবে না। সম্ভবত এমন একটি ধারণা থেকেই গণফোরাম দেড়শো-দেড়শো আসন ভাগাভাগির প্রস্তাব দিয়েছে।

গণফোরামের একটি সূত্র জানিয়েছে, গণফোরাম সভাপতি  ড. কামাল হোসেন এবং কয়েকটি বিদেশি দূতাবাস এই প্রস্তাব তৈরি করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচটি