ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

২৩ ডিসেম্বর দেশ দখল করবে বিএনপি-জামাত-ফ্রন্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮ বুধবার, ০৭:০০ পিএম
২৩ ডিসেম্বর দেশ দখল করবে বিএনপি-জামাত-ফ্রন্ট

৯ ডিসেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহার করবে না বিএনপি। ২২ ডিসেম্বরের পর একযোগে সারাদেশে নামবে বিএনপি-জামাত-ঐক্যফ্রন্ট। নির্বাচন কৌশল নিয়ে বিএনপির নীতি নির্ধারণী বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। স্থায়ী কমিটির সদস্য, গুরুত্বপূর্ণ কয়েকজন নেতার সঙ্গে লন্ডন থেকে তারেক জিয়া যুক্ত হন ঐ বৈঠকে। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে, আগামী ৮ ডিসেম্বর থেকে বিএনপি-২০দল এবং ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দের চিঠি দেওয়া হবে। একমাত্র এলডিপি ছাড়া বিএনপির সঙ্গে থাকা দুই জোটের সব দলই ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শেষ পর্যন্ত বিএনপির দুই শরিকের জন্য ৭৫টি আসন ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর মধ্যে সর্বাধিক ২৫টি আসন ছেড়ে দেওয়া হয়েছে জামাতকে। গণফোরামকে ১৫টি আসন ছাড় দেওয়ার ব্যাপারে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে বলেও জানা গেছে। যদিও ড. কামাল হোসেন গণফোরামকে অন্তত ২০টি আসন দেওয়ার অনুরোধ করেছেন। বিএনপির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘আমরা শেষ পর্যন্ত দেখতে চাই বিএনপির মনোনয়ন বাতিল হওয়া কতজন মনোনয়ন ফিরে পান। তারপর আমরা আসন ভাগাভাগি চূড়ান্ত করবো।’ তবে তিনি বলেন, ‘আসন ভাগাভাগি নিয়ে ২০ দল বা ঐক্যফ্রন্টে কোনো সমস্যা হবে না।’

বিএনপির দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে, নির্বাচন বর্জনের হুমকি দিলেও এখনই বিএনপি নির্বাচন থেকে সরে যাচ্ছে না। ৯ ডিসেম্বর বিএনপি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের কোনো নির্দেশনা দেবে না। বিএনপির একজন দায়িত্বশীল নেতা জানিয়েছেন, ‘যেহেতু বিএনপি বিপুল সংখ্যক কর্মীর বিরুদ্ধে মামলা এবং গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে, তাই ১১ ডিসেম্বর থেকেই ব্যাপক প্রকাশ্য প্রচারণায় যাবে না বিএনপি।’ ঐ নেতা বলেছেন, ‘প্রকাশ্য প্রচারণায় গেলেই বিএনপির কর্মীদের পুরনো মামলায় গ্রেপ্তার করা হতে পারে। এটাই সরকারের কৌশল বিএনপি মনে করে, সরকার নির্বাচনের আগে বিএনপিকে কর্মী শূন্য করতে চায়, যেন নির্বাচনের মাঠে বিএনপির কোনো কর্মী না থাকে। নির্বাচনের দিন বিএনপিকে এজেন্ট শূন্য করতে চায়। এজন্যই এবার নির্বাচনে ভিন্ন কৌশল নিচ্ছে বিএনপি।  

হাইকোর্টে এখন আগাম জামিনের হিড়িক পরে গেছে। গত একমাসে অন্তত ১৩ হাজার বিএনপির নেতা কর্মী হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন নিয়েছেন। এখনো গড়ে প্রতিদিন ২০০ থেকে ২৫০ জন জামিন নিচ্ছেন। জামিন নিয়েই কর্মীরা গা ঢাকা দিয়েছে। ভোটের এক সপ্তাহ আগে থেকে অর্থাৎ ২৩ ডিসেম্বর থেকে বিএনপি মাঠে নামতে চায়। বিএনপির একজন নেতা বলছেন, ‘৭ দিনের জন্য বিএনপি বাংলাদেশ দখলে রাখবে। একটা গণজোয়ার সৃষ্টি করে ভোট বিপ্লব করতে চায় বিএনপি। অবশ্য বিএনপির এই পরিকল্পনাকে ‘আকাশ-কুসুম’ কল্পনা বলেই মনে করছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন ‘যারা এক ঘণ্টার জন্য রাস্তায় থাকতে পারেনি, তাঁর করবে গণজোয়ার?’ তিনি বলেন, গণজোয়ার সৃষ্টি করতে জনগণ লাগে। বিএনপির সঙ্গে জনগণ নেই।’

বাংলা ইনসাইডার/জেডএ