ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

আপিল শুনানিতে ৮৯ ঘণ্টা সময় লাগবে!

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮ বুধবার, ০৭:৩০ পিএম
আপিল শুনানিতে ৮৯ ঘণ্টা সময় লাগবে!

জাতীয় নির্বাচন উপলক্ষে মনোনয়নপত্র বাতিলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ৩য় দিনে (বুধবার) ২১৬ জন আপিল করেছেন নির্বাচন কমিশনে (ইসি)। এর ফলে  মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া ৭৮৬ জনের মধ্যে  তিন দিনে মোট ৫৩৫ জন আপিল করেছেন। নির্বাচন কমিশন সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

আপিলে শুনানি হবে ৬ ডিসেম্বর থেকে ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত। শুনানি প্রকাশ্যে আদালতের অনুরুপ এজলাসে অনুষ্ঠিত হবে। একক এ আদালত বসবে কমিশনের ১১ তলায়। এক আদালতে এতগুলো মনোনয়নের শুনানিতে বেশ ধকল পোহাতে হবে নির্বাচন কমিশনকে। প্রতি মনোনয়নে ১০ মিনিট সময় ব্যয় হলে ৫৩৫০ মিনিট বা ৮৯ ঘন্টা বা প্রায় চার দিন। এ হিসাবে রাত দিন ২৪ ঘণ্টা ধরা হয়েছে। কিন্তু এ সময় নির্বাচন কমিশন পাবে না, টানা ২৪ ঘন্টা শুনানিও হবে না। তাহলে কীভাবে এ মনোনয়নের শুনানি হবে, কোনো যুক্ততর্ক ছাড়াই এ শুনানি হবে কিনা এ নিয়েও প্রশ্ন জনমনে। শুনানিতে প্রার্থীর আইনজীবীও উপস্থিত থাকতে পারবেন। এ শুনানি প্রকাশ্যে হবে বলে কমিশন সূত্রে জানা যায়। তবে কমিশন সূত্রে আরো জানা যায়, শুনানির জন্য এত সময় নেওয়ার সুযোগ নেই। প্রতি মনোয়নের সময় নেওয়া হতে পারে কয়েক মিনিট মাত্র। সেক্ষেত্রে অদৌ কি কার্যকর শুনানি সম্ভব?

অবশ্য এরই মধ্যে ইসি সচিব বলেছেন, মাত্র এই কয়েকদিনে আপিল শুনানি সম্ভব নয়। অবশ্য এ ব্যাপারে ইসি কী সিদ্ধান্ত নিবে তা এখনো জানানো হয়নি। 

প্রার্থীদের আপিলের ওপর ৬, ৭ ও ৮ ডিসেম্বর শুনানি হবে। আগামী বৃহস্পতিবার থেকে পরবর্তী তিনদিন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বে পূর্ণাঙ্গ কমিশন আপিলের ওপর শুনানি করে সিদ্ধান্ত প্রদান করবে। ইসির এই সিদ্ধান্তে কেউ ক্ষুব্ধ হলে আদালতে যেতে পারবেন।

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে ৩ হাজার ৬৫ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। যাচাইয়ের পরে ৭৮৬ জনের প্রার্থিতা বাতিল করেন রিটার্নিং অফিসাররা। এর ফলে বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা বর্তমানে ২ হাজার ২৭৯ জনে। পুনঃতফসিল অনুযায়ী আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ ডিসেম্বর, নির্বাচনী প্রচারের শেষ দিন ২৮ ডিসেম্বর এবং ৩০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলা ইনসাইডার/এসএ/জেডএ