ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

আসন নিয়ে ভাঙনের মুখে ২০ দল

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮ শুক্রবার, ০৫:০০ পিএম
আসন নিয়ে ভাঙনের মুখে ২০ দল

এবারের নির্বাচনে বিএনপি দুইটি শরিক জোট নিয়ে অংশ নেওয়ার পরিকল্পনা এঁটেছিল। ২০ দলীয় ঐক্যজোট দীর্ঘদিন ধরেই বিএনপির নেতৃত্বে চলছিল। কার্যত ২০০১ সাল থেকেই এই জোট একসঙ্গে কাজ করছে। জোটে বিএনপি এবং জামাত হলো প্রধান দুই দল। অন্যদিকে জামাতের কলঙ্ক মোচনের জন্যই নির্বাচনের আগে আগে বিএনপি ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করে। এখন এই দুই শরিকের দাবি মেটাতেই বিএনপিকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আসন ভাগাভাগি অনিষ্পন্ন রেখেই ২০ দল নিয়ে আবার নতুন সঙ্কটে পড়েছে বিএনপি।

২০ দলের একাধিক শরিক দল বলছে, যদি আসন ভাগাভাগি নিয়ে বৈষম্য করা হয় তবে তারা জোট থেকে বেরিয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে আলাদাভাবে নির্বাচন করারও পরিকল্পনা করছে তারা। ২০ দলের দ্বিতীয় প্রধান দল জামায়াতে ইসলামীকে ২৫টি আসনে ধানের শীষ প্রতীক দেওয়া হয়েছে। কিন্তু জামায়াতে ইসলামী এতে সন্তুষ্ট নয়। তারা অন্তত ৩০টি আসন দাবি করছে। এছাড়াও ২০দলের অন্যতম শরিক এলডিপি, বিজেপি এবং কল্যাণ পার্টির কেউই আসন বন্টন নিয়ে সন্তুষ্ট নন।

এলডিপির একজন নেতা বলেছেন, যেখানে নাগরিক ঐক্যের মতো নাম সর্বস্ব দলকে ৯টি আসনে ধানের শীষ প্রতীক দেওয়া হয়েছে, সেখানে এলডিপিকে ৪টি আসন দেওয়া অন্যায্য এবং অগ্রহণযোগ্য। একইভাবে ২০ দলের ইসলামী শরিক দলগুলো বলছে, ঐক্যফ্রন্টের নাম-গোত্রহীন দলগুলোকে যেভাবে ছাড় দেওয়া হয়েছে ২০দলের প্রতি ততটাই অবিচার করা হচ্ছে।

বিএনপির নির্বাচন সংক্রান্ত পরিচালিনা কমিটির প্রধান নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, ‘আসন ভাগাভাগি নিয়ে আমাদের কিছু সমস্যা আছে। তবে আমরা এগুলো কাটিয়ে ফেলতে পারব বলে আশা করছি।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, ২০ দলের মূল সমস্যা হচ্ছে, তারা কতটি আসন পাবে সেটা না ভেবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে বেশিমাত্রায় ছাড় দেওয়া নিয়ে অভিযোগ করছে। তারা মনে করছে, যেভাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে ছাড় দেওয়া হচ্ছে, সেভাবে যদি ২০ দলকে ছাড় দেওয়া না হয় তা হবে অগ্রহণযোগ্য। কারন ২০ দলই দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির দুঃসময়ের সঙ্গী হয়ে আছে।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি