ঢাকা, বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রাষ্ট্র ধর্ম বাতিল চায় ফ্রন্ট, বিএনপির না

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ বুধবার, ০৭:৫৯ পিএম
রাষ্ট্র ধর্ম বাতিল চায় ফ্রন্ট, বিএনপির না

নির্বাচনী ইশতেহার চূড়ান্ত করা নিয়ে বিএনপির সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের মতবিরোধ দেখা দিয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে জাতির পিতা হিসেবে স্বীকৃতি সহ পাঁচটি বিষয়ে শরীকদের সঙ্গে একমত হতে পারছে না বিএনপি। আগামীকাল বৃহস্পতিবার এ নিয়ে ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে স্কাইপে কথা বলবেন লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়া। উল্লেখ্য, বিএনপির নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করার কথা ছিল এ সপ্তাহেই। কিন্তু ইশতেহারের মৌলিক কিছু বিষয়ে একমত না হওয়ায় ইশতেহার চূড়ান্ত হয়নি। ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহারে যে বিষয়গুলো নিয়ে বিএনপির সঙ্গে মতদ্বৈততার সৃষ্টি হয়েছে সেগুলো হলো-

১. ঐক্যফ্রন্ট প্রণীত খসড়া নির্বাচনী ইশতেহারের শুরুতেই বলা হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে স্বপ্ন নিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিলেন সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হবে। বিএনপি এই বক্তব্যের ব্যাপারে তীব্র আপত্তি জানিয়েছে। বিএনপি বলেছে, এ ধরনের বক্তব্য নির্বাচনী ইশতেহারে প্রয়োজন নেই।

২. জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট তার নির্বাচনী ইশতেহারে ৭২ এর সংবিধানের পুর্নাঙ্গ বাস্তবায়নের অঙ্গীকার করেছে। এ ব্যাপারে বিএনপি একমত হতে পারেনি।

৩ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট তার নির্বাচনী খসড়া ইশতেহারে জাতীয় চার নেতার প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছে। কিন্তু বিএনপি বলছে নির্বাচনী ইশতেহারে এসব কথার দরকার নেই। 

৪. জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের খসড়া ইশতেহারে বলা হয়েছে, ‘অসম্প্রদায়িক রাজনীতির চর্চা করতে হবে। রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম বিধান বাতিল করা হবে।’ বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে এটা হবে আত্মঘাতি। বিএনপি এটি সমর্থন করে না।

৫. খসড়া নির্বাচনী ইশতেহারে ‘সংখ্যালঘু নিপীড়ন বন্ধ, অর্পিত সম্পত্তি আইন পূর্নাঙ্গ বাস্তবায়ন করার অঙ্গীকার করা হয়েছে। বিএনপি বলছে, এটা বিতর্কিত বিষয় এনিয়ে নির্বাচনী ইশতেহারে কিন্তু থাকা উচিত নয়।

৬. জাতীয় ঐক্য ফ্রন্ট নির্বাচনী ইশতেহারে বলেছে ‘রাজনীতি থেকে পরিবার তন্ত্রের অপসারন করার কার্যকর উদ্যোগ নেয়া হবে। কিন্তু বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এগুলো স্পর্শকাতর বিষয়।

বিএনপির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান নজরুল ইসলাম খান, ইশতেহারে কিছু মতপার্থক্যের কথা স্বীকার করে বলেন ‘ইশতেহার তৈরী করতে গেলে ছোট খাট মতপার্থক্য হতেই পারে। কিন্তু এগুলো কোন বড় বিষয় নয়। আমাদের মধ্যে আলোচনা হচ্ছে। আলাপ- আলোচনার মাধ্যমে এগুলো আমরা সমাধান করবো।

বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ