ঢাকা, সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৬ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মৌলভীবাজারের ৪ আসন: নৌকা ২, ধানের শীষ ২

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ রবিবার, ১০:৫৯ এএম
মৌলভীবাজারের ৪ আসন: নৌকা ২, ধানের শীষ ২

মৌলভীবাজার জেলায় নির্বাচনী আসন রয়েছে ৪টি। এই আসনগুলোর রাজনৈতিক ঘটনা প্রবাহ এবং তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষণ করে বাংলা ইনসাইডার প্রেডিক্ট করছে এখানে নৌকা ২টি এবং ধানের শীষ ২টি আসনে জয় পেতে যাচ্ছে।

মৌলভীবাজার-১

মৌলভীবাজার-১ জাতীয় সংসদের ২৩৫নং আসন। এই আসনের নির্বাচনী এলাকায় রয়েছে জুড়ী ও বড়লেখা উপজেলা। এটা ঐতিহাসিকভাবেই আওয়ামী লীগের আসন। এখানে নৌকার প্রার্থী শাহাব উদ্দিন। আর বিএনপির প্রার্থী হয়েছেন নাসির উদ্দিন আহমেদ। শাহাব উদ্দিন এই আসনের তিনবারের এমপি। নিঃসন্দেহেই এলাকায় তিনি অত্যন্ত প্রভাবশালী। প্রচার প্রচারণাতেও যথেষ্ট এগিয়ে। এজন্য আমরা মনে করছি এবারের নির্বাচনে নৌকাই এখানে জয়লাভ করবে।  

মৌলভীবাজার-২

মৌলভীবাজার-২ থেকে মহাজোটের প্রার্থী হয়েছেন বিকল্পধারার এম এম শাহীন। অন্যদিকে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ঐক্যফ্রন্টের সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহম্মদ। এবারই প্রথম ধানের শীষের হয়ে ভোটযুদ্ধে নেমেছেন তিনি। এর আগে বেশ কয়েকটি নির্বাচনে সুলতান মোহাম্মদ মনসুর নৌকা প্রতীকে প্রার্থিতা করেছেন। এর মধ্যে ১৯৯৬ সালে তিনি সাংসদ হন। মৌলভীবাজার-২ আসনের নির্বাচনী এলাকায় রয়েছে কুলাউড়া উপজেলা এবং কমলগঞ্জ উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন। এই এলাকাগুলোতে এম এম শাহীনের প্রভাব কম। একারণে বাংলা ইনসাইডার মনে করছে ধানের শীষের সুলতান মোহাম্মদ মনসুরই এখানে শেষ হাসি হাসবেন।

মৌলভীবাজার-৩

এই আসনটি রাজনগর ও মৌলভীবাজার সদর উপজেলা নিয়ে গঠিত। এটি সাবেক অর্থমন্ত্রী ও বিএনপি নেতা সাইফুর রহমানের আসন। এখানে আওয়ামী লীগের নেসার আহমেদের সঙ্গে লড়ছেন বিএনপির নাসের রহমান। নাসের রহমান সাইফুর রহমানের ছেলে। নাসের তাঁর কিছু কর্মকাণ্ডের জন্য সমালোচিত হলেও এলাকায় সাইফুর রহমানের একটা বিশাল সমর্থক শ্রেণী রয়েছে। সেজন্য এই আসনটি ধানের শীষের দখলে যাবে বলে বাংলা ইনসাইডার প্রেডিক্ট করছে।

মৌলভীবাজার-৪

এই আসনটি ঐতিহাসিকভাবেই আওয়ামী লীগের এলাকা। স্বাধীনতার পর ১৯৮৮ সাল বাদে প্রতিটি নির্বাচনেই এখানে জয় পেয়েছে নৌকার প্রার্থী। এই আসনের নির্বাচনী এলাকার মধ্যে রয়েছে শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জ উপজেলা। এখানে বিএনপির প্রার্থী মজিবুর রহমান চৌধুরী। আর আওয়ামী লীগের হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আবদুস শহীদ। আবদুস শহীদ এলাকার প্রভাবশালী নেতা। অতীতের প্রায় সব নির্বাচনে অংশ নিয়েই তিনি জয়ী হয়েছেন। অন্যদিকে বিএনপি কখনোই এখানে জয় পায়নি। এবারো এখানে অনেকটা একতরফাভাবে আওয়ামী লীগ জয়ী হবে বলে মনে করছি আমরা।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি/এমআর