ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

দেখা পাওয়া যাচ্ছে না কনকচাঁপার

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২০ ডিসেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ০৪:২৮ পিএম
দেখা পাওয়া যাচ্ছে না কনকচাঁপার

নৌকার দুর্গখ্যাত সিরাজগঞ্জ-১ আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীক তুলে দেয়া হয়েছে জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত কণ্ঠশিল্পী রুমানা মোর্শেদ কনকচাঁপাকে। তবে এখন পর্যন্ত নির্বাচনে মাঠে তাঁর দেখা পাওয়া যাচ্ছে না।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এবং বিএনপির নীতি নির্ধারকরা জনপ্রিয় শিল্পী কনকচাঁপার জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে ধানের শীষের পক্ষে গণজোয়ারের সৃষ্টি করতে এই আসনে তাকে মনোনয়ন দিয়েছিল। কিন্তু নির্বাচনী প্রচারণার শুরু থেকে এখনও পর্যন্ত ভোটাররা চোখেই দেখেননি তাকে। এমনকি এলাকায় তার নির্বাচনী পোস্টার, ব্যানার কিংবা ফেস্টুনও দেখা যায়নি।  

জানা যায় গত কয়েকদিন আগে কনকচাঁপা সিরাজগঞ্জ শহরের হোসেনপুরে অবস্থিত কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর বাসায় অবস্থান করলেও নির্বাচনী এলাকায় যাননি এবং কোন ধরণের প্রচারণায়ও অংশগ্রহণ করেননি। স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মীরা প্রচারণায় নামার জন্য মুখিয়ে থাকলেও গত ১১ দিনে প্রার্থীর দেখা না পেয়ে তীব্র ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করেছেন তাঁরা।

গত ১৭ ডিসেম্বর সোমবার দুপুরে কনকচাঁপা জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে বগুড়া পর্যটন মোটেলে সংবাদ সম্মেলনও করেন। কাজীপুরে কনকচাঁপার কোন বাড়ি না থাকায় কর্মী সমর্থকরাও তাকে খুঁজে পাচ্ছেন না। কাজীপুর উপজেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা লাকী খাতুন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘এক মাসের মতো হয়ে গেল কনকচাঁপা এলাকায় আসেননি, ভোটও চাননি কারও কাছে। আমাকে লোকজন কনকচাঁপা কোথায় জানতে চাইলে তার কোনো দিতে পারি না।’

 কাজীপুর উপজেলা বিএনপির সদস্য মিজানুর রহমান বাবলুও হতাশা প্রকাশ করে বলেন, ‘আমাদের মতো আমরা কাজ করে যাচ্ছি। তবে প্রার্থী যদি না বলে তাহলে আমরা কর্মীরা কিভাবে প্রচারণায় নামবে? কাজীপুরে তার কোনো বাড়ি পর্যন্ত নাই, যেখানে গিয়ে নেতাকর্মীরা তার সঙ্গে দেখা করবে।’ 

এ বিষয়ে রুমানা মোর্শেদ কনকচাঁপা বলেন, ‘১০ ডিসেম্বর থেকে আমি কাজীপুরের পূর্ব-পশ্চিম ও উত্তর-দক্ষিণ দিয়ে ঘুরছি। আওয়ামী লীগের হুমকি-ধামকির ভয়ে আমি কাজীপুরে ঢুকতে পারছি না। বিষয়গুলো আমি জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক কামরুন নাহার সিদ্দীকাকে লিখিতভাবে অবগত করলেও কোনো ব্যবস্থা নেননি তিনি। রিটার্নিং কর্মকর্তার ওপর আস্থা না পেয়ে আমি জীবননাশের ভয়ে পার্শ্ববর্তী জেলায় অবস্থান করে সংবাদ সম্মেলন করেছি।’

দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ আছে কি না এমন প্রশ্নে বিএনপি প্রার্থী কনকচাঁপা বলেন, ‘আমি নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেছি। অনেককেই মোবাইলে কল দিয়েছি। দুই একজনকে মোবাইল ফোনে পাইনি। তাদের সঙ্গেও যোগাযোগের চেষ্টা করছি।’

বাংলা ইনসাইডার/আরকে/এমআর