ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৯, ৯ মাঘ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

সংলাপ চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে আবার চিঠি দেবে ঐক্যফ্রন্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারি ২০১৯ রবিবার, ১১:০০ এএম
সংলাপ চেয়ে প্রধানমন্ত্রীকে আবার চিঠি দেবে ঐক্যফ্রন্ট

নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবার চিঠি দেবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। নির্বাচনের পর নতুন আঙ্গিকে কাজ শুরু করতে চাওয়া জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বিএনপিকে জামাত ছাড়ার আল্টিমেটাম দিয়েছে। আগে যে বিতর্ক ছিল তা থেকে নিজেদের মুক্ত করতে চায় তারা। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে জামাত ছাড়ার আল্টিমেটাম দিয়েছেন। এ ব্যাপারে বিএনপির আনুষ্ঠানিক ঘোষণার অপেক্ষায় আছে ঐক্যফ্রন্ট।

একাধিক সূত্র বলেছে, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বিএনপিকে ছাড়া একটি বৈঠক করেছে। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে, বিএনপি যদি জামাতকে ছাড়তে না পারে তাহলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বিএনপিকে ছাড়াই কাজ শুরু করবে এবং বাম গণতান্ত্রিক জোটকে সঙ্গে নিয়ে নতুনভাবে ধাপে ধাপে একটি নতুন নির্বাচনের জন্য আন্দোলন শুরু করবে।

আন্দোলনের প্রক্রিয়া কী হবে সে সম্পর্কে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম নেতা সুব্রত চৌধুরী বলেছেন, প্রথমে আমরা সংলাপের আহ্বান জানিয়ে আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবার একটি চিঠি দেবো। তিনি যেন সংলাপের জন্য দিনক্ষণ দেন। প্রধানমন্ত্রী যদি সংলাপের আহ্বান প্রত্যাখান করেন তাহলে সেক্ষেত্রে আমরা সারাদেশে জনসংযোগ করবো। নির্বাচনে যে কারচুপি হয়েছে, তার তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করবো। এই তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে একটি জাতীয় সংলাপের আয়োজন করবো যেখানে সরকারী দল যদি নাও আসে তাহলে অন্য সকল দল ও শ্রেণি-পেশার মানুষকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। এই জাতীয় সংলাপের মাধ্যমে আমরা পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করবো।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আরেক নেতা মোস্তফা মহসীন মন্টু বলেছেন, এখন আমরা মূলত জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য জনসচেতনতামূলক কাজ করা এবং নির্বাচনে যে অনিয়ম হয়েছে তা জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক মহলে তুলে ধরার কাজটাই করবো। রাজপথের আন্দোলনের ব্যাপারে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে তিনি জানিয়েছেন।

তবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের একাধিক নেতা বলেছেন, তারা দীর্ঘমেয়াদী আন্দোলনেরই প্রস্তুতি নিচ্ছে। তারা মনে করছে যে, নতুন সরকার কেবলই দায়িত্ব নিয়েছে। এই মুহূর্তে রাজপথের আন্দোলন বা জ্বালাও-পোড়াও এর চেয়ে মানুষকে সচেতন করার বিষয়টি বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সেই কাজটিই তারা করবে। একইসঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট একটি বৃহত্তর মঞ্চ গড়ে তুলতে চায়। যেখান থেকে সবগুলো দল একটি নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি উত্থাপন করতে পারে। সে মঞ্চে তারা কোনোভাবেই জামাত এবং ইসলামী দলগুলোকে রাখতে চায় না। আর একারণেই বিএনপিকে জামাত ছাড়ার আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে বিএনপির পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি।

বাংলা ইনসাইডার/এমআর