ঢাকা, সোমবার, ১০ মে ২০২১, ২৭ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

সংসদে একাট্টা হচ্ছে বিরোধীদল

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৭ মে ২০১৯ শুক্রবার, ০৭:০০ পিএম
সংসদে একাট্টা হচ্ছে বিরোধীদল

আসন্ন বাজেট অধিবেশনে অন্যরূপে দেখা যাবে জাতীয় সংসদকে। এবারই প্রথম জাতীয় সংসদে বিরোধী দল স্বরুপে আবির্ভূত হবে একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করেছে। জাতীয় পার্টি, বিএনপি এবং গণফোরাম  সংসদে ঐক্যবদ্ধভাবে বিরোধী দল হিসেবে কাজ করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে। এ ব্যাপারে তাঁদের মধ্যে আলাপ আলোচনা চলছে। জাতীয় পার্টির একজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন যে, ‘এবার জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ অসুস্থ। জিএম কাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। জাতীয় পার্টিকে আপনারা সত্যিকার বিরোধী দল হিসেবে দেখবেন। সরকারের বিভিন্ন ভুল সিদ্ধান্ত, নীতির সমালোচনা করা হবে বাজেট অধিবেশনে।’

উল্লেখ্য, আগামী ১১ই জুন থেকে বাজেট অধিবেশন শুরু হচ্ছে। ১৩ই জুন জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী বাজেট পেশ করবেন। বাজেটকে ঘিরেই রাজণীতিতে নতুন মেরুকরণের চেষ্টা করছে দেশের বিরোধী দলগুলো। জাতীয় সংসদের সূত্রে জানা গেছে, প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি, সংসদে নাটকীয়ভাবে শপথ নেওয়া বিএনপি এবং দুই সদস্যবিশিষ্ট গণফোরাম অভিন্ন অবস্থান নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলতে চায় জাতীয় সংসদে। জাতীয় পার্টির একজন নেতা বলেছেন যে, ‘সংসদকে আমরা প্রাণবন্ত করতে চাই। এমন একটি প্লাটফর্ম করতে চাই সংসদকে যেখানে মানুষের অভাব-অভিযোগ, দুঃখ, দুর্ভাবনা, কষ্টের কথাগুলো আমরা বলতে পারবো এবিং এর মাধ্যমেই সংসদ কার্যকর হওয়া সম্ভব।’ 

একটি সূত্র বলছে যে, বিএনপির যে পাচজন নির্বাচিত সংসদ সদস্য সংসদে গেছেন তাঁরা এবিষয়ে জাতীয় পার্টির সঙ্গে কথা বলেছেন। তাঁদেরকে বিএনপি নেতৃবৃন্দ ব্রিফ করছেন তাঁদেরকে কীভাবে কথা বলতে হবে। তাঁরা মূলত এই বাজেট অধিবেশনে তিনটি বিষয় নিয়ে কথা বলবেন। একটা হলো, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি; দ্বিতীয়, বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের বিষয়; তৃতীয়ত, বাজেটে বিভিন্ন বিষয়ে সমালোচনা করা।

সূত্রগুলো বলছে, ঈদের পরপরই সংসদ অধিবেশনের আগে সবগুলো বিরোধী দল ঐক্যবদ্ধভাবে বসবে এবং সংসদে তারা কোন কোন বিষয়ে সরকারকে আক্রমন করবে, সরকারের সমালোচনা করবে তা নির্ধারণ করবে বলে জানা গেছে। জাতীয় পার্টির একজন নেতা বলেছেন যে, আমরা যদি কার্যকর সংসদ করতে চাই তাহলে জাতীয় পার্টিকে খোলস ছেড়ে বিরোধী দল হতে হবে। জাতীয় পার্টি গত মেয়াদে যেটা করেছে, সেটা বিরোধী দলের ভূমিকা নয়। বরং জাতীয় পার্টি যদি সত্যিকার অর্থে বিরোধী দল হিসেবে আবির্ভূত হতে চায়, তাহলে এটাই তার সুযোগ এবং সবগুলো বিরোধী দলকে নিয়েই সংসদকে মুখোর রাখতে পারে।

উল্লেখ্য যে, ১৯৯১ সালেও আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে সবগুলো বিরোধী দলই ঐক্যবদ্ধভাবে সংসদে কাজ করেছে। এবার যদিও বিরোধী দলের সংখ্যা কম। তবে বিএনপির নেতা জাহিদুল ইসলাম জাহিদ মনে করছেন যে, বিরোধী দল কম হলেও আমরা অর্থবহ ভূমিকা রাখতে পারবো বলে জানা গেছে। একটি সূত্র আভাস দিয়েছে যে, জাতীয় পার্টি বিএনপি এবং গণফোরামের সঙ্গে অভিন্ন অবস্থান না নিলেও সরকারের ভুল পদক্ষেপ ও বিভিন্ন কার্যক্রমের মুখোমুখি হবে আওয়ামী লীগের শরিক ওয়ার্কাস পার্টি এবং জাসদও। তারা সরকারের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে এবার জাতীয় সংসদ মুখোর করবে বলে জানা গেছে। কাজেই বাজেট অধিবেশনে সরকারকে একটি নতুন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে। এতদিন সংসদের অধিবেশনে যেমন ছিলো আওয়ামী লীগের স্তুতিতে ভরা এবং এবার হয়তো সেই পরিস্থিতি পাল্টে যাবে বা বিএনপির গণফোরাম সম্মিলিতভাবে সমালোচনা করবে। এরফলে সংসদ কতটা প্রানবন্ত হয় সেটাই দেখার বিষয়। 

 

বাংলা ইনসাইডার