ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

টকশো করেই মন্ত্রী-এমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২০ মে ২০১৯ সোমবার, ০৭:০০ পিএম
টকশো করেই মন্ত্রী-এমপি

দলের অনেক সিনিয়র এবং ত্যাগীদের পিছনে ফেলে সংরক্ষিত নারী আসনে বিএনপির মনোনয়ন পেলেন রুমিন ফারহানা। বেগম জিয়ার ঘনিষ্ঠ সেলিমা রহমান, বিএনপির রাজনীতিতে জনপ্রিয় শামা ওবায়েদ কিংবা রাজপথের লড়াকু নিপুণ রায় চৌধুরীকে হটিয়ে টকশো করেই পরিচিতি পাওয়া রুমিনের মনোনয়ন বিএনপিতেও বিস্ময় ছড়িয়েছে। জানা গেছে, লন্ডন থেকে তারেক জিয়াই রুমিনের মনোনয়ন চুড়ান্ত করেন। রুমিনের রাজনৈতিক পরিচয় গুরুত্বপূর্ণ নয়। ভাষাসৈনিক অলি আহাদের কন্যা, ব্যাস এতটুকুই। তিনি পরিচিতি পান টকশো করে।

এখন দেশের রাজনীতি নেই। নেতা হওয়ার জন্য এখন সংগঠনের জন্য কাজ করতে হয় না। সারাদেশ চষে বেড়াতেও হয় না। নেতা হতে এখন জনগণের কাছে যেতেও হয় না। নেতা হতে চাই কয়েকটি টকশোতে অংশগ্রহণ করা। টকশো করেই মন্ত্রী বা এমপি হওয়ার সংখ্যা কম নয়। টকশো করেই আওয়ামী লীগ আওয়ামী লীগের মতো দলের মনোনয়ন পান অ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম। এমপি হওয়ার পর প্রথম ধাক্কাতেই হয়েছেন পূর্ণমন্ত্রী। বর্তমানে গৃহায়ন এবং গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা এই মন্ত্রী সুপ্রীম কোর্টে আওয়ামী ঘারানার রাজনীতির সঙ্গেই শুধু খানিকটা জড়িত ছিলেন। এছাড়াও চট্টগ্রামের নেতা মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছেলে মহিবুল হাসান চৌধুরী আলোচনায় আসেন টকশো করে। টকশোর বদৌলতেই তিনি চটজলদি উপমন্ত্রী হয়েছেন বলে ধারণা অনেকের।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম পেশায় ব্যবসায়ী। ২০০৮ সালে এমপি হন বটে কিন্তু পরিচিতি পাননি। ২০১৪-র পর তিনি টেলিভিশন মুখী হন। বিভিন্ন টকশোতে তার উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। এবার তার পুরস্কারও তিনি পেয়েছেন। প্রথম ধাক্কাতেই পূর্ণমন্ত্রী। তাও আবার স্থানীয় সরকারের মতো গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়।

নিউইয়র্ক জাতিসংঘের স্থায়ী প্রতিনিধির, চাকরি শেষ করে দেশে ফেরেন বর্তমান পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ.কে আবদুল মোমেন। এরপর তিনি বসে থাকেননি। এলাকায় যান আর না যান, টকশোতে নানা বিষয়ে কথা বলেছেন বিরামহীন। আর তার পুরস্কার তো পেলেন নগদ নগদ।   

২০০৮ সালের নির্বাচনে এমপি হয়েছিলেন শাহরিয়ার আলম। এরপর বিভিন্ন স্যাটেলাইট টেলিভিশনে নিয়মিত সরব ছিলেন। ২০১৪তে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। অবশ্য শুধু মন্ত্রী এমপি নয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সরকারি ভালোপদ কিংবা ভালো পোস্টিং এর জন্যও অনেক টকশোতে অংশ নেন। সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান হওয়ার জন্য একজন সাবেক ভিসিকে টেলিভিশন পর্দায় সরব দেখা যাচ্ছে। তবে টকশো করে যে সবার ভাগ্য খোলে এমন নয়, এমন অনেকে আছেন (দুই দলেই) যারা টকশোতে গলা ফাটিয়েই দলের নেতৃত্বের দৃষ্টি আকর্ষণ লাভ করতে পারেননি।  

 

বাংলা ইনসাইডার