ঢাকা, সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

এসপি হারুন: আইভি পক্ষে, শামীম ওসমান বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮ নভেম্বর ২০১৯ শুক্রবার, ০৫:০০ পিএম
এসপি হারুন: আইভি পক্ষে, শামীম ওসমান বিরুদ্ধে

নারায়ণগঞ্জের বহুল আলোচিত, বিতর্কিত এসপি হারুনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগগুলো উঠেছে, সেগুলোও তদন্ত করা হবে বলেও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন। এসপি হারুনকে নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রত্যাহার করায় সবচেয়ে বেশি উল্লসিত হয়েছেন শামীম ওসমান।

বিভিন্ন সূত্রমতে, শামীম ওসমান এই ঘটনায় দলের নেতাকর্মীদের বলেছেন যে, হারুনের বাড়াবাড়ি ছিল সীমাহীন পর্যায়ে। তার সেই বাড়াবাড়ির শাস্তি হয়েছে। উল্লেখ্য, ত্বকী হত্যাকাণ্ডের ঘটনার জের হিসেবে শামীম ওসমানের আত্মীয়ের বাড়িতে পুলিশ অভিযান পরিচালনা করেছিল। এই এসপি হারুনই ত্বকী হত্যাকাণ্ড নতুন করে তদন্ত শুরু করেছিল। এই নিয়ে শামীম ওসমানের সঙ্গে এসপি হারুনের বিরোধ দেখা দিয়েছিল। এই বিরোধের অংশ হিসেবেই শামীম ওসমান প্রকাশ্যে অনুষ্ঠান করে হারুনের বিরুদ্ধে কথা বলেছিল এবং হারুনকে সতর্ক করে দিয়েছিলেন। এর কয়েকদিন পরেই হারুনের এই প্রত্যাহারের ঘটনাটি ঘটলো।

জানা গেছে যে, এসপি হারুনের প্রত্যাহারের পরই শামীম ওসমান এসপি হারুনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ একাট্টা করে শেখ হাসিনার কাছে দিয়েছেন। এর আগেও হারুন এসপির দায়িত্ব পালনকালেও তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ প্রধানমন্ত্রীর কাছে দিয়েছিলেন।

অন্যদিকে এসপি হারুনকে নিয়ে বিতর্ক থাকলেও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভি ছিলেন হারুনের পক্ষে। হারুনকে প্রত্যাহারের পর তিনি হারুনের বিভিন্ন ভালো কর্মকাণ্ড নিয়ে সরকারের উচ্চপর্যায়ে যোগাযোগ করছেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। আইভি মনে করতেন যে, নারায়ণগঞ্জে দুর্বৃত্তায়ন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তিনি কঠোর অবস্থান নিয়েছিলেন। তাই সেলিনা হায়াত আইভি এখন হারুনের পক্ষে বিভিন্ন মহলে দেনদরবার করছেন বলেও খবর পাওয়া গেছে।

নারায়ণগঞ্জের শামীম ওসমান এবং সেলিনা হায়াত আইভি সবসময় পরস্পর বিপরীত দিকে অবস্থান করেন যেকোনো বিষয়ে। নারায়ণগঞ্জে তাদের এই বিভক্তিই হলো আওয়ামী লীগের সবচেয়ে বড় সৌন্দর্য। এখন দেখা গেলো যে, এসপি হারুনকে নিয়েও নারায়ণগঞ্জের এই দুই নেতা বিরোধে জড়িয়ে পড়েছেন।

বাংলা ইনসাইডার