ঢাকা, রোববার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জেনারেল মঈন অসুস্থ; দেশে ফিরতে চান

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৫ নভেম্বর ২০১৯ শুক্রবার, ০৯:০০ পিএম
জেনারেল মঈন অসুস্থ; দেশে ফিরতে চান

ওয়ান ইলেভেনের অন্যতম কুশিলব সাবেক সেনা প্রধান জেনারেল মঈন ইউ আহমেদ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে এখন নিউইয়র্কে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার পারিবারিক সূত্রে প্রাপ্ত খবরে জানা গেছে, মঈন ইউ আহমেদ আগের চেয়ে বেশি অসুস্থবোধ করছেন। তার ক্যান্সারের চিকিৎসা হলেও তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, মঈন ইউ আহমেদ এখন দেশে ফিরতে চান। দেশে ফেরার জন্য তিনি বাংলাদেশের প্রভাবশালী নানা জনের সঙ্গে যোগাযোগও করছেন। তবে সরকারের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেছেন যে, মঈন ইউ আহমেদের দেশের ফেরার ওপর কোন নিষেধাজ্ঞা নেই। তিনি চাইলেই দেশে ফিরতে পারেন। তার বিরুদ্ধে কোন মামলা বা দ্বন্দ্ব নেই। তিনি দেশে ফিরছেন না কেন এটা তার একান্ত ব্যাক্তিগত ব্যাপার। তবে মঈন ইউ আহমেদের ঘনিষ্ঠরা বলছেন যে, তিনি যেহেতু শারীরিকভাবে অসুস্থ সেজন্য তিনি নিশ্চিত হতে চান যে তিনি কোন ঝঞ্জাট বা হয়রানির মুখোমুখি হবেন না এ ব্যাপারে নিশ্চয়তা চান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে যে, ২০০৮ সালের ২১ আগস্ট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনা নিয়ে একটি সংসদীয় কমিটি গঠন করা হয়েছিল। সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এই বিষয়ে জবানবন্দী দেওয়ার জন্য মঈন ইউ আহমেদকে তলব করা হয়েছিল। পরবর্তীতে সংসদীয় কমিটি যে প্রতিবেদন দিয়েছিল, সেখানে মঈন ইউ আহমেদকে অভিযুক্ত করা হয়েছিল।

তাছাড়া মঈন ইউ আহমেদের ঘনিষ্ঠরা এটাও মনে করেন যে, ওয়ান ইলেভেনের সময় সেনাপ্রধান ছিলেন তিনি। সে সময় অনেকেই তার ওপর রুষ্ট হয়েছে। এ কারণেই হয়তো কেউ তার প্রতি প্রতিশোধ নিতে পারেন। এ কারণেই মঈন ইউ আহমেদ দেশে আসার ব্যাপার দ্বিধান্বিত। সরকারে একাধিক আওয়ামী লীগ প্রভাবশালী নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে যে, ওয়ান ইলেভেনের সময় ভিন্ন ভূমিকা পালন করা অনেকেই এখন বহাল তবিয়তে দেশে আছেন। এই সরকার প্রতিহিংসার রাজনীতি বিশ্বাস করে না।

এক্ষত্রে আওয়ামী লীগের একজন নেতা উদাহরণ দিয়ে বলেন যে, সে সময়ের দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান হাসান মশহুদ চৌধুরী, সে সময়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত আব্দুল মতিন চৌধুরীরা এখন দেশে অবস্থান করছেন। এমনকি বিতর্কিত উপদেষ্টা ব্যারিষ্টার মঈনুল হোসেনও এখন দেশেই রয়েছেন। কাজেই মঈন ইউ আহমেদ যদি নিজে কোন অন্যায় না করে থাকেন। তিনি যদি নিজের কাছে পরিস্কার থাকেন তাহলে দেশে আসার ক্ষেত্রে তার বাধা কোথায়?

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে যে, মঈন ইউ আহমেদ শেষ পর্যন্ত বিদেশেই থাকবেন নাকি দেশে আসবেন সেটা তার একান্ত ব্যাক্তিগত বিষয়। তবে মঈন ইউ আহমেদের আত্মীয়রা যারা ঢাকায় অবস্থান করছেন তারা মনে করছেন, তিনি ভীষণ অসুস্থ এবং তার জীবনের শেষ দিনগুলো দেশেই কাটাতে চান। এ ব্যাপারে তিনি সরকারের সবুজ সংকেতের অপেক্ষায় রয়েছেন।