ঢাকা, সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২ পৌষ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রিজভী ‘বলদ’, তারেক ‘আহাম্বক’?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২ ডিসেম্বর ২০১৯ সোমবার, ০৯:১৭ পিএম
রিজভী ‘বলদ’, তারেক ‘আহাম্বক’?

রিজভীকে তারেক জিয়া ‘বলদ’ বললেন আর জবাবে রিজভী বললেন ‘আহাম্বক’। বিএনপির মধ্যে এ খবর এখন চাওর।

বিএনপির আবাসিক নেতা রুহুল কবির রিজভী দুদিন ধরে নিরব। এ সময় তিনি সংবাদ সম্মেলনেও কোনো বক্তব্য রাখছেন না। মাঝে মধ্যে ঝটিকা মিছিল করলেও সেটিও এখন বন্ধ। বাংল ইনসাইডারের অনুসন্ধানে পাওয়া গেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। তার উপর ক্ষুদ্ধ হয়েছেন লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়া।

তারেক জিয়া, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. খন্দকার মোশারফ হোসেনকে টেলিফোন করে বলেছেন, এই বলদটাকে চুপ থাকতে বলেন। বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, তারেক জিয়া ডিসেম্বর মাসে সরকার বিরোধী আন্দোলনের টার্গেট করেছে। এজন্য তিনি বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মীদের সঙ্গে কথা বলছেন এবং আন্দোলনের জন্য করণীয় নির্ধারণ করছেন। তারেক জিয়া চাইছেন এই সময়ের মধ্যে যেন উস্কানিমূলক অর্বাচিন কথাবার্তা না বলা হয়। সরকারের ফাঁদে কেউ যেন পা না দেয়।

এই সময় রিজভীর বিভিন্ন বক্তব্য উস্কানিমূলক এবং এটার সুযোগ নিয়ে সরকার ধরপাকর করতে পারে। বিএনপি নেতাকর্মীদের নজরদারিতে আনতে পারে এমন ধারণা করে জিয়া রিজভীকে চুপ থাকতে বলেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে তিনি টেলিফোনে বলেন তার দায়িত্ব জ্ঞানহীন কথাবার্তা, দলের কার্যালয়ে বসে থাকা এবং সংগঠনের জন্য কোনো কাজ করতে পারে না এ রকম বলদকে এখন থামাতে হবে বলে নির্দেশ দিয়েছেন। যারা মাঠে কাজ করতে পারে, যারা আন্দোলন সংগ্রাম করতে পারবে তাদেরকে কাজে লাগাতে হবে। ওকে (রিজভী) দলীয় কার্যালয়ে চুপচাপ বসে থাকতে বলেন। জানা গেছে যে, এই কথাটি বিএনপির মধ্যে চাউর হয়ে গেছে।  রিজভী এই ঘটনায় দু:খ প্রকাশ করেছেন। তিনি নিজেকে খালেদা পন্থী হিসেবে মনে করেন। তিনি মনে করেন, তারেক জিয়ার ‘আহাম্বকি’র কারণেই বিএনপি ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনে গেছে এবং বিএনপির এমপিরা শপথ নিয়েছেন। সে কারণেই বিএনপির এই অবস্থা। এখন বিএনপির মধ্যে প্রশ্ন, রিজভী কি আসলেই ‘বলদ’ নাকি তারেক জিয়া ‘আহাম্বক’?