ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী; কার লোক?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ রবিবার, ০৮:৫৯ পিএম
মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী; কার লোক?

 

লে. জেনারেল (অব:) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী। ২০০৭ সালে ওয়ান-ইলেভেনে যারা মুখ্য ভূমিকা পালন করেছিলেন তাদের অন্যতম জেনারেল মাসুদ। সেনা সমর্থিত তত্বাবধায়ক সরকারে একটা সময় পর্যন্ত দ্বিতীয় মূখ্য ব্যক্তি ছিলেন জেনারেল মাসুদ। অনেকেই মনে করেন ২০০৭ সালে সামরিক হস্তক্ষেপের মাধ্যমে তত্বাবধায়ক সরকার বসানোর মূল পরিকল্পনা ছিলো তারই। জেনারেল মঈন সেনা প্রধান হিসেবে সামনে ছিলেন মাত্র।

২০০৫ সালের ১৫ জুন ১২তম সেনা প্রধান হিসেবে র‌্যাংক পরেন মঈন-ইউ আহমেদ। কিন্তু এ সময় সেনাপ্রধান হবার দৌড়ে এগিয়ে ছিলেন মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী। সাঈদ ইস্কান্দারের বন্ধু এবং আত্মীয়। তাই বেশির ভাগ সেনা কর্মকর্তাই ধরে নিয়েছিলেন মাসুদ হবেন সেনা প্রধান।

কিন্তু সবাইকে চমকে দিয়ে মঈন ইউ আহমেদ সেনা প্রধান হন। কথিত আছে, তারেক জিয়ার আপত্তির কারণেই সেনা প্রধান হতে পারেননি মাসুদ। এখান থেকেই বিএনপির সঙ্গে তার টানাপোড়েন। ঐ ক্ষোভ থেকেই ওয়ান-ইলেভেনের পরিকল্পনায় তিনি নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বলেও মনে করে অনেকে। ড. ফখরুদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে সেনা সমর্থিত তত্বাবধায়ক সরকারের জামানায় মঈন ইউ আহমেদ আর মাসুদ উদ্দিনকে জুটি হিসেবেই দেখা গিয়েছিল কিছুদিন।

কিন্তু ক্রমশ: এই দুই সেনা কর্মকর্তার মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়। এক সময় নিস্ক্রিয় এবং কোণঠাসা হয়ে পরেন মাসুদ। জানা যায়, জেনারেল মঈন এর রাজনৈতিক অভিলাষের তীব্র বিরোধিতা করেছিলেন মাসুদ। তিনি চেয়েছিলেন, দ্রুত নির্বাচন দিয়ে সেনাবাহিনীকে ব্যারাকে ফেরত নিতে। দুই নেত্রীকে গ্রেপ্তারেও তার তীব্র আপত্তি ছিলো। এসময়, জেনারেল মাসুদের মতামত গুলো জানতেন আওয়ামী লীগের হাই কমান্ড। মন্তব্য প্রকাশ্যে করে তিনি আলোচিত হন।

আর তাই ২০০৮ এর পর ওয়ান-ইলেভেনের সব কুশীলবরাই যখন পালিয়ে দেশান্তরী হন তখন টানা ছয় বছর অস্ট্রেলিয়ায় রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালন করেন মাসুদ উদ্দিন। দেশে ফিরে ব্যবসা বাণিজ্যে মনোযোগী হন। ২০১৮র নির্বাচনে প্রার্থী হতে আওয়ামী লীগ সভাপতির সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন। আওয়ামী লীগের আগ্রহেই তাকে মনোনয়ন দেয় মহাজোটের শরীক জাতীয় পার্টি। ফেনী-৩ আসন থেকে তিনি এখন এমপি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গুণমুগ্ধ জেনারেল মাসুদ আসলে কার লোক? সাঈদ ইস্কান্দরের আত্মীয়, জাপার এমপি। কিন্তু তিনি রাজনীতিতে সবচেয়ে শ্রদ্ধা করেন শেখ হাসিনাকে। ২০০৭-০৮ এ বিরাজনীতিকরণের বিরুদ্ধে যারা ঝুঁকি নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন তাদের একজন জেনারেল মাসুদ। তিনি কারো লোক নন, বরং রাজনীতি এবং গণতন্ত্রের পক্ষে।